মৃত ব্যক্তির জন্য দোয়া কোনগুলো? | মৃত ব্যক্তির জন্য করণীয় ও বর্জনীয়

প্রিয় পাঠক আপনারা মৃত ব্যক্তির জন্য দোয়া কিভাবে করবেন সে সম্পর্কে জানার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। মহান আল্লাহ তায়ালা আমাদেরকে সকল কাজের পূর্বে বিসমিল্লাহ বলার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন। এছাড়াও প্রতিটি ক্ষেত্রে আলাদা আলাদা আমাদেরকে তিনি পাঠ করতে বলেছেন।

তেমনি আপনি মৃত ব্যক্তিদের জন্য কোন দোয়া গুলো পড়তে পারেন সে বিষয়েও তিনি উল্লেখ করেছেন। আজকের এই আর্টিকেলটি গঠনের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে আপনাদেরকে মানুষ মারা গেলে তার কবরের পাশে অথবা মৃতের বাড়িতে কোন দোয়া গুলো আপনারা পাঠ করবেন সে বিষয়ে জানানোর জন্য।

আপনাদের অনেকেরই হয়তো বা এ সকল দোয়া গুলোর মধ্যে অনেকগুলো দোয়া জানা আছে।তবে বেশির ভাগ মানুষই এ সকল দোয়া গুলো খুব কমই পাঠ করেছেন।

মৃত ব্যক্তির জন্য আরবি দোয়া

মৃত ব্যক্তির জন্য আরবি দোয়া
মৃত ব্যক্তির জন্য আরবি দোয়া

এই পৃথিবীতে কোন ব্যক্তি স্থায়ী নয়।

সকলকে একদিন না একদিন এ পৃথিবী থেকে চলে যেতে হবে।

প্রকৃতিতে প্রত্যেক প্রাণীর জন্য মৃত্যুর চাইতে সুনিশ্চিত বিষয়ে আর কোন টি নেই।

মহান আল্লাহ তা’আলা পবিত্র কুরআনে উল্লেখ করেন, তোমার পূর্বেও কোন মানুষকে আমি অনন্ত জীবন ধারণ করেনি।

সুতরাং তোমার মৃত্যু হলে তারা কি চিরঞ্জীবী হবে? প্রত্যেককে মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করতে হবে।

আমি তোমাদের ভালো এবং খারাপ দ্বারা পরীক্ষা করে থাকি এবং তোমরা আমার কাছে প্রত্যাবর্তিত হবে।(সূরা আম্বিয়া : আয়াত ৩৪-৩৫)।

যেহেতু সকলে মরণশীল এবং আমাদের এই পৃথিবীতে আপন জন রয়েছেন।

আল্লাহতালা সকলের আপনজনকে একদিন নিয়ে যাবেন।

যদিও আমরা সকলেই চলে যাব কিন্তু আমাদের আপন জনের প্রতি আমাদের একটি মায়া কিংবা দায়িত্ববোধ থাকে। 

সেই দায়িত্ববোধ থেকেই আমরা আমাদের আপনজনের জন্য তার মৃত্যুর পর দোয়া করে থাকি।

সে মৃত ব্যক্তিদের জন্য আমাদের করণীয় হচ্ছে, আপনারা মৃত ব্যক্তিদের জন্য কোরআন খতম করতে পারেন। 

আবার কুরআন মাজীদে উল্লেখিত নিম্নলিখিত দোয়াটি পাঠ করতে পারেন।

‘রাব্বানাগফিরলানা ওয়া লি ইখওয়ানিনাল্লাযিনা ছাবাকুনা বিল ইমানি ওয়ালা তাজআল ফি কুলুবিনা গিল্লাল লিল্লাযিনা আমানু রাব্বানা ইন্নাকা রাউফুর রাহিম’ (সূরা হাশর : আয়াত ১০)।

অর্থ : ‘হে আমাদের প্রতিপালক! আমাদের ক্ষমা কর এবং আমাদের সেসব ভাইকেও ক্ষমা কর যারা আমাদের আগে ইমান এনেছে আর মুমিনদের প্রতি আমাদের হৃদয়ে কোনো বিদ্বেষ রেখ না। হে আমাদের পালনকর্তা! নিশ্চয় তুমি অতি স্নেহশীল ও বারবার কৃপাকারী।’

আরও পড়ুনঃ

মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর কোথায় অবস্থিত?

সুশাসনের মূল ভিত্তি কি?

বার্থডে উইশ ফর ফ্রেন্ড

মৃত ব্যক্তির জন্য করণীয়

আমরা এতক্ষন মৃত ব্যক্তিদের জন্য কোন দোয়াটি পড়তে হবে সে বিষয়ে জেনেছি। 

আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) আমাদের জন্য কিছু নির্দেশনা দিয়ে গিয়েছেন। 

মৃত ব্যক্তিদের জন্য আমরা কি করব তা সেই নির্দেশনা উল্লেখ করা হয়েছে। 

হাদিসে এসেছে হজরত আবু হুরায়রা (রা.) বর্ণনা করেন, মানবী (সা.) বর্ণনা করেছেন, ‘মানুষ যখন মারা যায়, তখন তার সব আমলের দরজা বন্ধ হয়ে যায়। তবে তিনটি আমলের দরজা বন্ধ হয় না।

1.) সদকায়ে জারিয়া

2.) যদি কেউ এমন সন্তান রেখে যায়, যে সন্তান বাবা-মায়ের জন্য দোয়া করবে

3.) এমন দ্বীনি শিক্ষা রেখে যায়, যার দ্বারা মানুষ উপকৃত হতে থাকে।’ (মুসলিম)

হজরত আয়েশা (রা.) বলেন, এক সাহাবি মহানবী (সা.)-এর কাছে এসে জিজ্ঞেস করেন, ইয়া রাসূলাল্লাহ! আমার মা হঠাৎ মারা যান।

মৃত্যুকালে তিনি কোনো ওসিয়ত করে যেতে পারেননি। আমার ধারণা তিনি যদি কথা বলার সুযোগ পেতেন, তাহলে দান-সদকা করতেন।

আমি তার পক্ষ থেকে দান-সদকা করলে কি তিনি এর সওয়াব পাবেন? তিনি (সা.) বলেন, হ্যাঁ, অবশ্যই পাবেন’ (বোখারি ও মুসলিম)।

হজরত আয়েশা (রা.) বলেন, মহানবী (সা.) বলেন, যে ব্যক্তি মৃত্যুবরণ করল এ অবস্থায় যে, তার ওপর রোজা ফরজ ছিল তবে তার পক্ষ থেকে তার ওয়ারিশরা রোজা রাখবে’ (বোখারি ও মুসলিম)।

আরও পড়ুনঃ

ফরজ নামাজের পর দোয়া কোনগুলো পড়তে হয়?

ফরজ নামাজের পর দোয়া কোনগুলো পড়তে হয়?

পেট ব্যাথা কমানোর দোয়া কি?

মৃত ব্যক্তির জন্য বর্জনীয়

মৃত ব্যক্তির জন্য বর্জনীয়
মৃত ব্যক্তির জন্য বর্জনীয়

তবে কারও মৃত্যুর পর তার জন্য বিলাপ করে কান্না করা, মাতম করা, পকেট ছেঁড়া, গালে বা পিঠে আঘাত করা ইসলামের নিষেধ।

যে ব্যক্তি এমন করে তাকে রাসূলুল্লাহ (সা.) উম্মতের বাইরের লোক হিসেবে অভিহিত করেছেন।

তিনি বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি গালে থাপ্পড় মারে, পকেট ছিঁড়ে ফেলে ও জাহিলিয়াতের রীতিনীতির প্রতি আহ্বান করে সে আমাদের দলভুক্ত নয়’ (বোখারি)। আমাদের উচিত, মৃত ব্যক্তির ভালো কাজকে স্মরণ ও প্রকাশ করা।

হজরত আবদুল্লাহ ইবনে ওমর (রা.) থেকে বর্ণিত রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘তোমরা তোমাদের মৃতদের ভালো কাজগুলোর আলোচনা করো এবং মন্দ কাজের আলোচনা থেকে বিরত থাকো।’ (আবু দাউদ)

কেউ মারা গেলে কুলখানি এবং চল্লিশা করার কোনো শিক্ষা ইসলামে নেই। মৃতের শোকাহত পরিবারের জন্য খাবার আয়োজন করার নির্দেশ করেছে ইসলাম (আবু দাউদ)।

মৃত বাবা-মার জন্য দোয়া

আমাদের অনেকের বাবা-মা আছে আবার অনেকের নেই। আপনারা আল্লাহর কাছে আপনার বাবামায়ের জন্য অবশ্যই দোয়া করবেন। এবং সকলে এই দোয়াটি পড়বেন- “রাব্বিল হামহুমা কামা রাব্বাইয়ানি সাগিরা”। আপনারা বাবা অথবা মায়ের জন্য তাদের কবরের পাশে গিয়ে এই দোয়াটি পড়বেন।

আরও পড়ুনঃ

কবরের আজাব থেকে মুক্তির দোয়া কোনটি?

বিপদের দোয়া কোনগুলো?

দোয়া কবুল হওয়ার সূরা কোনগুলো?

মৃত ব্যক্তির জন্য দোয়া FAQS

মৃত ব্যক্তির জন্য দোয়া কোনটি?

‘রাব্বানাগফিরলানা ওয়া লি ইখওয়ানিনাল্লাযিনা ছাবাকুনা বিল ইমানি ওয়ালা তাজআল ফি কুলুবিনা গিল্লাল লিল্লাযিনা আমানু রাব্বানা ইন্নাকা রাউফুর রাহিম’ (সূরা হাশর : আয়াত ১০)।

উপসংহার 

প্রিয় পাঠকগণ আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমি আপনাদের সাথে মৃত ব্যক্তির জন্য দোয়া সম্পর্কে আলোচনা করেছি।

আশা করি আজকের এই আর্টিকেলটি আপনাদের ভাল লেগেছে এবং আপনারা মৃত ব্যক্তিদের সম্পর্কে কি কি দোয়া আপনাদের পড়া উচিত সে সম্পর্কে জানতে পেরেছেন।

তবুও যদি এ বিষয়ে আপনাদের কোন প্রশ্ন বা মতামত থাকে তাহলে অবশ্যই আমাদের কমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন।

আমরা আপনাদের সকল ধরনের প্রশ্নের উত্তর প্রদান করার জন্য প্রস্তুত রয়েছি।

আপনারা অনেকেই হয়তো ভাবছেন কিভাবে অনলাইন থেকে টাকা আয় করা যায়।

কিন্তু কোন প্লাটফর্মে কাজ করবেন সে বিষয়ে আপনাদের কোনো অভিজ্ঞতা নেই।

আপনারা চাইলে আমাদের অনলাইন বিষয়ক কিছু আর্টিকেল রয়েছে সেগুলো করতে পারেন।

তাহলে আপনারা খুব সহজেই  কোন প্লাটফর্মে আপনাদের কাজ করা উচিত তা জেনে যাবেন।

এবং সেইসাথে আমাদের ওয়েবসাইট সংক্রান্ত সকল আপডেট গুলো পেতে রাখতে হবে আমাদের  ফেসবুক পেইজে। 

Leave a Comment

five × five =