অনলাইন চালান ভেরিফিকেশন । Online Invoice Verification Detail 

অনলাইন চালান ভেরিফিকেশন সম্পর্কে আপনি জানেন কি? বিভিন্ন সময়ে আমাদের সরকারি কোষাগারে টাকা জমা করার জন্য ট্রেজারি চালান ব্যবহার করি। আবার বর্তমানে অনলাইনের মাধ্যমে ঘরে বসেই সরকারি কোষাগারে চালানের টাকা জমা দেওয়া যায়। এসব ক্ষেত্রে আপনার জমা দেওয়া টাকা নির্ধারিত জায়গায় অর্থাৎ সরকারি কোষাগারে জমা হয়েছে কি না তা অনলাইন ভেরিফিকেশন এর মাধ্যমে জানা যায়। 

আজকে আমরা জানব, কিভাবে অনলাইন চালান ভেরিফিকেশন করা যায়। অর্থাৎ, সরকারি কোষাগারে জমা দেওয়া টাকা জমা হলো কি না তা দেখে নেওয়ার উপায় জানতে চেষ্টা করবো। জানবো, Automated Chalan Verification (স্বয়ংক্রিয় চালান যাচাই) করার নিয়ম এবং চালানের জমা দেওয়া অর্থ উত্তোলন করা যায় কি না।

চালান ভেরিফিকেশন করার জন্য দরকারি কোড সমূহ জানার চেষ্টা করবো আজকের পোষ্টে। 

অনলাইন চালান ভেরিফিকেশন এর জন্য আমাদের কয়েকটি ধাপ অবলম্বন করতে হবে।

অনলাইন চালান ভেরিফিকেশন কীভাবে করবেন – Online Invoice Verification Detail OR ই চালান ভেরিফিকেশন

নিচের ধাপ অনুযায়ী স্টেপ বাই স্টেপ এগোলে তবেই আপনি অনলাইন চালান ভেরিফিকেশন করতে পারবেন। 

প্রথম ধাপঃ Online Challan verification ওয়েবসাইট সার্চ

সর্বপ্রথম আপনার স্মার্ট ফোন অথবা কম্পিউটার থেকে যে কোনো ব্রাউজার ওপেন করতে হবে। এরপর সার্চ অপশনে গিয়ে Online Challan verification লিখে সার্চ করতে হবে। সার্চ করার পড়ে নিচের ছবি মতো একটি পেজ ভিউ দেখতে পাবেন। 

অনলাইন চালান ভেরিফিকেশন কীভাবে করবেন
অনলাইন চালান ভেরিফিকেশন কীভাবে করবেন

Online Challan verification লিখে সার্চ করার পর উপরের ছবিটির মতো একটি পেজ ভিউ দেখতে পাবেন। এরপর লাল চিহ্ন দেওয়া লেখায় ক্লিক করতে হবে।

এখন Online Challan verification এ ক্লিক করার পর আপনাকে নিচের ছবির মতো একটি পেজ ভিউ তে নিয়ে যাবে। 

Online Challan verification BD
Online Challan verification BD

অনলাইন চালান ভেরিফিকেশন এ ক্লিক করার পর উপরের ছবির মতো একটি পেজ ভিউ দেখতে পাবেন। 

এই পেজ ঘিরেই আসল কাজ। সরাসরি এই পেজটি ওপেন করতে এখানে ক্লিক করুন। Online Challan verification 

দ্বিতীয় ধাপঃ ই চালান ভেরিফিকেশন তথ্য পূরণ

প্রথম ধাপ থেকে আমরা নিশ্চয়ই ২ নাম্বার ছবির মতো একটি পেজ ভিউ এর মতো একটি পেজে প্রবেশ করত পারছি। এবার আপনাকে নির্দিষ্ট স্থানে আপনার যাবতীয় তথ্য পূরণ করতে হবে। 

যেখানে আপনাকে আপনার চালানের তারিখ, যে ব্যাংক এ ডিপোজিট করছেন সেই ব্যাংক এর নাম এমনকি ব্যাঙ্কে যেভাবে টাকা পেমেন্ট করছেন সেই অপশন সিলেক্ট করতে হবে। এরপর ব্যাংকের নির্ধারিত কোন ব্রাঞ্চে টাকা জমা দিছেন সেই ব্রাঞ্চ সিলেক্ট করতে হবে।

এরপর  নিচে আপনাকে চালান নাম্বার বসাতে হবে। 

তৃতীয় ধাপঃ চালান ভেরিফিকেশন

মোটামুটি আপনার সব তথ্য  বসান কম্পিলিট। এবার সব তথ্য একবার পুনরায় চেক করে নিন। এবার ভেরিফাই লেখা বাতনে ক্লিক করুন। এবার আপনি আপনার চালানের সর্বশেষ তথ্য আপনার ডিসপ্লেতে দেখতে পাচ্ছেন।

এখানেই আপনি আপনার চালান সম্পর্কিত সব তথ্য দেখতে পাবেন।

হয়ে তো গেল ঘরে বসেই অনলাইন চালান ভেরিফিকেশন এবার দেখব কিভাবে Automated Chalan Verification (স্বয়ংক্রিয় চালান যাচাই) করা যায়। 

ব্লগ লিখে আয় করার উপায় | ঘরে বসে বাংলা লিখে টাকা আয় করুন! বিকাশ পেমেন্ট

Automated Chalan Verification (স্বয়ংক্রিয় চালান যাচাই)

Automated Chalan Verification বা স্বয়ংক্রিয় চালান যাচাই করার জন্য আপনাকে আলাদা করে কিছু করতে হবে না।

শুধুমাত্র একই জায়গায় অর্থাৎ উপরে চালান ভেরিফিকেশনের জন্য যে পেজে প্রবেশ করছেন তার নিচের অংশে দেখতে পাবেন স্বয়ংক্রিয় চালান যাচাই নামে দ্বিতীয় অপশন পাবেন।

সেখানে শুধুমাত্র আপনার চালান নাম্বার দিয়ে ভেরিফাই বাতনে ক্লিক করে আপনার চালান সম্পর্কে সকল তথ্য যাচাই করে দেখতে পারবেন। 

অনলাইনে দুই ধরনের চালান যাচাইয়ের দুই পদ্ধতিতেই চালান ভেরিফিকেশন বা চালান যাচাই শিখলাম। 

এবার চালান এবং চালান ভেরিফিকেশন সম্পর্কিত কিছু কমন বিষয় জেনে নেওয়া যাক। 

চালান সম্পর্কিত সাধারণ বিষয় সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক।

চালানের মাধ্যমে জমাকৃত অর্থ কি উত্তোলন করা যায়?

চালানের মাধ্যমে জমা করা টাকা উত্তোলন করা যায় কি না তা জানতে চাইলে স্বাভাবিক ভাবে উত্তর হবে -না।

চালান সম্পর্কিত ব্যাংক মাধ্যমে জানা গেছে অনলাইন অথবা অফ্লাইন কোনো মাদ্ধমেই চালানের টাকা উত্তোলন করা যায় না। 

অর্থাৎ, অনলাইন অথবা অফলাইন নগদ টাকা কিংবা চেক যেভাবেই যে মাদ্ধমেই অনলাইনে চালানের টাকা জমা দেওয়া হোক তা সাথে সাথে বাংলাদেশ সরকারের কোষাগারে জমা হয়।

এই অর্থ একবার জমা দিলে দ্বিতীয়বার কোনো ভাবেই উত্তোলন কর সম্ভব না। চালানের টাকা জমা দেওয়ার আগে মনে রাখতে হবে এই টাকা একবার জমা হয়ে গেলে আর উত্তোলন করার সুযোগ নাই।

আরও পড়ুনঃ

সয়াবিন তেল কিভাবে তৈরি হয় । How soybean oil is made?

বঙ্গবন্ধুর প্রথম জীবনীকার কে? Who is the first biographer of Bangabandhu?

ট্রেজারি চালানে কি কি অর্থ জমা হয় ? 

ট্রেজারি চালানে সাধারণত অতিরিক্ত গৃহীত টাকা জমা নেওয়া হয়। এর মধ্যে কমা হয় ভ্যাট আয়কর, বিভিন্ন ফি – পাসপোর্ট, পরিক্ষার ফি এবং সরকারি কোনো অর্থ সরাসরি ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে সরকারি কোষাগারে জমা হয়। 

সরকারি কোষাগারে চালান জমা দেওয়ার জন্য নির্দিষ্ট মহল থেকে বিভিন্ন ধরনের কোড দেওয়া আছে।

যে কোনো অর্থ জমা দেওয়ার সময় এই কোড ব্যবহার করতে হয়। এই লিংক থেকে জেনে নিতে পারেন চালান সম্পর্কিত অধিক ব্যবহার করা কোডগুলো।

ই- চালান এবং ব্যাংক চালানের সাথে ত্রজারি চালানের মধ্যে সম্পর্ক

ই চালান এবং ব্যাংক চালানের মধ্যে পার্থক্য কি? সব থেকে সহজ উত্তর হচ্ছে, ই চালান হচ্ছে অনলাইনের মাধ্যমে ট্রেজারি চালানের টাকা জমা দেওয়াকে বোঝায়।

আর ব্যাংক চালান বলতে ব্যাংকের মাধ্যমে ট্রেজারি চালানের টাকা জমা দেওয়াকে বোঝায়। আর ট্রেজারি চালানের অর্থ অনলাইন কিংবা অফলাইন যেভাবেই হোক সরকারি কোষাগারে জমা হয়। 

সুতরাং, বলাই যায় যে, ট্রেজারি চালানের টাকা জমা দেওয়ার দুইটি মাধ্যম মাত্র ই চালান এবং ব্যাংক চালান।  

এক্ষেত্রে বলে রাখা ভালো, ই চালানের মাধ্যমে ট্রেজারি চালানের টাকা দিতে চাইলেও আপনার ব্যাংক ব্যালান্সে অবশ্যই টাকা থাকতে হবে।

শুধু মাত্র ব্যাংকের টাকা অনলাইনে মাধহমে ট্রেজারি চালানে জমা করে দিতে হবে। 

ট্রেজারি চালানের ক্ষেত্রে সতর্কতা

চালানের টাকা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এটি নিয়ে গাফিলতি করা ঠিক না। অনলাইন কিংবা অফলাইন যেভাবেই চালানের টাকা জমা দেন তা অবশ্যই শিওর হবেন যে জমা হয়েছে কি না। জমা হলে জমা তথ্য সম্পৃক্ত স্লিপ সংগ্রহ করবেন হোক তা অনলাইন বা অফলাইনে।

মনে রাখবেন, একটু সতর্কতাই পারে আপনাকে আমাকে ঝামেলা মুক্ত জীবন গড়তে  সাহায্য করতে। নিয়মিত কর পরিশোধ করুন।

দেশকে এগিয়ে নিতে সরকারকে সহযোগিতা করুন।

আরও পড়ুনঃ

ঘরে বসে ডাক্তারের পরামর্শ । অনলাইনে ডাক্তারের পরামর্শ 

মুক্তিযুদ্ধে প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধ গড়ে তোলেন কারা?

চালান কি?

চালান হচ্ছে মাল ক্রয় ও বিক্রয়ের একটি প্রামাণ্য দলিল। ধারে পণ্য বিক্রয়ের সময় বিক্রেতা বিক্রীত পণ্যের দর, পরিমান, মূল্য পরিশোধ শর্ত, ক্রেতা ও বিক্রেতার নাম প্রভৃতি উল্লেখ করে যে লিখিত দলিল ক্রেতার নিকট প্রেরণ করা হয় তাকে চালান বলা হয়।

ব্যাংক চালান কি?

ব্যাংক চালান হলো বিভিন্ন বাণিজ্যিক কার্যক্রমের তালিকায় ব্যাংকের সাথে সম্পৃক্ত বাণ্যিজিক হিসাব। অর্থাৎ এটি একটি ব্যাংক দলিল হিসেবে ব্যবহৃত হয়।

কীভাবে অনলাইন চালান ভেরিফিকেশন করা হয়?

অনলাইন চালান ভেরিফিকেশন করতে Online Challan verification BD ভিজিট করুন এবং আপনার তথ্য দিন।

উপসংহার

আজকে আমরা জানার চেষ্টা করেছি অনলাইন চালান ভেরিফিকেশন কি কিভাবে করে।

কিভাবে অটোমেটেড চালান ভেরিফিকেশন করে। ই চালান এবং ব্যাংক চালানের মধ্যে পার্থক্য কি। ট্রেজারি চালানে কি কি অর্থ নেওয়া হয়, ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে কোন কোষাগারে টাকা জমা হয়।

আশা করছি এ বিষয়ে আর ভ্রান্ত ধারণা বা অজ্ঞতা থাকবে না।

নিত্য নতুন আরও আর্টিকেল পেতে নিয়মিত ভিজিট করুন আমাদের ওয়েবসাইট। এবং কানেক্ট থাকুন আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে।  

Leave a Comment

1 × three =