কিডনির পয়েন্ট কত হলে ভালো | কিডনির রোগ সম্পর্কে বিস্তারিত

প্রিয় পাঠকগণ কিডনির পয়েন্ট কত হলে ভালো এবিষয়টি জানার জন্য আপনারা অনেকেই আমাদেরকে গুগল সার্চের মাধ্যমে নিজেদের আগ্রহ জানিয়েছেন। তাই আপনাদের সুবিধার্থে আজকের এই আর্টিকেলে আমরা কিডনির পয়েন্ট এবং কিডনির নানান বিষয়ে আপনাদেরকে বিস্তারিত জানানোর চেষ্টা করব।

কিডনি মানুষের একটি অমূল্য সম্পদ। আপনার যদি কিডনিতে কোন ধরনের সমস্যা হয় তাহলে সেই ক্ষেত্রে আপনার জীবনকে অতিষ্ঠ করে তুলতে এই একটি কারণেই যথেষ্ট।

আপনার শরীরের মধ্যে বিভিন্ন ধরনের রোগ এই লিভারের সমস্যা থেকে হয়ে থাকে। তাই আপনার আমার সবার জন্য কেনে যত্ন নেয়া অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং জরুরী।

কিডনির পয়েন্ট কত থাকলে শরীর ভালো থাকে 

কিডনির পয়েন্ট কত থাকলে শরীর ভালো থাকে
কিডনির পয়েন্ট কত থাকলে শরীর ভালো থাকে
  • স্বাভাবিক নারীদের ক্ষেত্রে প্রতি ডেসিলিটার রক্তে ক্রিয়েটিনিনের মাত্রা থাকে ০.৫-১.১ মিলিগ্রাম।
  • স্বাভাবিক পুরুষের ক্ষেত্রে প্রতি ডেসি লিটার রক্তে এর মান ০.৬-১.২ মিলিগ্রাম।
  • একটা কিডনী যাদের নেই তাদের ক্ষেত্রে ক্রিয়েটিনিনের মাত্রা প্রতি ডেসি লিটার রক্তে ১.৮ মিলিগ্রাম পর্যন্ত স্বাভাবিক।
  • কিশোরদের ক্ষেত্রে প্রতি ডেসি লিটার রক্তে ক্রিয়েটিনিনের মাত্রা ০.৫-১.০ মিলিগ্রাম
  • শিশুদের ক্ষেত্রে রক্তে ক্রিয়েটিনিনের মাত্রা ০.৩-০.৭ মিলিগ্রাম/ডিএল
  • প্রাপ্তবয়স্কদের ক্ষেত্রে রক্তে ক্রিয়েটিনিন ৫.০ মিলিগ্রাম/ডেসিলিটারের চেয়ে বেশি হলে কিডনী ড্যামেজ হয়েছে বুঝা যায়।

আপনার কিডনির জন্য এরমধ্যে পয়েন্ট থাকা ভালো হবে।

আপনারা সবসময় চেষ্টা করবেন ভালো এবং সুষম খাবার গ্রহন করার জন্য।

আমাদের ওয়েবসাইটে কিডনি রোগের জন্য খাবার সম্পর্কে আর্টিকেল প্রদান করা আছে।

পৃথিবীর সবচেয়ে ভালো প্রধানমন্ত্রী কে?

স্বর্গীয় বধু মসজিদ কে নির্মাণ করেন?

ক্রিয়েটিনিন ও কিডনি রোগ 

আপনার কিডনি বিকল হয়েছে কিনা সেই রোগ নির্ণয় করার জন্য রোগের উপসর্গ ইতিহাস বিশেষভাবে জানা হয়ে থাকে।

এছাড়াও শারীরিক পরীক্ষা এবং রাজনৈতিকভাবে রক্তে ইউরিয়া, ক্রিয়েটিনিন এবং ইলেক্ট্রোলাইট পরীক্ষা করা হয়ে থাকে।

আবরার কিডনির কার্যকারিতা যখনই কমে যাবে তার সঙ্গে সঙ্গে আপনার রক্তের ইউরিয়া এবং ক্রিয়েটিনিন বেড়ে যাবে।

এছাড়াও আপনার শরীরে পটাশিয়ামের পরিমাণ বাড়তে থাকে এবং বাইকার্বনেট কমে যায়।

এবং আরো আছে এই সেগুলোর মধ্যে হচ্ছে ফসফেট শরীরের মধ্যে জমতে শুরু করে, যার কারণে ক্যালসিয়াম কমে যেতে বাধ্য হয় এবং অন্যান্য পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া আপনার শরীরে দেখা দিতে পারে।

এই পরবর্তী সময়ে কি কারনে আপনার শরীরের ধীরগতিতে কিডনি বিকল হচ্ছে তা বের করার জন্য প্রসাব পরীক্ষা করে অ্যালবুমিন আছে কিনা তা দেখা হয়। 

এবং এর পাশাপাশি লোহিত কণিকা আছে কিনা সেটিও দেখে নেয়া হয়।

যদি প্রয়োজন মনে করা হয় তাহলে ২৪ ঘন্টা প্রস্রাবে প্রোটিনের পরিমাণ পরীক্ষা করা হয়।

আরও পড়ুনঃ

Internet এর পূর্ণরূপ কি?

সুবহানাল্লাহ অর্থ কি?

পিতা মাতার জন্য দোয়া কোনগুলো?

কিডনির পয়েন্ট কত হলে ভালো FAQS

কিডনির পয়েন্ট কত হলে ভালো?

স্বাভাবিক নারীদের ক্ষেত্রে প্রতি ডেসিলিটার রক্তে ক্রিয়েটিনিনের মাত্রা থাকে ০.৫-১.১ মিলিগ্রাম।
স্বাভাবিক পুরুষের ক্ষেত্রে প্রতি ডেসি লিটার রক্তে এর মান ০.৬-১.২ মিলিগ্রাম।

উপসংহার 

প্রিয় পাঠকগণ আজকের এই আর্টিকেলের কিডনির পয়েন্ট কত হলে ভালো সে সম্পর্কে আপনাদেরকে বিস্তারিত জানানো হয়েছে।

আশা করছি আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনারা কিডনি সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন।

আপনাদের কাঙ্ক্ষিত প্রশ্নের উত্তরটি হয়তো আপনারা আজকের এই আর্টিকেল থেকে জানতে পেরেছেন।

তবুও যদি আপনাদের কোন কিছু জানার থাকে তাহলে অবশ্যই আমাদেরকে কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে পারেন।

আমরা আপনাদেরকে প্রতিনিয়ত শিখেছি কিভাবে অনলাইন থেকে ঘরে বসে আয় করা সম্ভব।

আমাদের ওয়েবসাইট থেকে আপনারা এ-সংক্রান্ত অনেক আর্টিকেল পেয়ে যাবেন।

এছাড়া আমাদের ওয়েবসাইটের বিষয়ে সকল আপডেট গুলো সবার আগে পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে ফলো করে রাখুন। 

Leave a Comment

three + 9 =