Bkash customer care number Dhaka | বিকাশ কাস্টমার কেয়ার ফোন নাম্বার

Bkash customer care number সম্পর্কে আজকের পোস্ট। বন্ধুরা বাংলাদেশের মোবাইল ব্যাংকিং সেবা বিকাশ বর্তমান গ্রাহক সংখ্যা ৫ কোটির মত। বৃহত্তম মোবাইল ব্যাংকিং সেবা বিকাশ হেল্প প্রয়োজন পড়ে অনেকের। তাই তারা বিকাশ কাস্টমার কেয়ার নাম্বার খুঁজে থাকেন google search করে। 

এই বিশাল সংখ্যক গ্রাহক দৈনন্দিন কাজে বর্তমানে বিকাশ ব্যবহার করতে পারেন। বর্তমানে বাংলাদেশে বিকাশ ব্যবহার করেন না এমন গ্রাহকের সংখ্যা অনেক কম। 

হয়তো তার নিজের বিকাশ অ্যাকাউন্ট নেই কিন্তু বিকাশে টাকা পাঠান নি এমন গ্রাহক খুঁজে পাওয়া যাবে না বললেই চলে। 

আরও পড়ুনঃ  নগদ একাউন্টের সুবিধা 

প্রতিটি সেবায় কিছু না কিছু সমস্যা থাকে গ্রাহকের খারাপ। বিকাশ ব্যাবহারে গ্রাহককে বিরম্বনা শিকার হতে হয় এমন কিছু সমস্যা  বিকাশে রয়েছে। 

তাই আপনাদের  বিকাশ সমস্যায় আপনাদের হেল্প করতে এবং বিকাশ হেল্পলাইন নাম্বার সম্পর্কে আপনাদের জানাতে চলে এলাম এই পোস্টে।

আমি আপনাদের খুব বেশি তথ্য না দিতে পারলেও Bkash customer care number কল করে আপনি কি সমস্যার জন্য কি তথ্য দিলে আপনার সমস্যাটির সহজে সমাধান হবে সে বিষয়ে আপনাদের সাহায্য করবো।

Bkash customer care number Dhaka | বিকাশ কাস্টমার কেয়ার ফোন নাম্বার

Bkash customer care number Dhaka বিকাশ কাস্টমার কেয়ার ফোন নাম্বার

বন্ধুরা Bkash customer care number 16247. আপনার যে কোন সমস্যায় আপনি 24/7 কল করে বিকাশ সেবা নিতে পারবেন ১৬২৪৭ নম্বর থেকে। এছাড়াও Bkash customer care number Dhaka এবং দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে গ্রাহদের সেবা নিতে নির্দিষ্ট পয়েন্টে customer care স্থাপন করেছে। 

Bkash customer care  Information
Bkash customer care number 16247 OR 02-55663001
Bkash helpline live chat https://webchat.bkash.com
Email [email protected]
বিকাশ ফেসবুক ফ্যান পেজ https://www.facebook.com/bkashlimited
কর্পোরেট ঠিকানা স্বাধীনতা টাওয়ার, ১ বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ জাহাঙ্গীর গেট, ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট, ঢাকা -১২০৬
বাণিজ্যিক ভবন ঠিকানা এসকেএস টাওয়ার, ৭ ভি আই পি রোড, মহাখালী, ঢাকা-১২০৬
ফ্যাক্স ০০৮৮-০২-৯৮৯৪৯১৬

দেশের যে কোন মোবাইল নেটওয়ার্ক ও লেন্ড লাইন থেকে বিকাশ হেপ্ললাইন নম্বর ১৬২৪৭ তে কল করা যাবে।

উপরোক্ত ঠিকানা ব্যতীত দেশের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ও বিশেষ অঞ্চলগুলোতে বিকাশ কাস্টমার কেয়ার স্থাপন করেছে বিকাশ।

আরও পড়ুনঃ How to add bkash priyo number 

বিকাশ হেলপ্লাইন থেকে আপনি প্রয়োজনীয় সেবা নিতে না পারলে আপনি এই বিকাশ কাস্টমার কেয়ার পয়েন্ট গুলিতে গিয়ে বিকাশ সেবা নিতে পারবেন। 

বন্ধুরা Bkash customer care number ঠিকানা সম্পর্কে আপনাদের এই পোস্টের এক অংশে জানানো হবে।

Bkash helpline number bd – বিকাশ হেল্পলাইন নম্বর 

Bkash helpline number bd - বিকাশ হেল্পলাইন নম্বর 

বিকাশ একাউন্ট জনিত কিছু সমস্যায় আপনি বিকাশ কাস্টমার কেয়ার ফোন নাম্বারে কল করে সমাধান করতে পারেন। 

আবার কিছু সমস্যা এমন রয়েছে যে সমস্যাগুলিতে আপনাকে বিকাশ কাস্টমার কেয়ারে গ্রাহককে উপস্থিত হয়ে সমস্যা সমাধান করে নিতে হয়।    

যে সমস্ত সমস্যা গুলো আপনি নিজে bkash helpline number কল করে সমাধান করতে পারেন সে সমস্ত সমস্যা সমাধানে আপনার কি কি তথ্য প্রয়োজন হতে পারে এ সকল বিষয়ে আপনাদের জানাবো।

বিকাশ বর্তমানে সেরা মোবাইল ব্যাংকিং সেবা। গ্রাহক সংখ্যা এবং প্রতি দিনের লেনদেন হিসাব করলে বিকাশ বাংলাদেশের বর্তমানে এক নম্বর মোবাইল ব্যাংকিং সেবা। 

আড়ও পড়ুন –

বিকাশে টাকা লেনদেন করতে, টাকা গ্রহণ করতে, একাউন্টের পিন সেট করতে এবং একাউন্ট ব্যবহারে নানা সমস্যায় পড়ে থাকেন গ্রাহক।

তবে যে সমস্ত গ্রাহকগণ জেনে-বুঝে বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করেন তারা খুব বেশি সমস্যায় পড়েন না। 

নতুন বিকাশ গ্রাহকদের সমস্যায় বেশি লক্ষ্য করা যায়। তাই তারা কি কি সমস্যায় পড়েন এবং সমস্যা থেকে কিভাবে বাঁচবেন সে বিষয়ে আপনাদের জানাবো। 

মনে রাখবেন বিকাশ কাস্টমার কেয়ার নাম্বারে কল করতে আপনাকে 2 টাকা প্রতি মিনিট হারে চার্জ দিতে হয়। সেইসাথে অনেক সময় কল সংযোগ পেতে অনেক সময় লেগে যায়।

আপনি যদি সহজে সংযোগ পেয়েও যান এবং আপনি যদি সঠিক তথ্য না দিতে পারেন তবে আপনার অ্যাকাউন্টের সমস্যা সমাধান করতে পারবেন না।  

কেননা বিকাশ হেল্পলাইন নম্বরে কল করে আপনাকে হেল্প পেতে সঠিক তথ্য দিতে হবে। 

বিকাশ হেল্প লাইন নাম্বার কল করতে কি তথ্য প্রয়োজন 

বিকাশ হেল্প লাইনে কল করতে আপনার মোবাইল ব্যালেন্স কমপক্ষে 10 টাকা থাকতে হবে। কেননা প্রতি মিনিট ২ ত্রাকা চার্জ হলে ৫ মিনিট কথা বলা যাবে। 

অনেক সময় bkash helpline number bd তে কল সংযোগ পেয়ে কাস্টমার ম্যানেজারের সাথে কথা বলতে বলতে ৫ মিনিটের বেশি সময় লেগে যায়।

আপনি যে সমস্যায় কল করেন না কেন- 

  • একাউন্ট টি যে নামে রয়েছে ওই নামের ভোটার আইডি কার্ড সাথে রাখবেন।  
  • বর্তমানে আপনার বিকাশ একাউন্টের মজুদা ব্যালেন্স জানতে চাওয়া হতে পারে, আপনাকে সঠিকভাবে ব্যালেন্সের পরিমাণ জানাতে হবে তাদের।
  • যে সমস্যায় আপনি কল করেছেন ওই সমস্যা সম্পর্কে সঠিক ভাবে বুঝিয়ে বলতে হবে।

আড়ও পড়ুন –

Bkash account check code – বিকাশ একাউন্ট চেক

গ্রাহকে বিকাশ একাউন্ট চেক করতে প্রথমেই বিকাশ পার্সোনাল নম্বর থেকে Bkash account check code *247# ডায়াল করতে হবে। 

বিকাশ ইউএসএসডি কোড *২৪৭# ডায়াল পরবর্তী গ্রাহক বিকাশ মেনুতে প্রবেশ করবেন। 

এখন বিকাশ মেনু থেকে-

  • 8.My Bkash – মাই বিকাশ সিলেক্ট করুন। 
  • 1.Check balance – চেক ব্যালেন্স নির্বাচন করুন। 
  • Enter Menu pin – আপনার ৫ সংখ্যার গোপন পিন কোডটি দিন।
  • আপনার দেয়া তথ্য ঠিক থাকলে আপনি বিকাশ একাউন্ট ব্যালেন্স দেখতে পাবেন। 

Bkash pin lock – bkash pin reset পদ্দতি – বিকাশ পিন লক হলে করণীয়

বিকাশ কাস্টমার কেয়ার ফোন নাম্বার

বিকাশ পিন লক একটি রেগুলার সমস্যা। কারণে অকারণে অনেক সময় নিজের অজান্তে আমরা ভুল পিন দিয়ে নিজের বিকাশ একাউন্ট লক করে ফেলি। 

কোন কোন সময় বিকাশ নম্বরটি অন্য কারও হাতে চলে গেলে তারা অনুমাননির্ভর bkash pin চেষ্টা করলে বিকাশ পিন কোড লক হয়ে যায়।

আপনি যদি পরপর তিনবার বিকাশ পিন কোড ভুল প্রবেশ করান তবে পিন ব্লক হয়ে যাবে। 

অর্থাৎ আপনি সর্বোচ্চ দুই বার ভুল পিন কোড প্রবেশ করাতে পারবেন, তৃতীয়বার আপনাকে অবশ্যই সঠিক bkash pin number প্রবেশ করাতে হবে অন্যথায় আপনার অ্যাকাউন্ট locked হয়ে যাবে।   

See More Article

বিকাশ পিন ভুলে গেলে করনীয়

আপনি যদি বিকাশ পিন কোড ভুলে যান বা কোনো কারণে যদি আপনার বিকাশ একাউন্টের পিন কোড লক হয়ে যায়। 

তবে আপনি আপনার ভোটার আইডি কার্ড ও অন্যান্য তথ্য সহ Bkash customer care number কল করে আপনার বিকাশ একাউন্টের পিন কোড রিসেট করে নিতে পারবেন। 

বিকাশ পিন কোড রিসেট করতে প্রয়োজনীয় তথ্যাদি- 

  • একাউন্ট বর্তমান ব্যালেন্স। 
  • একাউন্ট হোল্ডারের ভোটার আইডি কার্ড।  
  • সর্বশেষ ২ লেনদেন/খরচের  তথ্য।
  • আপনার দেয়া তথ্য ঠিক থাকলে বিকাশ কাস্টমার কেয়ার থেকে আপনার পিন রিসেট করে দেয়া হবে।

নিজেই বিকাশ পিন রিসেট করার নিয়ম

এছাড়াও এখন বিকাশ হেল্প লাইনে নম্বরে কল নাকরেও গ্রাহক বিকাশ মোবাইল মেন্যু থেকে বিকাশ পিন সেট করে নিতে পারেন। 

 এই পদ্ধতিতে এখন আর গ্রাহককে bkash helpline number bd তে করে অপেক্ষা করতে হবে না। 

 নিজেই নিজের বিকাশ পিন কোড সেট করতে – 

 বিকাশ ইউএসএসডি কোড *247# ডায়াল করে বিকশ মেনুতে প্রবেশ করুন। 

বিকাশ মেনু থেকে- 

  • 9.Reset Pin – মাই বিকাশ সিলেক্ট করুন। 
  • Enter your bkash registered NID/ passport/- চেক ব্যালেন্স নির্বাচন করুন। 
  • Enter new pin – নতুন পিন কোড লিখুন।
  • Conform pin – একই পিন কোড পুনরায় দিন।
  • আপনার দেয়া bkash registered তথ্য ঠিক থাকলে আপনি বিকাশ পিন সফল ভাবে পরিবর্তন হয়ে যাবে। 

bKash Customer care live Chat । bkash helpline chat

এখন আপনি আপনার বিকাশ একাউন্ট জনিত সমস্যা সম্পর্কে লাইভ চ্যাট করে সেবা নিতে https://livechat.bkash.com/ ঠিকানায় চলে জান।

বর্তমানে বিকাশ সম্পর্কিত যেকোনো তথ্যের জন্য এবং ঘরে বসে বিকাশ এর সব প্রয়োজনীয় সকল সার্ভিস বা সেবা নিতে পারবেন bKash Customer care live Chat পেজ থেকে।

bkash helpline chat বলে থাকেন অনেকে। Bkash customer care number কল না করেও চমৎকার একটি সেবা বিকাশ থেকে আপনি ন্যে পারেন।

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হলে করনীয়

বিকাশ থেকে কখনোই একটি বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করেনা। একটি বিকাশ বন্ধ হওয়ার পেছনে বেশ কিছু কারণ রয়েছে। 

একাউন্ট বন্ধ হওয়ার মূল কারণ হচ্ছে বিকাশ একাউন্ট  তথ্য হালনাগাদ না থাকা। অথবা আপণাট বিকাশ একাউন্ট থেকে লেনদেন সন্দেহ জনক হলে। 

আমরা অনেকেই পূর্বের NID কার্ড দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খুলেছি। আবার অনেকেই শুরুতে নামমাত্র কাগজপত্র দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খুলেছেন।  

বর্তমান বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা পরিচালনা প্রতিষ্ঠান গুলিকে নির্দেশ দিয়েছে পার্সোনাল মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট গুলির তথ্য হালনাগাদকৃত করতে। 

তাই বিকাশ ঐ সকল গ্রাহককে এসএমএস দিয়ে তথ্য হালনাগাদ করার জন্য বলে থাকে যাদের তথ্য হালনাগাদ করা নেই।  

আপনি যদি স্মার্ট কার্ড দিয়ে বিকাশ করে থাকেন তবে আপনাকে চিন্তিত হতে হবে না। আপনার অ্যাকাউন্টটি সুরক্ষিত থাকবে।

তবে কোনো কোনো গ্রাহকের বিকাশ একাউন্ট থেকে অনেকদিন থেকে কোন ধরনের লেনদেন না হওয়ার কারণে তা বন্ধ করে দেয়া হয় বা বন্ধ হয়।   

তাই একজন বিকাশ গ্রাহককে তাঁর একাউন্ট টি সবসময় সচল রাখতে সর্বশেষ তিন মাসের মধ্যে কোন না কোন লেনদেন করতে হবে তার একাউন্ট থেকে।   

আশাকরি বিকাশ একাউন্ট কেন বন্ধ হয় বিকাশ একাউন্ট বন্ধ হলে করণীয় কি এই সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। 

বিকাশ একাউন্ট হালনাগাদ করতে কি কি কাগজপত্র প্রয়োজন পড়ে-

 বন্ধুরা বিকাশ একাউন্ট হালনাগাদ করতে আপনাকে সরাসরি বিকাশ কাস্টমার কেয়ারে হাজির হতে হবে। 

  • সাথে ১ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি, 
  • ভোটার আইডি কার্ডের এক কপি রঙিন কপি। 
  • অরিজিনাল ভোটার আইডি কার্ড সহ নিয়ে যেতে হবে।
  • বিকাশ কাস্টমার কেয়ার প্রতিনিধি আপনার একাউন্ট হালনাগাদ করে দিবেন। 

আড়ও পড়ুন –

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম

আপনার ব্যবহার করা বিকাশ একাউন্টে যদি কোনো কারণে বন্ধ করতে চান তবে আপনাকে অবশ্যই সরাসরি বিকাশ কাস্টমার কেয়ারে হাজির হতে হবে। 

তবে মনে রাখবেন বিকাস একাউন্ট টি যদি আপনার নিজের নামে হয় তবে আপনি নিজে যাবেন। 

অথবা একাউন্ট যে নামে করেছেন ওই ব্যক্তিকে সাথে নিয়ে যাবেন।   

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করতে কি কি প্রয়োজন- 

  • বন্ধুরা একটি বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করতে প্রথমে বিকাশ একাউন্টের ব্যালেন্স 0 করে নিবেন।
  • যে নামে বিকাশ একাউন্টটি রয়েছে উক্ত নামের অরিজিনাল ভোটার আইডি কার্ড নিয়ে যেতে হবে।
  • বিকাশ bKash Customer care অফিসে একাউন্ট অনারকে হাজির হতে হবে।

Bkash customer care number Dhaka

বর্তমানে দেশে বিকাশ কাস্টমার কেয়ার সংখ্যা অনেক।

আপনি যদি বিকাশ হেল্প লাইন নাম্বার থেকে আপনার সমস্যা সমাধান না করতে পারেন তবে আপনি বিকাশ সার্ভিস পয়েন্টে যেতে হবে।

How to unlock bkash pin? 

বন্ধুরা এখন আপনি *247# ডায়াল করে 9. Reset PIN সিলেক্ট করে bkash pin unlock করতে পারেন নিজেই।

আরও পড়ুনঃ

Daraz contact number bd 

Rocket coustomer care number 

In conclusion,

এতখন আপনাদের Bkash customer care number এবং bkash helpline number bd সম্পর্কে বিস্তারিত জানালাম। আশা করি আপনি  বিকাশ হেল্প লাইন নাম্বার কল করে সেবা নিতে আপনার কোন সমস্যা হহবে না। বিকাশ একাউন্ট সম্পর্কে আপনার কোন তথ্য জানার থাকলে কমেন্ট করুন। জয়েন করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। 

Leave a Comment

13 + 17 =