জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন অবস্থা । Check Birth Certificate Application

আজকে আমরা জানতে চেষ্টা করবো জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন অবস্থা ২০২২ সম্পর্কে। আশা করছি এই পোস্ট পড়ার পর সম্পূর্ণ প্রসেস সম্পর্কে বুঝতে পারবেন কিভাবে আপনি অনলাইন থেকে জন্ম নিবন্ধন বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে। 

বর্তমান সময়ে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন সম্পর্কে অনেকেই সঠিক তথ্য না জানার ফলে হয়রানির শিকার হচ্ছেন। অথচ জন্ম নিবন্ধন চেক ও সংশোধন পুরোটাই আপনি আপনার হাতের স্মার্টফোন বা কম্পিউটার থেকে করতে পারেন। 

জন্ম নিবন্ধন সনদ তৈরি করার জন্য ইতিমধ্যে অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করা থাকলে এবং এখনো জন্ম নিবন্ধন হাতে পেয়ে না থাকলে আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন এর বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে আপনি জানতে পারবেন মুহূর্তের মধ্যে। 

আপনি চাইলেই আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের সময়ে আপনাকে দেওয়া কিছু তথ্য দিয়ে জেনে নিতে পারেন আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদটি বর্তমানে কোন পর্যায়ে আছে এবং কবে নাগাদ পেতে পারেন। 

বর্তমান সময়ে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন থেকে শুরু করে নতুন ভাবে আবেদন ডিজিটাল করা, নাম পরিবর্তন থেকে সবকিছুর সমাধানই এখন অনলাইনের মাধ্যমে নিজের সমাধান নিজেই করা যাচ্ছে।

কিভাবে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন অবস্থা চেক করবেন

মূলত সাধারন জনগনের ভোগান্তির কথা চিন্তা করেই করা বাংলাদেশ সরকার অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন অবস্থা চেক পদ্দতি নিয়ে এসেছে।

কোন ওয়েবসাইটে গিয়ে কিভাবে কোন পদ্ধতি অনুসরণ করে আপনারা জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদনের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে জানতে পারবেন চলুন জেনে নেওয়া যাক সে বিষয়ে। 

এর আগের পোস্টে আপনাদের দেখিয়েছিলাম জন্ম নিবন্ধনের সংশোধনের জন্য আবেদন করার উপায়

আজকে ঠিক একই ওয়েবসাইট থেকে প্রায় একই পদ্ধতি অনুসরণ করে দেখে নিন আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন অবস্থা সম্পর্কে। 

যেভাবে দেখতে পাবেন জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন অবস্থা 

সর্বপ্রথম আপনি আপনার স্মার্ট ডিভাইস থেকে BDRIS এর ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন। এরপর জন্ম নিবন্ধন ক্যাটাগরি থেকে জন্ম নিবন্ধনের ব্রতমান অবস্থা সিলেক্ট করুন।

আপনি নিচের লিঙ্ক থেকে সরাসরিও প্রবেশ করতে পারেন।

সরাসরি প্রবেশ করতে এখানে ক্লিক করুন Check Birth Certificate Application Status 

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন অবস্থা
জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন অবস্থা

লিঙ্কে প্রবেশ করার পর আপনি উপরের ছবির মতো একটি পেজ দেখতে পাবেন।

এখানে আবেদন পত্রের ধরনের জায়গায় জন্ম নিবন্ধন আবেদনের বর্তমান অবস্থা সিলেক্ট করুন।

এবার জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের জন্য আবেদনের সময়ে সর্বশেষ আপনাকে একটি এপ্লিএকেশন আইডি নাম্বার দেওয়া হয়েছিলো। 

আপনাকে দেওয়া এপ্লিকেশন আইডিটি এপ্লিকেশন আইডি এর ঘরে বসান।

এবার জন্ম তারিখ লিখেন।

এক্ষেত্রে শো কৃত ফরম্যাটে জন্ম তারিখ লিখবেন।

প্রথমে দিন তারপর মাস তারপর বছর। উদাহরণঃ ১৫/১২/২০০২ 

এবার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন এর আদ্দপান্থ দেখতে পাবেন 

বেশ, এবার পেজটির নিচে ‘দেখুন’ নামের বাটনে ক্লিক করুন। এবার আপনার সামনে আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন অবস্থা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য দেখাচ্ছে। 

এক্ষেত্রে বলে রাখা ভালো, যদি আপনার এপ্লিকেশন নাম্বারটি মনে না থাকে তাহলে  জন্ম নিবন্ধন সনদ অনলাইন কপি প্রিন্ট রয়েছে সেখান থেকে এপ্লিকেশন নাম্বারটি সংগ্রহ করুন।

অথবা আবেদনকারীর তথ্যে যে মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়েছিলো সেই মোবাইল নম্বরে একটি এসএমএস দেওয়া হয়েছে।

সেই এস এম এস থেকেও এপ্লিকেশন নাম্বারটি সংগ্রহ করতে পারেন। 

এখন আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন অবস্থা সম্পর্কে জানতে পারছেন। এখানে যদি ইংরেজিতে “অ্যাপ্লাইড” লেখা থাকে তাহলে আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ কত্রিপক্ষ গ্রহণ করেছে এবং পরবর্তী কাজ চলমান রয়েছে বুঝবেন 

আর যদি ইংরেজি বা বাংলায় লেখা থাকে যে, আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ প্রিন্ট করার জন্য তৈরি হয়েছে তাহলে বুঝতে হবে খুব তারাতারি আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ প্রিন্ট করে আপনাকে দেওয়া হবে।

কোথায় পাবেন আপনার সংশোধন কৃত জন্ম নিবন্ধন সনদ

এটি আপনি স্থানীয় সরকার বিভাগ অর্থাৎ ইউনিয়ন পরিষদ বা সিটি কর্পোরেশন থেকে পেয়ে যাবেন। 

আরও পড়ুনঃ জাতীয় পরিচয় পত্র যাচাই পদ্ধতি ২০২২

আসলে আমরা যখন জন্ম নিবন্ধন সংশোধন বা জন্ম নিবন্ধন বিষয়ে যে কোন আবেদন করি তখন এটি স্থানীয় সরকার বিভাগ জমা দিয়ে থাকে।

তখন তারা আমাদের আবেদনের প্রিন্ট নিয়ে তাদের যাবতীয় কার্যক্রম সম্পাদন করে।

পরবর্তীতে সকল তথ্য জন্ম নিবন্ধনের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে ধারাবাহিক কার্যক্রম চলতে থাকে। 

এরপরে যখন আমাদের তথ্য সংশোধনের প্রয়জন হয় তখন এই তথ্য অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে আপলোড করে দেওয়া হয়।

এমনকি জন্ম নিবন্ধন সংশোধন এর অবস্থা প্রিন্ট করার সুযোগ করে দেওয়া হয়। 

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন অবস্থা সম্পর্কে অধিক কিছু কমন প্রশ্ন এবং উত্তর 

১) জন্ম মৃত্যু অথবা তথ্য সংশোধনের আবেদনের সময় নিবন্ধনাধীন ব্যক্তি বা তার পরিবারের বাহিরের কারোর মোবাইল নাম্বার ব্যবহার করা যাবে কি না? 

উত্তরঃ হ্যাঁ যাবে।

তবে, নিজের ব্যক্তিগত মোবাইল  নাম্বার ব্যবহার করার পরামর্শ রইলো।

যদি কোনো কারণে একান্ত সম্ভব না হয়।

তখন বাবা অথবা মা অথবা ভাই বোনের মোবাইল নাম্বার ব্যবহার করতে হবে।

এর কোনটাই যদি না থাকে তাহলে বাবা মা এবং ব্যক্তির অনুমতি ক্রমে খুব কাছের আত্মীয় এর নাম্বার ব্যবহার করা যাবে।

এক্ষেত্রে বলে রাখা ভালো, একটি মোবাইল নাম্বার সর্বাধিক পাঁচটি জন্ম নিবন্ধন সনদে ব্যবহার করা যায়।  

মোবাইল নাম্বার ব্যবহারে শুধুমাত্র খেয়াল রাখতে হবে যে  কোন অবস্থায়ই নিবন্ধন কার্যালয়ের কোন দাপ্তরিক বা কোন কর্মচারীর ব্যক্তিগত ফোন নম্বর ব্যবহার করা যাবে না।

অর্থাৎ, ইউনিয়ন পরিষদে কর্মরত কারোর নাম্বার ব্যবহার করা যাবে না।

আবার সিটি কর্পোরেশনের বেলায় ঠিক একই নিয়ম।

সিটি কর্পোরেশনে কর্মরত কারোর মোবাইল নাম্বার ব্যবহার করা যাবে না। 

২) বিদেশে জন্ম নিবন্ধন করার পর দেশে এসে জন্ম নিবন্ধনের তথ্য সংশোধন অথবা পুনমুদ্রনের আবেদন করবে কিভাবে? 

উত্তরঃ যে সকল নিবন্ধন অফিসে জন্ম মৃত্যু নিবন্ধন নিয়ে কাজ  করা হয় সেখান থেকেই করতে হবে।

তবে, স্থানীয় নিবন্ধন অফিসের সহায়তা নিয়ে বা ব্যক্তি নিজে অনলাইনে সরাসরি মূল নিবন্ধন অফিস বরাবর উপযুক্ত দলিল দিয়ে সংশোধন বা পুনঃমুদ্রণের আবেদন করতে পারেন।

সে ক্ষেত্রে আবেদনের অনুলিপি রেজিস্ট্রার জেনারেলের কার্যালয়ে ইমেইলের মাধ্যমে ([email protected]) প্রেরণ করা হবে।

এছাড়া প্রয়োজনে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করে তা নিস্পত্তির ব্যবস্থা করা হবে।

এছাড়াও প্রবাসী ব্যক্তির ভবিষ্যতে জন্ম নিবন্ধন সনদের কোন করণিক ভুল সংশোধন অথবা ইংরেজি বা বাংলায় প্রতিলিপির প্রয়োজন হলে তা

যে কোনো জন্ম নিবন্ধন অফিস থেকে যাতে প্রদান করা যায়  সে বিষয়ে বাবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরও পড়ুনঃ  

Birth Registration Certificate Check Online BD | জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম সনদ

পুরাতন জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করার নিয়ম । Registering old births online 

টেলিটক নাম্বার দেখার উপায় 2022 | ভুলে যাওয়া সিমের নাম্বার দেখার কোড

জন্ম নিবন্ধন FAQS

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন অবস্থা কিভাবে চেক করবো?

নিজেই নিজের জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন অবস্থা সম্পর্কে জানতে আপনার স্মার্ট ডিভাইস থেকে BDRIS এর ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন এবং আপনার আইডি নম্বর থেকে লগিন করে আপনার জন্ম নিবন্ধন চেক করুন।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে কত সময় লাগে?

বাংলাদেশ স্থানীয় সরকারের কাছে কোন ধরনের কাজের চাপ না থাকলে 15 থেকে 20 দিন এর ভেতরেই আপনারা সংশোধিত জন্ম নিবন্ধন পেয়ে যাবেন। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে এর থেকেও বেশি সময় লাগতে পারে। তাই জন্ম নিবন্ধন সনদে কোন প্রকার ভুল থাকলে আপনার হাতে পর্যাপ্ত সময় নিয়ে এই কাজ করুন এবং জন্ম নিবন্ধন বিষয়ে সর্বচ্ছো সচেতনতা অবলম্বন করুন।

উপসংহার

আজকে আপনাদের জানানোর চেষ্টা করেছি জন্ম নিবন্ধন  সংশোধন আবেদন অবস্থা সম্পর্কে জানাতে।

এভাবে আপনারা জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেওনের পর যেকোনো সময়ে আপনার আবেদনের অবস্থা দেখতে পাবেন।

এতে করে আপনার বার বার ইউনিয়ন পরিষদ বা সিটি করপরেশনে যেতে হবে না।

জানতে চাইতে হবে না যে কখন আপনার সংশোধন কৃত জন্ম নিবন্ধন কার্ড আপনি পেতে পারেন। 

নিত্য নতুন সব বিষয়ে কান্তে চোখ রাখুন আমাদের ওয়েবসাইটে এবং কানেক্ট থাকুন আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে। ধন্যবাদ। 

Leave a Comment

ten + eight =