এশার নামাজের নিয়ম কি? | কিভাবে এশার নামাজ শুদ্ধ করে পড়বেন

সুপ্রিয় পাঠকবৃন্দ এশার নামাজের নিয়ম সম্পর্কে জানার জন্য আপনারা অনেকে গুগলের মাধ্যমে আমাদের কাছে নিজেদের আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমরা আলোচনা করতে চলেছি এশার নামাজের নিয়ম এবং এশার নামাজের নিয়ত সম্পর্কে।

কিভাবে আপনারা এশার নামাজ আদায় করবেন এবং এশার নামাজের গুরুত্ব সম্পর্কে আজকের এই আর্টিকেলের বিস্তারিত আলোচনা করা হবে। যেহেতু প্রতিটি মুসলমানের পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ জামাতের সাথে আদায় করা আবশ্যকীয়।

তাই প্রতিটি নামাজ সম্পর্কে আমাদের প্রিয় মুসলমান ভাই এবং বোন এদের জেনে রাখা অত্যন্ত জরুরী। তাই অবশ্যই আজকের এই আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়বেন। এবং এশার নামাজ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য আপনারা আজকের এই আর্টিকেল থেকে গ্রহণ করবেন।

এশার নামাজের নিয়ম ও দোয়া অর্থ সহ

এশার নামাজের নিয়ম ও দোয়া
এশার নামাজের নিয়ম ও দোয়া

প্রতিটি মুসলমানের জন্য আবশ্যকীয় পালন করা দৈনিক পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের মধ্যে এশার নামাজ অন্যতম।

নামাজ বা সালাত ইসলামের পাঁচটি স্তম্ভের মধ্যে একটি।

এশার নামাজ হচ্ছে দৈনিক সালাতের মাঝে পঞ্চম। এশার নামাজের ফরজ নামাজ চার রাকাত।

এবং ইমামের পিছনে দাঁড়িয়ে ফরজ চার রাকাত নামাজ আদায় করতে হয়। বলতো আমাদের সময় অতিবাহিত হওয়ার পর এশার নামাজের সময় শুরু হয়ে যায়।

এবং রাতে এক ভাগ সময় হওয়ার পূর্বে পর্যন্ত এশার নামাজ আদায় করার সর্বোত্তম, দুই-তৃতীয়াংশ জায়েজ এবং সুবহে সাদিক এর আগে (এটাকে মাকরুহ অনুত্তম সময় বলা হয়) পর্যন্ত পড়া যায়। 

এশার নামাজের ফরজ নামাজ হচ্ছে চার রাকাত।

প্রতিটি মুসলমানের জন্য যা পড়া আবশ্যক।

মূলত ইমামের পিছনে দাঁড়িয়ে ইমামের নেতৃত্বে জামাতের সাথে চার রাকাত নামাজ আদায় করতে হয়।

কিন্তু যদি আপনার কোন ধরনের ব্যক্তিগত সমস্যা থাকে তাহলে সে ক্ষেত্রে আপনারা নিজে নিজে একা পড়তে পারেন।

তবে মনে রাখবেন জামাতের সাথে আদায় করলে আপনারা ২৭ গুণ বেশি সওয়াব পাবেন।

ফরয নামাযের পূর্বে চার রাকাত সুন্নত নামাজ আদায় করতে হবে।

এটি হচ্ছে ঐচ্ছিক নামাজ (সুন্নাতে যায়েদা বা গায়েরে সুন্নাত এ মুয়াক্কাদাহ ও বলা হয়)।

এটি পড়াও আপনার জন্য প্রয়োজনীয় এবং এটি সময় থাকতে পড়া উচিত, তবে আপনি যদি নামাজ পড়তে না পারেন তাহলে সে ক্ষেত্রে আপনার গুনা হবে না।

নায়াগ্রা জলপ্রপাত কোথায় অবস্থিত?

নিঝুম দ্বীপ কোথায় অবস্থিত?

এশার নামাজের নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত 

ফরজ চার রাকাত নামাজ আদায়ের পর দুই রাকাত সুন্নত নামাজ পড়তে হয়।

যা একটি গুরুত্বপূর্ণ সুন্নত (সুন্নতে মুয়াক্কাদাহ) এবং নবীজী তার জীবদ্দশায় এটি কখনো ছাড়েননি।

তারপর কেউ কেউ দুই রাকাত নফল নামাজ পড়ে থাকেন যার কোন দলিল পাওয়া যায়নি। আপনারা চাইলে যেকোন সময় নফল নামাজ গুলো পড়তে পারেন।

দিনে কিংবা রাতে যে কোন সময় নফল নামাজ আদায় করা সম্ভব।

আপনার যে শুধুমাত্র দুই রাকাত পড়তে হবে এমনটি কিন্তু নয় আপনি আর চাইলে আরো বেশি পড়তে পারেন।

এর পরবর্তী সময়ে যে নামাজ আদায় করতে হয় সেটি হচ্ছে বেতেরের নামাজ তবে এটার সাথে এশার নামাজের কোন সম্পৃক্ততা নেই।

আপনি চাইলে এটি ঘুম থেকে উঠে শেষরাতে তাজত নামাজ পড়ার পর পড়তে পারেন।

কারণ শেষরাতে তাজত নামাজের পর এটি পড়া উত্তম। কিন্তু বেশিরভাগ মানুষই এই কাজটি না করে এশার নামাজের পরপরই করে নেয়।

তাই আপনার যেভাবে সুবিধা হয় আপনি সেভাবে আদায় করতে পারবেন হাদিস মতে, বিতরের নামাজ ১ রাকাত, ৩ রাকাত, ৫ রাকাত, ৭ রাকাত পড়া যায়।

মুসাফির অবস্থায় থাকলে ইসলামের বিধান অনুযায়ী ইশা’র চার রাকাত ফরজকে সংক্ষিপ্ত করে দুই রাকাত আদায় করতে হয়।

তারপর শুধুমাত্র বিতর নামাযটি আদায় করতে হয়।

আরও পড়ুনঃ

সোমপুর বিহার কোথায় অবস্থিত?

বাংলাদেশের কয়েকটি প্রাচীন নগর সভ্যতার নাম

আর্জেন্টিনার যত লজ্জার রেকর্ড

এশার নামাজের নিয়ম FAQS

মূলত সকল নামাজের আলাদা আলাদা নিয়ম রয়েছে। এশার নামাজ মোট ১০ রাকাত। তবে অনেকের মতে ১৫ রাকাত আবার অনেকে বলেন ১৭ রাকাত। তাই বলা যায় এশার নামাজ আদায়ের ক্ষেত্রে অনেক নিয়ম রয়েছে। এশার ফরজ নামাজ ৪ রাকাত, যা ইমাম সাহেবের সাথে আদায় করতে হয়। আর বাকি নামাজগুলো আপনি একা একা পড়তে পারেন।

হাদিসের ব্যাখ্যা মতে এশার নামাজের নিয়ম হচ্ছে জামাতের সাথে ৪ রাকাত ফরজ নামাজ আদায় করা। তারপর ২ রাকাত সুন্নত এবং পরবর্তীতে নিয়ম অনুসারে বাকী নামাজ গুলি আদায় করা উত্তম।

হাদিস ও বিশিষ্ট ওলামাদের মতে এশার নামাজ ৬ রাকাত পরতে হয়।

উপসংহার 

সুপ্রিয় পাঠকগণ আজকে আমরা আপনাদের জন্য উল্লেখ করেছি এশার নামাজের নিয়ম কি।

এতক্ষণে হয়তো আপনারা আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়ে বুঝে গিয়েছেন এশার নামাজ কিভাবে পড়তে হয় এবং এশার নামাজ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য।

আশা করছি আজকের এই আর্টিকেলটি আপনাদের ভালো লাগবে এবং আপনার আজকেরে আর্টিকেল টি অবশ্যই পড়ে উপকৃত হবেন।

আপনাদের যদি এই বিষয়ে আরো কোনো প্রশ্নও কিংবা মতামত থাকে তাহলে তা আমাদেরকে সরাসরি কমেন্টের মাধ্যমে জানান।

আমরা আপনাদের সকল কমেন্টের উত্তর প্রদান করার জন্য প্রস্তুত রয়েছি।

আপনারা অনেকেই প্রশ্ন করেছেন অনলাইন থেকে কি টাকা আয় করা সম্ভব অথবা কিভাবে অনলাইন থেকে টাকা আয় করব?

আপনাদের যদি এই বিষয়ে জানার আগ্রহ থাকে তাহলে আমাদের ওয়েবসাইটে এই সংক্রান্ত আর্টিকেল রয়েছে সেগুলো আপনারা করতে পারেন।

মূলত বেকার তরুণ সমাজের উদ্দেশ্যে আমাদের এই আর্টিকেলগুলো গাইডলাইন সহকারে প্রস্তুত করা হয়েছে।

আমাদের ওয়েব সাইটের সকল আপডেট গুলো পেতে ভিজিট করুন আমাদের ফেসবুক পেইজে

ধন্যবাদ। 

Leave a Comment

one × 5 =