মুঘল সাম্রাজ্যের শ্রেষ্ঠ সম্রাট কে? মুঘল সাম্রাজ্যের ইতিহাস

মুঘল সাম্রাজ্যের শ্রেষ্ঠ সম্রাট কে? এ বিষয়ে জানার জন্য আপনারা অনেকেই নানান মাধ্যমে প্রশ্ন করে থাকেন। ইতিহাস সম্পর্কে জানতে অনেকের খুবই আগ্রহ রয়েছে।

ইতিহাসে এমন অনেক ধরনের বিষয় রয়েছে যেগুলো মানুষকে আকর্ষিত করে। আজকে আমরা মুগল সাম্রাজ্যের শ্রেষ্ঠ সম্রাট কে এ বিষয়ে নিয়ে আপনাদের সামনে সম্পূর্ণ বিস্তারিত একটি আর্টিকেল তুলে ধরব। আশা করি আজকের এই আর্টিকেলটি আপনাদের খুবই ভালো লাগবে। 

পৃথিবী সৃষ্টির পর থেকে নানান সময় নানান সাম্রাজ্যের সম্রাটরা শাসন করে চলে গেছেন। আবার নতুন সম্রাট এসেছেন। আজকে আমরা মুগল সাম্রাজ্যের শ্রেষ্ঠ সম্রাট কে এ বিষয়ে জানব।

মুগল সাম্রাজ্যের শ্রেষ্ঠ সম্রাট 

মুগল সাম্রাজ্যের শ্রেষ্ঠ সম্রাট
মুগল সাম্রাজ্যের শ্রেষ্ঠ সম্রাট

ইতিহাসবিদ দের মতে মুগল সাম্রাজ্যের শ্রেষ্ঠ সম্রাট হচ্ছেন জহির উদ্দিন মোহাম্মদ বাবর।

জহির উদ্দিন মোহাম্মদ বাবর ভারতের উপমহাদেশ পরিক্রম সালে মুঘল সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।

তিনি দেশের ঐতিহাসিক তাই নয় তিনি খুবই বিতর্কীত বটে।

তখনকার আমল থেকেই ১৪ ফেব্রুয়ারিকে ভ্যালেন্টাইন ডে হিসেবে পালন করা হতো।

তবে ওই তারিখেই এই ঐতিহাসিক ব্যক্তির জন্মদিন সেটা খুব কম মানুষই জানতো।

উজবেকিস্তানের আন্দিজানে জন্মগ্রহণ করেছিলেন মোগল সাম্রাজ্যের প্রতিষ্ঠাতা বাবর।

১৪৮৩ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি তিনি জন্মগ্রহণ করেছিলেন।

ভারতের একটি অংশের মানুষ বাবরকে আক্রমণকারী বলে মনে করেন।

আর অযোধ্যায় তাঁর নামাঙ্কিত বাবরি মসজিদ-রাম জন্মভূমি নিয়ে বহু দশক ধরে বিতর্ক চলছে।

তবে আক্রমণকারী অথবা বিজয়ী যাই হোক না কেন সম্রাট বাবর সম্পর্কে মানুষের কাছে তেমন তথ্য পাওয়া যায় না।

মুঘল সম্রাটদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি প্রচলিত নাম আকবর এবং শাহজাহান নামে বেশি আলোচিত হয়ে থাকে। 

কিন্তু বিখ্যাত ইতিহাসবিদ মুখের কথায় হরবংশ মুখিয়ার কথায়, “সংস্কৃতি, সাহসিকতা আর সেনা পরিচালনার ক্ষেত্রে বাবর নি:সন্দেহে এক উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্ব ছিলেন।

তিনি আরো বলেন যদি বাবর ভারতের না আসতেন, তাহলে হয়ত ভারতের সংস্কৃতি এতটা বিচিত্র হওয়ার সুযোগ পেত না।

আরও পড়ুনঃ

আধুনিক ইতিহাসের জনক কে?

কারবালা কোথায় অবস্থিত?

ইতিহাস পাঠ করা প্রয়োজন কেন?

মুগল সাম্রাজ্যের ইতিহাস | মুঘল সাম্রাজ্যের শ্রেষ্ঠ সম্রাট কে

মুগল সাম্রাজ্যের ইতিহাস
মুগল সাম্রাজ্যের ইতিহাস

ভারতীয় ভাষা সংগীত চিত্রকলা স্থাপত্য অথবা খাবার-দাবার প্রতিষ্ঠা বিষয়েই মুগলদের অবদান ছিল অনস্বীকার্য বলে মনে করা হয়।

মাত্র ১২ বছর বয়সে রাজ সিংহাসনে বসে ছিলেন বাবর।

বিখ্যাত সেই ইতিহাসবিদ হরবংশ মুখিয়ার মতে, সম্রাট বাবরের চিন্তা ধারা ছিল সে কখনো হারাবে না এবং হার না মেনে নেয়ার মানসিকতা তৈরি ছিল তার মাঝে।  বাবরের মাথায় ছিল সমরখন্দ দখলের স্বপ্ন।

তিনি তা দখল করেছিলেন, এক দুবার নয় তিন বার যখন করেছিলেন, কিন্তু প্রতিবারই তাকে ফিরে আসতে হয়েছিল।

তিনি যদি সমরখন্দ দখলের সফল হতে না সেখানকার রাজা হিসেবে সেখান থেকে যেতে, যেতেন তাহলে যেতেন তাহলে হয়ত কাবুল বা ভারত দখল করে এখানে রাজত্ব করার চিন্তা তিনি ভাবতেন না। 

১৫২৬ সালে সম্রাট আকবর পানিপথের যুদ্ধে বিজয়ের সময় সেখানে একটি মসজিদ বানিয়ে ছিলেন, এখন সে মসজিদ সেখানে রয়েছে।

সম্রাট বাবর হচ্ছেন পৃথিবীর প্রথম শাসক, যিনি নিজের আত্মজীবনী নিজেই লিখেছেন।

“বাবরনামা” তে তিনি তার জীবনে সফলতা এবং ব্যর্থতার সকল গল্প তুলে ধরেছেন। 

সম্রাট বাবর তার আত্মজীবনী তুর্কি ভাষায় লিখতেন। 

এছাড়াও তিনি তুর্কি ভাষায় কবিতা লিখতেন। সেখানে ব্যবহৃত বেশ কিছু শব্দ ভারতে নিত্যদিন ভাষার অঙ্গ হয়ে দাঁড়িয়েছে। 

যেমন উদাহরণস্বরূপ বলা যায় ময়দান শব্দটি তার জীবন থেকেই সর্বপ্রথম পাওয়া শব্দ।

কিভাবে অনেকদূর নিয়ে আর বাঁচি শব্দ গারোদের ভাষার মধ্যে বর্তমানে রয়েছে।

সম্রাট বাবর সম্বন্ধে কিছু তথ্য 

সেই বিখ্যাত ইতিহাসবিদ মিস্টার মুখিয়ার মতে, যুদ্ধ, সাম্রাজ্য পতনের মধ্য দিয়ে নিজের পরিবারের প্রতি নিষ্ঠাবান ছিলেন সম্রাট বাবর।

তিনি তার মা এবং নানির সঙ্গে যেমন গভীর সম্পর্ক রেখেছিলেন, তেমনি বোনের কাছেও তিনি ছিলেন একজন আদর্শ ভাই।

আবার ছেলে হুমায়ূনের প্রতিও তাঁর ছিল গভীর পিতৃস্নেহ।

সম্রাট বাবরের ছেলে হুমায়ূনের একবার কঠিন অসুখে পড়ে ছিল।

সেসময় বাবার ছেলে শরীর ছুঁয়ে সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা করেছিলেন যে পুত্রের অশোক সারিয়ে দিয়ে তিনি যেন বাবরের প্রাণ কেড়ে নেন।

হুমায়ান সে যাত্রায় সুস্থ হয়ে উঠেছিল, কিন্তু তার ওই ঘটনার কিছুদিন পরে বাবা অসুস্থ হয়ে পড়েন এবং তারপর তার মৃত্যু হয়ে যায়।

৪৭ বছর বয়সে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত লাগাতার যুদ্ধ পরিচালনা করেছেন মুঘল সাম্রাজ্যের প্রতিষ্ঠাতা জহিরুল মোহাম্মদ বাবর।

আরও পড়ুনঃ

১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস স্ট্যাটাস

জাতীয় শোক দিবসের সংক্ষিপ্ত বক্তব্য

১৫ অগাস্ট বাংলাদেশ – শোক দিবস।

মুঘল সাম্রাজ্যের শ্রেষ্ঠ সম্রাট কে FAQS

মুঘল সাম্রাজ্যের শ্রেষ্ঠ সম্রাট কে?

ইতিহাসবিদ দের মতে মুঘল সাম্রাজ্যের শ্রেষ্ঠ সম্রাট হচ্ছেন জহির উদ্দিন মোহাম্মদ বাবর।

সম্রাট জহির উদ্দিন মোহাম্মদ বাবরের জন্ম দিন কবে?

সম্রাট জহির উদ্দিন মোহাম্মদ বাবরের জন্ম দিন ১৪৮৩ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি।

উপসংহার 

প্রিয় পাঠকগণ আজকের এই আর্টিকেলটি মুঘল সাম্রাজ্যের শ্রেষ্ঠ সম্রাট কে সে বিষয়ে উল্লেখ করে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

আশা করি আজকের এই আর্টিকেলটি আপনাদের ভাল লেগেছে। 

ইতিহাসে অনেক সম্রাট এসেছেন আবার চলে গিয়েছেন কিন্তু বাবর এর মত সম্রাট একজন ছিলেন।

আপনাদের যদি এ বিষয়ে কোন প্রশ্ন বা মতামত থাকে তাহলে অবশ্যই আমাদেরকে কমেন্ট বক্স এর মাধ্যমে জানাতে পারেন।

অনলাইন থেকে ঘরে বসে টাকা আয় এবং বিভিন্ন ধরনের শিক্ষামূলক আর্টিকেল গুলো পড়তে আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করুন। 

সেই সাথে আমাদের ওয়েব সাইট সম্পর্কিত সকল আপডেট পেতে চোখ রাখুন আমাদের ফেসবুক পেইজে

Leave a Comment

three × 4 =