বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম কি? সঠিক পদ্ধতি

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম সম্পর্কে আজকে আপনাদের জানাবো।  যদি কোন কারনে আপনি আপনার ব্যবহৃত বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করতে ইচ্ছুক হন তবে আপনাকে সঠিক নিয়ম টি জানতে হবে, কিভাবে আপনি আপনার বর্তমান বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করে দিতে পারেন।

ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম জানতে আপনাকে সম্পূর্ণ পোস্টটি ভালোভাবে পড়তে হবে। 

বাংলাদেশের জনপ্রিয় মোবাইল ব্যাংকিং সেবা বিকাশ সম্পর্কে যে কোন তথ্য জানতে পারবেন এই ব্লগে।

আপনার কাছে একটি সচল বিকাশ একাউন্ট থাকলে তা বন্ধ করার জন্য আপনাকে কিছু নিয়ম অনুসরণ করতে হবে।

bkash account off করার নিয়ম গুলো সঠিকভাবে অনুসরণ পরবর্তী বিকাশ কর্তৃপক্ষ আপনার আবেদন গ্রহণ করবে এবং আপনার বিকাশ একাউন্টটি বন্ধ করে দেবে।

চলুন যেনে নেয়া যাক ঘরে বসে ও সহজে কিভাবে বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম পদ্ধতি।

ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম কি? 

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম কি
বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম কি

বর্তমানে একটি চলমান বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার দুটি পদ্ধতি রয়েছে। এই ক্ষেত্রে আপনার অবগতির জন্য জানাচ্ছি যে আপনি টেম্পোরারি  ভবে একাউন্ট বন্ধ করতে চাইলে তা ঘরে বসেই করতে পারেন। 

তবে চিরস্থায়ীভাবে একটি বিকাশ একাউন্ট কে আপনার নাম থেকে অপসারণ বা বন্ধ করতে চাইলে আপনাকে বিকাশ অফিসে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট সশরীরে উপস্থিত হতে হবে।

তবে সকলের ক্ষেত্রেই বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম একি। 

যদি কোন কারণে আপনার বিকাশ করা সিমটি চুরি হয়ে যায়, তবে আপনি বিকাশ হেল্প লাইনে কল করে আপনি আপনার বিকাশ নাম্বারটি ব্লক করে দিতে পারেন অথবা আপনি সিম টেলিকম অপারেটর হেল্প লাইনে কল করে আপনার সিম কি ব্লক করে দিতে পারেন।

আপনার বিকাশ একাউন্টটি বন্ধ হয়ে যাবে এবং আপনি নিরাপদ থাকতে পারবেন।

প্রয়োজনে পুনরায় আপনার পছন্দমতো সময়ে হেল্প লাইনে কল করার মাধ্যমে আপনি আপনার বিকাশ একাউন্টটি সচল করতে পারবেন।

তবে আপনি যে পদ্ধতিতেই আপনার বিকাশ একাউন্টটি বন্ধ করতে চান-না কেন আপনাকে প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে বিকাশ হেল্প লাইনে অথবা বিকাশ কাস্টমার কেয়ারে সহযোগিতা করতে হবে।

চলুন জেনে নেয়া যাক বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম কিভাবে অনুসরণ করবেন আপনি। 

আরও পড়ুনঃ

বিকাশ থেকে লোন নেওয়ার উপায় 

সিম রেজিস্ট্রেশন চেক অনলাইন পদ্দতি

গ্রাহককে বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার জন্য যা যা করতে হবে 

১) একাউন্ট ব্যালেন্স জিরো করা: একটি বিকাশ একাউন্ট ডিলিট করার পর আপনি আর কোনভাবেই পুনরায় আপনি আপনার বিকাশ একাউন্টে প্রবেশ করতে পারবেন না। 

সুতরাং,  বিকাশ একাউন্টে টাকা থাকা অবস্থায় একাউন্ট বন্ধ করলে টাকাগুলো আর ফিরে পাওয়া যাবেন হবে। 

যদিও, বিকাশ কর্তৃপক্ষ যদি আপনার  একাউন্টে ব্যালেন্স চেক করে টাকা পায়, তবে একাউন্ট বন্ধ করবেনা। 

তারপরেও, নিজের অর্থের কথা বিবেচনা করে আপনার বিকাশ একাউন্টে কত টাকা আছে তা চেক করে নিন।

প্রয়োজনে বিকাশ এজেন্ট পয়েন্টে গিয়ে ক্যাশ আউট করা অথবা অন্য কারো ব্যক্তিগত বিকাশ নাম্বারে সেন্ড মানি করে নিজের একাউন্ট ব্যালেন্স ০ করে নিন।

২) প্রয়োজনীয় তথ্যপ্রমাণ: আপনার একাউন্ট টি বিকাশ হেল্প লাইনে কল করার মাধ্যমে সাময়িকভাবে বন্ধ করার জন্য আপনার কাছে যে নামে অ্যাকাউন্ট খুলেছেন ঐ নামের ভোটার আইডি কার্ড ও বিকাশ একাউন্টের বর্তমান ব্যালেন্স জানা থাকা জরুরি। 

তবে যদি আপনি আপনার বিকাশ একাউন্টটি পুরোপুরি ভাবে বন্ধ করতে চান তবে আপনাকে আপনার ন্যাশনাল আইডি কার্ড এর অরজিনাল কপি এবং সর্বশেষ লেনদেনের তথ্য দিতে হবে।  

আপনার দেয়া তথ্যগুলো সঠিক থাকলে এবং আপনার অ্যাকাউন্ট ব্যালেন্স থাকলে বিকাশ সার্ভিস সেন্টার থেকে সহজেই আপনি আপনার বিকাশ একাউন্টটি বন্ধ করে নিতে পারবেন। 

৩) বিকাশ সিম চালু থাকা: আপনি যে bkash account deactivate করতে চাচ্ছেন উক্ত বিকাশ একাউন্ট  করা সিমটি চালু থাকতে হবে এবং একটি ডিভাইজে লাগানো থাকতে হবে।

অর্থাৎ বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম অনুসরণ করতে আপনার কাছে সচল বিকাশ সিম এবং একটি মোবাইল ফোন থাকা আবশ্যক। 

ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম

বর্তমানে ঠিক যে নাম্বারটি আপনি বিকাশের জন্য ব্যবহার করছেন আপনাকে ঐ নাম্বার থেকে বিকাশ হেল্পলাইন ১৬২৪৭ নম্বরে কল করতে হবে ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করতে চাইলে। 

অন্য কোন নম্বর থেকে কল করা হলে আপনাকে বিকাশ কাস্টমার কেয়ার ভিজিট করার জন্য অনুরোধ করা হবে। 

তাই যদি বিকাশ একাউন্ট নাম্বার টি আপনার হাতের কাছে থাকে বন্ধ করার জন্য উক্ত সিম থেকে বিকাশ হেল্পলাইন ১৬২৪৭ নম্বর এবং প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে তাদের সহযোগিতা করুন। 

বিকাশ কল সেন্টার এজেন্ট এর সাথে কথা বলার জন্য অপশন নির্বাচন পরবর্তী আপনি আপনার বিকাশ একাউন্টটি বন্ধ করার কথা তাদের জানান। 

বিকাশ পিন রিসেট করার নিয়ম

বিকাশ কল সেন্টার অফিসার আপনার কাছে আপনার বিকাশ একাউন্ট কোন নামে করা সেই ভোটার আইডি কার্ড নাম্বার, বর্তমান ব্যালেন্স, সর্বশেষ লেনদেনের তথ্য জানতে চাইবে।

তাই উক্ত তথ্যগুলো সঠিক ভাবে সংগ্রহ করে বিকাশ কল সেন্টার এজেন্টকে বলুন। 

আপনার দেয়া তথ্যগুলো সঠিক থাকলে বিকাশ কাস্টমার কেয়ার এজেন্ট আপনার ভেরিফিকেশন পরবর্তী আপনার অ্যাকাউন্টটি বন্ধ করে দিবে। 

এজেন্ট পয়েন্ট থেকে বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার পদ্ধতি

অনেক সময় বিকাশ কর্তৃপক্ষ সরাসরি ফোন কলের মাধ্যমে বিকাশ  অ্যাকাউন্ট নাম্বার বন্ধ করার আবেদন গ্রহন করে না।

তাই আপনার উচিত হবে আপনার নিকটস্থ বিকাশ সার্ভিস সেন্টারের নম্বর ও ঠিকানা সংগ্রহ করে সেখানে সশরীরে উপস্থিত হয়ে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র প্রদর্শন করা।

উপরে উল্লেখিত সকল কাগজপত্র সহকারে আপনাকে উপস্থিত হতে হবে। 

মনে রাখবেন বিকাশ করা সিমটি আপনাকে সাথে নিয়ে যেতে হবে একাউন্ট ডিলিট করার জন্য।  

বিকাশ কাস্টমার এজেন্টকে বলতে হবে যে, আপনার বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করতে চান। 

তিনি আপনার কাছে লেনদেনের তথ্য, বর্তমান ব্যালেন্স এবং ন্যাশনাল আইডি কার্ড চাইবেন।

সিম কার নামে নিবন্ধন করা কিভাবে জানবো

সবকিছু ঠিক থাকলে দুই মিনিটের মধ্যে আপনার bkash account deactivate হয়ে যাবে।

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার পর কি আবার চালু করা যাবে?

আপনি যদি একটি বিকাশ একাউন্ট কে পার্মানেন্টলি বন্ধ করে দেন অর্থাৎ আপনার নাম থেকে অপসারণ করে দেন তবে তা পুনরায় ব্যবহার করার সুযোগ নেই।

কেননা আপনি একটি বিকাশ একাউন্ট তখনই বন্ধ করতে চাইবেন যখন আপনার ঐ একাউন্ট আর প্রয়োজন নেই।

এবং সেই সাথে অন্য একটি নম্বরে আপনি আপনার নামে বিকাশ একাউন্ট খুলতে চাইবেন।

যেহেতু বিকাশ গ্রাহকদের একটি ভোটার আইডি কার্ড একটি বিকাশ একাউন্ট সচল রাখার সুযোগ দিচ্ছে, তাই আপনারও একটি বিকাশ একাউন্ট সচল রাখার অনুমতি রয়েছে।

তবে হ্যাঁ আপনি যদি মনে করেন যে আপনার বিকাশ একাউন্টটি আপনি টেম্পোরারি ক্লোজ করছেন পার্মানেন্ট না তবে আপনি যে কোন সময় পুনরায় উপরের পদ্ধতিগুলোর অনুসরণ করে সহজেই বিকাশ একাউন্ট টি পুনর্বহাল করতে পারেন এবং ব্যবহার করতে পারেন।

যদি আপনি আপনার বিকাশ নাম্বার পরিবর্তন করার জন্য একাউন্ট বন্ধ করতে চান, তবে তার কোন দরকার নেই।

কেননা, বিকাশ অ্যাপ দিয়ে আপনি খুব সহজেই বিকাশ নাম্বার পরিবর্তন করে নিতে পারবেন।

আরও পড়ুনঃ

Nagad Dial Code Number

বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হলে করনীয়

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হলে করনীয়
বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হলে করনীয়

যদি কোন কারণে আপনার বিকাশ একাউন্টটি বন্ধ হয়ে যায় তবে এই বিষয়ে জানতে আপনি বিকাশ হেল্পলাইন ১৬২৪৭ নম্বরে কল করতে পারেন।

বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হয়ে থাকে গ্রাহকদের তথ্য হালনাগাদ  না করার কারণে। 

তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে বিকাশ একাউন্ট থেকে অবৈধ লেনদেন হবার কারণে বিকাশ কর্তৃপক্ষ অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিয়ে থাকে। 

এক্ষেত্রে প্রথমে আপনাকে কারণ জানতে হবে ঠিক কি কারণে আপনার বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হয়েছে। 

যদি আপনার বিকাশ একাউন্টটি তথ্য হালনাগাদ জনিত কারণে বন্ধ হয়ে থাকে, তবে আপনি বিকাশ অ্যাপ এর মাধ্যমে সহজেই আপনি বিকাশ একাউন্ট এর তথ্য হালনাগাদ করতে পারেন।

এজন্য প্রথমে বিকাশ অ্যাপ এ লগইন করুন এবং বিকাশ অ্যাপ ড্যাশবোর্ডে ডানপাশে উপরে বিকাশ লোগোতে ক্লিক করলে বিকাশ মেনু ওপেন হবে। 

উক্ত বিকাশ মেরুতে পাঁচ নম্বরে থাকা তথ্য হালনাগাদ অপশনটি নির্বাচন করুন।

তারপর আপনার ভোটার আইডি কার্ডের উভয় পাশের ছবি এবং আপনার সেলফি আপডেট করে সহজেই আপনার বিকাশ একাউন্টটি হালনাগাদ করতে পারেন।

বিকাশ একাউন্ট হালনাগাদ করা না হলে কি ধরনের সমস্যা হয়

পূর্বে বিকাশ কর্তৃপক্ষ বিকাশ একাউন্ট তথ্য হালনাগাদ করা না হলে গ্রাহকের সম্পূর্ণ অ্যাকাউন্টটি বন্ধ করে দিত।

তবে বর্তমানে বিকাশ কর্তৃপক্ষ একাউন্ট বন্ধ না করে তারা একাউন্টের ইনকামিং লেনদেন বন্ধ করে আউটগোয়িং চালু রাখে।

তবে আপনি চাইলে আপনার অ্যাকাউন্টে থাকা টাকা গুলো ব্যবহার করতে পারবেন।

কিন্তু আপনার বিকাশে ক্যাশ বা অ্যাড মানি হবে না, অর্থাৎ নতুন করে আপনার একাউন্টে কোন টাকা প্রবেশ করবে না।

তাই আপনি একাউন্টটি সচল রাখতে বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হলে করনীয় হচ্ছে বিকাশ অ্যাপ ব্যাবহার করে আপনার ভোটার আইডি কার্ডের কপি স্কান করে ও সেলফি প্রদান করা।

উক্ত কাজ গুলো সঠিক ভাবে সম্পন্ন করতে পারলে আপনার বন্ধ থাকা বিকাশ একাউন্টটি সচল হয়ে যাবে। 

আরও পড়ুনঃ

রকেটে টাকা দেখার নিয়ম কি? ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং ব্যালেন্স চেক

ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন এর অর্থ, ফজিলত ও ব্যাবহার সম্পর্কে

শিওর ক্যাশ টাকা দেখার নিয়ম কি? শিওর ক্যাশ ডায়াল কোড কত

ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম কি?

নিজে নিজে ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম হচ্ছে বিকাশ হেল্পলাইন ১৬২৪৭ নম্বরে কল করে প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদান করা। অথবা বিকাশ সার্ভিস সেন্টার ভিজিট করে বিকাশ একাউন্ট ডিলিট করার আবেদন করা।

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হলে করনীয় কি?

আপনার ব্যবহার করা বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হয়ে গেলে প্রথমেই আপনি বিকাশ হেল্পলাইন 16247 নাম্বারে কল করুন এবং বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হওয়ার কারণ সম্পর্কে জেনে নিন।

কিভাবে বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করবো?

ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম হচ্ছে আইডি নম্বর ও তথ্য সহ বিকাশের হেল্পলাইনে কল করা। এছাড়াও বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার জন্য বিকাশ সার্ভিস সেন্টার এডিট করতে পারেন ভোটার আইডি কার্ড সহ।

বিকাশ অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে সেই nid কার্ড দিয়ে নতুন অ্যাকাউন্ট খোলা যাবে কি?

না, সম্বভ না। কেননা বাংলাদেশ সরকারের নিয়ম অনুযায়ী একটি ভোটার আইডি কার্ড দ্বারা একটি বিকাশ একাউন্ট খোলা সম্ভব। তাই আপনাকে আপনার বিকাশ একাউন্ট এর তথ্য হালনাগাদ করতে হবে অথবা বিকাশ একাউন্টটি বন্ধ করে দিতে হবে।

উপসংহার,

আশা করি আপনি ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম সম্পর্কে  সঠিক তথ্য পেয়েছেন। 

আমরা সবসময় চেষ্টা করি শতভাগ সঠিক তথ্য আমাদের ভিজিটর দের মাঝে শেয়ার করার জন্য।

বিকাশ একাউন্ট ডিলিট করার নিয়ম সংক্রান্ত কোন তথ্য জানার বাকি থাকলে আপনি আমাদের কমেন্ট করে জানান।

বাংলাদেশের চলমান মোবাইল ব্যাংকিং সম্পর্কে যেকোনো তথ্য জানতে কমেন্ট করুন।

এবং নিয়মিত আমাদের পোস্টগুলো আপনার ফেসবুকে পেতে জয়েন করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। 

আরও পড়ুনঃ

টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় বাংলাদেশে ২০২২ । 10 টি সহজ উপায় জানুন

কোন অঞ্চলে দিন রাত সমান হয়

Leave a Comment

five × three =