তাশাহুদ বাংলা উচ্চারণ অর্থ সহ সম্পূর্ণ দোয়া

প্রিয় পাঠকগণ তাশাহুদ বাংলা উচ্চারণ জানার জন্য আপনারা অনেকেই আমাদের কাছে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। আজকের এই আর্টিকেলে আমরা তাশাহুদ বাংলা এবং আরবি তে আপনাদের সামনে উল্লেখ করার চেষ্টা করব। সকলেই জানেন আমার প্রতিটি মুসলমানের জন্য একটি ফরজ ইবাদত।

এই ফরজ ইবাদতের ভেতরে এবং বাইরে কিছু নিয়ম রয়েছে যেগুলো যথাযথভাবে আদায় করা ফরজ। নামাজে দুই রাকাত পরপর বৈঠকে বসার হয়ে থাকে। 

এবং এই দুই রাকাত পর পর যে বসা হয় তাকে বলা হয় তাশাহুদ। 

এই প্রতিটি বৈঠকে আপনাকে তাশাহুদ পাঠ করতে হবে। 

সূরা তাশাহুদ পাঠ করা ওয়াজিব বা আবশ্যক। কিন্তু আমাদের মধ্যে অনেকেরই তাশাহুদ পাঠ তেমন সঠিক বা সহীহ নয়। 

তাশাহুদ বাংলা অর্থ সহ

তাশাহুদ বাংলা অর্থ সহ
তাশাহুদ বাংলা অর্থ সহ

বাংলায় উচ্চারণ ও অর্থসহ তাশাহহুদ তুলে ধরা হলো-

তাশাহুদ

التَّحِيَّاتُ لِلَّهِ وَالصَّلَوَاتُ وَالطَّيِّبَاتُ ، السَّلَامُ عَلَيْكَ أَيُّهَا النَّبِيُّ وَرَحْمَةُ اللَّهِ وَبَرَكَاتُهُ ، السَّلَامُ عَلَيْنَا وَعَلَى عِبَادِ اللَّهِ الصَّالِحِينَ ، أَشْهَدُ أَنْ لَا إِلَهَ إِلَّا اللَّهُ وَأَشْهَدُ أَنَّ مُحَمَّدًا عَبْدُهُ وَرَسُولُهُ

উচ্চারণ : আত্তাহিয়্যাতু লিল্লাহি ওয়াস-সালাওয়াতু ওয়াত-ত্বায়্যিবাতু; আস-সালামু আলাইকা আইয়্যুহান নাবিয়্যু ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহ; আসসালামু আলাইনা ওয়া আলা ইবাদিল্লাহিছ ছালিহীন; আশহাদু আল লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়া আশহাদু আন্না মুহাম্মাদান আবদুহু ওয়া রাসুলুহু।

অর্থ : ‘সব মৌখিক ইবাদত আল্লাহর জন্য।

হে নবি! আপনার প্রতি শান্তি বর্ষিত হোক এবং আল্লাহর অনুগ্রহ ও বরকত বর্ষিত হোক।

শান্তি আমাদের ওপর এবং আল্লাহর নেক বান্দাদের ওপর বর্ষিত হোক।

আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি যে, আল্লাহ ব্যতীত আর কোনো মাবুদ বা উপাস্য নাই এবং আমি আরও সাক্ষ্য দিচ্ছি যে, নিশ্চয়ই মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আল্লাহর বান্দা ও রাসুল।

আরও পড়ুনঃ

বমি হলে কি রোযা ভেঙ্গে যায়?

লিভারের সমস্যা হলে কি খেতে হয়?

সমস্যা থেকে মুক্তির দোয়া?

তাশাহুদ পাঠ করার বিশেষ ফজিলত

হযরত ইবনে মাসউদ রাদিয়াল্লাহু থেকে বর্ণিত, আমরা যখন রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের পেছনে নামাজ পড়তাম; তখন বলতাম, ‘আসসালামু আলা জিবরিলা ওয়া মিকালা এবং আসসালামু আলা ফুলান ওয়া ফুলান’।

তখন রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আমাদের দিকে তাকালেন এবং বললেন-

আল্লাহ নিজেই তো সালাম, তাই যখন তোমরা কেউ সালাত/নামাজ আদায় করবে, তখন সে যেন বলে-

التَّحِيَّاتُ لِلَّهِ وَالصَّلَوَاتُ وَالطَّيِّبَاتُ ، السَّلَامُ عَلَيْكَ أَيُّهَا النَّبِيُّ وَرَحْمَةُ اللَّهِ وَبَرَكَاتُهُ ، السَّلَامُ عَلَيْنَا وَعَلَى عِبَادِ اللَّهِ الصَّالِحِينَ

কেননা, যখন তোমরা এটি বলবে তখন আসমান ও জমিনে থাকা আল্লাহর সব নেক বান্দার কাছে তা (শান্তি) পৌঁছে যাবে।

আর এর সঙ্গে তোমরা (তাওহিদের কালেমার সাক্ষ্য) أَشْهَدُ أَنْ لَا إِلَهَ إِلَّا اللَّهُ وَأَشْهَدُ أَنَّ مُحَمَّدًا عَبْدُهُ وَرَسُولُهُ এটিও পড়বে।

অর্থাৎ, প্রতিটি মুসলমানের জন্য বৈঠকে বসে পড়ার জন্য তাশাহুদ জানা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অথবা যদি কেউ না পারে সে ক্ষেত্রে তার অবশ্যই শিখে নেয়া প্রয়োজন।

যদি বাংলা উচ্চারণ ঠিকঠাক ভাবে না করা যায় তাহলে আরবি জানা থাকলে সেক্ষেত্রে শিখে নেয়া উত্তম।

আমাদের নামাজকে যেহেতু ফরজ করা হয়েছে সে ক্ষেত্রে প্রতিটি মুমিনের জন্য তাশাহুদ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং শেখাটা আবশ্যক।

আল্লাহ তাআলা আমাদের সকলকে সঠিক নিয়মে তাশাহুদ পাঠ করার তৌফিক দান করুন। আমিন। 

আরও পড়ুনঃ

সার্টিফিকেটে বাবার নাম ভুল থাকলে কি সমস্যা হয়?

হার্টের সমস্যার লক্ষণ ও প্রতিকার

যুক্তিবিদ্যার জনক কে? 

তাশাহুদ বাংলা উচ্চারণ FAQS

তাশাহুদ বাংলা উচ্চারণ

উচ্চারণ : আত্তাহিয়্যাতু লিল্লাহি ওয়াস-সালাওয়াতু ওয়াত-ত্বায়্যিবাতু; আস-সালামু আলাইকা আইয়্যুহান নাবিয়্যু ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহ; আসসালামু আলাইনা ওয়া আলা ইবাদিল্লাহিছ ছালিহীন; আশহাদু আল লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়া আশহাদু আন্না মুহাম্মাদান আবদুহু ওয়া রাসুলুহু।

আরবিতে তাশাহুদ পাঠ।

التَّحِيَّاتُ لِلَّهِ وَالصَّلَوَاتُ وَالطَّيِّبَاتُ ، السَّلَامُ عَلَيْكَ أَيُّهَا النَّبِيُّ وَرَحْمَةُ اللَّهِ وَبَرَكَاتُهُ ، السَّلَامُ عَلَيْنَا وَعَلَى عِبَادِ اللَّهِ الصَّالِحِينَ ، أَشْهَدُ أَنْ لَا إِلَهَ إِلَّا اللَّهُ وَأَشْهَدُ أَنَّ مُحَمَّدًا عَبْدُهُ وَرَسُولُهُ

উপসংহার 

প্রিয় পাঠকগণ আজকের এই আর্টিকেলের তাশাহুদ বাংলা উচ্চারণ সহ আপনাদের সাথে শেয়ার করা হয়েছে। 

আশা করি আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনারা সঠিক নিয়মে তাশাহুদ পাঠ করেছেন।

এবং আপনারা আজকের এই আর্টিকেল থেকে যারা এখনো তাশাহুদ পারেন না তারা শিখে নিতে পারেন। 

আজকের এই আর্টিকেল সংক্রান্ত কোনো প্রশ্ন অথবা মতামত যদি আপনাদের থাকে তাহলে অবশ্যই আমাদের কমেন্টের মাধ্যমে জানান।

বর্তমান পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে যে কোন চাকরি পাওয়া খুবই কষ্টসাধ্য একটি ব্যাপার। 

যার কারনে বেকার সমস্যা দূর করা কঠিন হয়ে পড়ছে।

বাংলাদেশের আনাচে কানাচে ছড়িয়ে রয়েছে শিক্ষিত বেকার যুবক। 

আর যার কারণে বর্তমানে অনলাইন ভিত্তিক কাজগুলোর  মধ্যে যুবকদের আগ্রহ বৃদ্ধি পাচ্ছে।

অনলাইন থেকে ঘরে বসে টাকা আয় এছাড়াও কিভাবে অনলাইন থেকে কাজ শুরু করা যায় এই বিষয়ে জানার আগ্রহ তাদের মধ্যে অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। 

আমাদের ওয়েবসাইটে অনলাইন থেকে আপনারা কিভাবে খুব সহজে আয় করতে পারেন সে সংক্রান্ত আর্টিকেল সহ সম্পূর্ণ গাইডলাইন রয়েছে।

তাই অবশ্যই আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করেন এবং সে সংক্রান্ত আর্টিকেলগুলো  পড়ুন।  আমাদের সঙ্গেই থাকুন এবং ফলো করুন আমাদের ফেসবুক পেইজে।  

Leave a Comment

one × five =