সুবহানাল্লাহ অর্থ কি? | দিনে কতবার সুবহানাল্লাহ পড়া উচিত

প্রিয় পাঠকগণ সুবহানাল্লাহ অর্থ কি? আপনারা কি জানেন। আপনারা যদি এ বিষয়ে না জেনে থাকেন তাহলে আজকের এই আর্টিকেল আপনাদের জন্য। মহান আল্লাহ তায়ালা আমাদেরকে তাঁর ইবাদত করার জন্য সৃষ্টি করেছেন। সুবাহান আল্লাহ আমাদের ইবাদতের মধ্যে অন্যতম একটি অংশ।

আজকের এই আর্টিকেল থেকে আমরা সুবাহানাল্লাহ ফজিলত সম্পর্কে এবং কোথায় আপনি সুবাহানাল্লাহ ব্যবহার করবেন সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানানোর চেষ্টা করব। এছাড়াও এর অর্থ এবং নানান দিক সম্পর্কে আজকের এই আর্টিকেলের বিস্তারিত উল্লেখ করা হবে।

আশা করবো আজকের এই আর্টিকেলটি আপনাদের ভাল লাগবে। তাই আজকের এই আর্টিকেলে আমাদের সাথে শেষ পর্যন্ত থাকুন।

সুবহানাল্লাহ

সুবহানাল্লাহ
সুবহানাল্লাহ

এই সুবহানাল্লাহ সে একটি আরবী শব্দ। মূলত এটির মধ্যে দুটি অংশে রয়েছে।

একটি হচ্ছে সুবাহান এবং অন্য আরেকটি শব্দ হচ্ছে আল্লাহ।

সুবাহান অর্থ হচ্ছে মহান বা পবিত্র। সুতরাং এর অর্থ দাঁড়াচ্ছে আল্লাহ মহান অথবা আল্লাহ পবিত্র।

এখন আমরা জানবো কোথায় কিংবা কখন সুবাহানাল্লাহ বলতে হয়?

আমাদের মধ্যে প্রায় বেশিরভাগ মানুষই সুবহানাল্লাহ বলার সঠিক নিয়ম জানিনা।

বিভিন্নভাবে আমরা ওলট-পালট করে ফেলি। যেমন আমরা আল্লাহু আকবার বলার জায়গায় সুবাহানাল্লাহ বলে ফেলি।

আবার দেখা যাচ্ছে মাশাল্লা বলার জায়গায় সুবহানাল্লাহ বলে ফেলি ইত্যাদি।

এজন্য আমাদেরকে সুবহানাল্লাহ বলার জন্য সঠিক নিয়ম জানতে হবে।

কখন আপনারা সুবহানাল্লাহ বলবেন-

  • উপর থেকে নিচে নামার সময় সুবাহান আল্লাহ বলবেন।
  • যদি আল্লাহর মহিমা কিংবা করুণা শুনেন তাহলে সেখানে সুবহানাল্লাহ বলবেন।
  • মহান আল্লাহর সৃষ্ট সুন্দর ফল এবং ফুল দেখে সুবহানাল্লাহ বলবেন।
  • দেখা বৈধ এমন সুন্দর জিনিস দেখলে সুবাহানাল্লাহ বলবেন।
  • ভালো কথা শুনলে সুবহানাল্লাহ বলবেন।
  • আশ্চর্যজনক কোন কথা শুনলে সুবহানাল্লাহ বলবেন।

এই সকল ক্ষেত্রে আপনারা সুবাহানাল্লাহ বলতে পারেন।

মূলত সুবহানাল্লাহ অর্থ আল্লাহ মহান এবং আল্লাহ পবিত্র।

সুবহানাল্লাহ এর গুরুত্ব ও তাৎপর্য 

“সুবহানাল্লাহ” শব্দটি কুরআনে উল্লেখ আছে।

বাক্যটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও তাৎপর্য রাখে। সুবহানাল্লাহ অর্থ আল্লাহ পূতঃপবিত্র।

  • ইবনে আব্বাস রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, ‌এ বাক্যটির অর্থ হলো- আল্লাহ পবিত্র অর্থাৎ আল্লাহ তাআলা সকল মন্দ ও  সকল প্রকার দোষ-ত্রুটি থেকে সম্পূর্ণ পবিত্র।
  • একবার ওমর রা. আলি রা. কাছে প্রশ্ন করেছিলেন, আমরা ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু’র অর্থ জানি। কিন্তু সুবহানাল্লাহ’র তাৎপর্য কি? তখন আলি  রা. উত্তর দিয়েছিলেন, ‘আল্লাহ তাআলা এ বাক্যটি নিজের জন্য পছন্দ করেছেন। তিনি এ বাক্য দ্বারা সন্তুষ্ট হন। এ বাক্যটির জিকির আল্লাহ তাআলার  মহান দরবারে অত্যন্ত পছন্দনীয়। সুবহানাল্লাহ।
  • মাইমুন ইবনে মেহরান র. “সুবহানাল্লাহ”র প্রসঙ্গে বলেছেন, এতে আল্লাহ তাআলার সম্মান প্রদর্শন রয়েছে এবং তাঁর পবিত্রতার বর্ণনা রয়েছে।

আরও পড়ুনঃ

পিতা মাতার জন্য দোয়া কোনগুলো?

ফি আমানিল্লাহ অর্থ কি?

১৬ ডিসেম্বর কি দিবস?

সুবহানাল্লাহ এর ফজিলত

সুবহানাল্লাহ এর ফজিলত
সুবহানাল্লাহ এর ফজিলত

সাদ ইবনে আবি ওয়াক্কাস রা. বলেন, আমরা রাসুলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু  আলাইহি ওয়া সাল্লাম) এর নিকট  ছিলাম। তিনি সা. বললেন,

তোমাদের কোনো ব্যক্তি প্রত্যেক দিন ১০০০ নেকি অর্জন করতে সক্ষম কি?

তন্মধ্যে একজন বললেন, আমাদের মধ্যে কোনো ব্যক্তি কিভাবে ১০০০ হাজার নেকি অর্জন করবে?

তখন রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন, ১০০ বার سُبْحَانَ اللهِ (সুবহানাল্লাহ) বললে, তার জন্য ১০০০ হাজার নেকি লেখা হবে।

অথবা তার ১০০০ পাপ মোচন করা হবে। (মুসলিম, মিশকাত)

সুবহানাল্লাহ এর আরবিসুবহানাল্লাহি ওয়া বিহামদিহি সুবহানাল্লাহিল আজিম।

সুবহানাল্লাহ এর আরবি লেখা | সুবহানাল্লাহ অর্থ কি

এই সুবহানাল্লাহ এর আরবি লেখা হলো-

سُبْحَانَ اللهِ

সুবহানাল্লাহি ওয়া বিহামদিহি সুবহানাল্লাহিল আজিম

“সুবহানাল্লাহি ওয়া বিহামদিহি সুবহানাল্লাহিল আজিম” এর অর্থ “মহান সেই আল্লাহ এবং তারই সকল প্রশংসা। মহান সেই আল্লাহ যিনি সর্বোচ্চ মর্যাদার অধিকারী”। সুবহানাল্লাহি ওয়া বিহামদিহি সুবহানাল্লাহিল আযীম এর ফজিলত।

আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত হাদিসে রাসুল (সা.) বলেন:

দুটি বাক্য এমন রয়েছে, যা বলা সহজ।

আমলের পাল্লায় অনেক ভারী।

আর আল্লাহর কাছেও অধিক পছন্দনীয়।

সেটি হলো, “সুবহানাল্লাহি ওয়া বিহামদিহি সুবহানাল্লাহিল আজিম”।

সহিহ বুখারি: ৬৪০৬

জাবের রা. থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন,

‘যে ব্যক্তি ‘সুবহানাল্লাহিল আজিম ওয়া বিহামদিহি’ পাঠ করে, তার জন্য জান্নাতে একটি খেজুরগাছ রোপণ করা হয়।’ তিরমিজি : ৩৪৬৪.

১০০ বার সুবহানাল্লাহি ওয়া বিহামদিহির ফজিলত।

যে ব্যক্তি দৈনিক ১০০ বার সুবহানাল্লাহ পড়ে আল্লাহ তায়ালা তার জন্য জানাতে একটি খেজুর গাছ তৈরি করেন।

যেমন হাদিসে এসেছে –

সকালে ১০০ বার ও বিকালে ১০০ বার সুবহানাল্লাহিল আজিম ওয়া বিহামদিহি পড়লে সৃষ্টিকুলের সমস্ত মানুষ থেকে বেশী মর্যাদা দেওয়া হবে। সহিহ আবু দাউদ, হাদিস নং- ৫০৯১।

আরও পড়ুনঃ

হ্যাসট্যাগ মানে কি?

বিশ্বের সবচেয়ে নিকৃষ্ট ব্যক্তি কে?

COS এর পূর্ণরূপ কি?

সুবহানাল্লাহ অর্থ কি FAQS

সুবহানাল্লাহ অর্থ কি?

এখানে সুবাহান অর্থ হচ্ছে মহান বা পবিত্র। সুতরাং এর অর্থ দাঁড়াচ্ছে আল্লাহ মহান অথবা আল্লাহ পবিত্র।

আমাদের সুবহানাল্লাহ দিনে কয়বার পড়া উচিত?

সকালে ১০০ বার ও বিকালে ১০০ বার সুবহানাল্লাহিল আজিম ওয়া বিহামদিহি পড়লে সৃষ্টিকুলের সমস্ত মানুষ থেকে বেশী মর্যাদা দেওয়া হবে। সহিহ আবু দাউদ, হাদিস নং- ৫০৯১।

উপসংহার

প্রিয়পাঠকগণ আজকের এই আর্টিকেলে আপনাদের সুবহানাল্লাহ অর্থ কি এবং আপনারা কখন কোথায় এই শব্দটি উচ্চারণ করবেন সে বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হয়েছে।

আশা করছি আজকের এই আর্টিকেলটি আপনাদের খুবই ভালো লেগেছে এবং আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনারা সুবাহানাল্লাহ সম্পর্কিত সকল তথ্য বিস্তারিত জানতে পেরেছেন।

আপনাদের যদি আজকের এই আর্টিকেলটি ভালো লেগে থাকে অথবা এই সম্পর্কে যদি কোন মতামত থাকে তাহলে অবশ্যই আমাদেরকে কমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন।

নিত্য নতুন খবর এবং নানান ধরনের আর্টিকেলগুলো পড়তে আমাদের ওয়েবসাইটের সাথেই থাকুন।

এছাড়াও আপনারা আমাদের ওয়েবসাইট থেকে অনলাইন থেকে ইনকাম সংক্রান্ত আর্টিকেলগুলো পেয়ে যাবেন।

আপনারা চাইলে সে সকল আর্টিকেলগুলো পড়ে অনলাইনে নিজেদের ক্যারিয়ার শুরু করতে পারেন।

আমাদের ওয়েব সাইটের সকল তথ্য পেতে চোখ রাখুন আমাদের ফেসবুক পেইজে

ধন্যবাদ।

Leave a Comment

2 × five =