তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণ দূর করার উপায় | ঘরোয়া উপায়ে ব্রণ দূর করুন

সুপ্রিয় পাঠকগণ তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণ দূর করার উপায় সম্পর্কে জানার জন্য আপনারা অনেকেই আমাদের কাছে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমি আপনাদের সাথে আলোচনা করব আপনারা কিভাবে নিজের ত্বকের তৈলাক্ততা এবং ব্রণ দূর করবেন।

কোন ফেসওয়াশ কিংবা অন্য ধরনের কিছুর মাধ্যমে আমি আপনাদেরকে এ বিষয়টি বলবো না। আজকের এই আর্টিকেলে আমি আপনাদেরকে সম্পূর্ণ ঘরোয়া উপায়ে কিভাবে আপনারা আপনাদের মুখের পরিচর্যা করতে পারেন সেটি বিস্তারিত জানাবো। 

আশা করি আজকের এই আর্টিকেলটি আপনাদের ভালো লাগবে এবং আপনারা একটি কার্যকরী ফলাফল পেয়ে যাবেন। শেষ পর্যন্ত এই আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণের দাগ দূর করার উপায়

তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণের দাগ দূর করার উপায়
তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণের দাগ দূর করার উপায়

সাধারণত যাদের ত্বক তৈলাক্ত হয় তাদের ভোগান্তি অনেকটা বেশি হয়ে থাকে।

আপনি যত সুন্দর করেই মেকআপ করেন না কেন কিছুক্ষণের মধ্যেই মুখ আবার সেই তেলতেলে চিটচিটে হয়ে যায়।

এছাড়া রাস্তায়  বেরোলে মুখে ময়লা নানান ধরনের ইনফেকশন হয়ে থাকে। 

এসকল সমস্যার মধ্যে অন্যতম সমস্যা হচ্ছে ব্রণের সমস্যা।

আপনার এই তৈলাক্ত ত্বকের যত্ন নেওয়ার জন্য বাইরের অন্য সকল রাসায়নিক ফেসওয়াশ কিংবা ফেসপ্যাক ব্যবহার করার চাইতে ঘরোয়া উপায়ে ব্যবহার করে আপনারা আপনাদের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করতে পারেন।

চলুন জেনে নেয়া যাক প্রাকৃতিক উপাদানগুলো ব্যবহার করে ঘরে বসে কিভাবে আপনারা ফেসপ্যাক তৈরি করতে পারেন। 

বেসনের ফেসপ্যাক | তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণ দূর করার উপায় 

আমরা সকলেই জানি বেসন আমাদের কতটা কার্যকরী একটি উপাদান।

বেসন প্রাকৃতিক ফেসওয়াশ হিসেবে কার্যকরী একটি উপাদান।

আপনার মুখের তেলতেলে ভাব দূর করার জন্য বেসন খুবই কার্যকরী।

সেইসঙ্গে আপনার মুখের যেকোনো দাগ দূর করতেও এটি খুবই ভালো কাজে দিবে।

আপনারা ফেসপ্যাক কিভাবে তৈরি করবেন চলুন সেটি জেনে নেয়া যাক।

ফেসপ্যাক তৈরিঃ দুই চামচ বেসন এবং চার চামচ দুধ একসাথে মিশিয়ে ভালো করে গুলে নিন। যে ফেস্ট টি তৈরি হয়েছে সেটি মুখে লাগিয়ে নিন।

১৫ থেকে ২০ মিনিট পর এটি শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। 

সপ্তাহে আপনি এটি ২ থেকে ৩ দিন ব্যবহার করতে পারেন। 

এই উপাদানগুলো আপনার মুখের উজ্জলতা ফিরিয়ে আনবে এবং মুখে কোনও গান থাকলে সেটি দূর করবে।

আরও পড়ুনঃ

সহপাঠীর মুনাফিকী আচরণ দূর করার উপায় কি?

টেনশন দূর করার দোয়া

ক্রসিং ওভার কি?

ডিম, শসা ও পুদিনার প্যাক 

ডিমের সাদা অংশটি আপনার মুখের তৈলাক্ত ভাব দূর করার জন্য খুবই কার্যকরী একটি উপাদান।

আপনার মুখের অতিরিক্ত তেল দূর করবে এবং আপনার ত্বককে টানটান করতে সাহায্য করবে।

এছাড়াও শসা এবং পুদিনার উপকারিতা সম্পর্কে আমাদের সকলেরই মোটামুটি ধারণা রয়েছে।

এই ফেসপ্যাকটি আপনারা ব্যবহার করতে পারেন।

চলুন কীভাবে এই ফেসপ্যাকটি তৈরি করবেন সেটি জেনে নেয়া যাক।

ফেসপ্যাক তৈরিঃ একটি ডিমের ভেতরের সাদা অংশ নেবেন।

এরপর ডিমের সাদা অংশের সঙ্গে শসার রস এবং পুদিনা পাতার ফেস্ট ভাল করে মিশিয়ে নিন।

এবার এগুলোকে আপনি মুখে লাগান।

শুকিয়ে যাওয়ার পর এটিকে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। পুদিনা পাতার অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল উপাদান আপনার মুখকে ব্রণ মুক্ত রাখবে।

এবং শসা আপনার ত্বককে ভেতর থেকে ঠান্ডা রাখবে।

কমলার ফেসপ্যাক | তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণ দূর করার উপায়

আপনার মুখের তৈলাক্ত ভাব দূর করার জন্য কমলা লেবুর খোসার অনেক কার্যকরী দিক রয়েছে।

আপনার ত্বককে উজ্জ্বল এবং সুন্দর করার জন্য এই কমলালেবুর খোসার মাধ্যমে একটি ফেসপ্যাক আপনারা তৈরি করতে পারবেন।

এতে করে আপনার মুখের তেল কন্ট্রোল হবে এবং আপনার ত্বক আগের থেকে উজ্জ্বল দেখাবে।

এই ঘরোয়া উপায়ে কিভাবে আপনারা পেস্ট টি তৈরি করবেন চলুন সেটি জেনে নেয়া যাক।

ফেসপ্যাক তৈরিঃ আপনাকে সর্ব প্রথম কাজ হচ্ছে দুই চামচ কমলা লেবুর খোসার গুড়া নেবেন।

এই উপাদানের সাথে চার চামচ দুধ, এক চামচ হলুদ বাটা একসঙ্গে ভালো করে মিশিয়ে নিন।

সকল উপাদান গুলো ঠিকঠাক ভাবে মিশে গেলে আপনারা এগুলোকে মুখে লাগিয়ে নিন। 

২০ থেকে ২৫ মিনিট পরে গুলো ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

এই ঘরোয়া উপায়ে টি শুধুমাত্র আপনার মুখের তেল কন্ট্রোল করবে না বরং ত্বককে আরও বেশি গ্লোয়িং করে তুলবে।

আপনি এটি সপ্তাহে দুই থেকে একবার ব্যবহার করতে পারবেন।

আপনারা কমলার খোসা দিয়ে আরো একটি ফেসপ্যাক তৈরি করতে পারবেন।

কাঁচা হলুদ বাটা, চালের গুড়া, কমলার খোসার গুড়া এবং সামান্য মধুর ডাল বাটা একসঙ্গে মিশিয়ে একটি পেস্ট তৈরি করুন।

এরপর এগুলোকে ১৫ মিনিটের জন্য আপনার মুখে লাগিয়ে নিন।

১৫ মিনিট হয়ে গেলে আপনারা ঠান্ডা পানি দিয়ে এটিকে সুন্দর করে ধুয়ে ফেলুন।

এই প্যাকটি কারনে আপনাদের মুখ অনেকটা টানটান হবে।

আরও পড়ুনঃ

নিজেকে পরিবর্তন করার উপায়

আগামী ৭ দিনের আবহাওয়ার খবর

টুইটার অধীনস্থ প্রতিষ্ঠান কোনগুলো? 

পাকা কলার ফেসপ্যাক | তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণ দূর করার উপায়

পাকা কলার ফেসপ্যাক
পাকা কলার ফেসপ্যাক

আপনি জানেন কি, পাকা কলা আপনার ত্বকের তৈলাক্ত ভাব দূর করতে অনেকটাই কার্যকরী ভূমিকা রাখবে।

এই ব্যক্তির কারণে ত্বকের উজ্জ্বলতা এবং কোমলতা বৃদ্ধি পাবে। লেবুর রসে সাহায্যের ত্বকের তেলতেলে ভাব দূর হয়। 

একইসঙ্গে ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধিতে ও কার্যকরী।

মধু হচ্ছে প্রাকৃতিক অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। যার মাধ্যমে ত্বকের ব্রণ এবং নানান ধরনের সমস্যা দূর হয়ে থাকে।

এবং মধুর সাহায্যে আপনার ত্বকের ময়েশ্চারাইজার ফিরে আসবে।

চলুন এগুলো সাহায্যে কিভাবে একটি ফেসপ্যাক তৈরি করবেন সেটি শিখে নেই।

ফেসপ্যাক তৈরিঃ একটি পাকা কলা, ২ চা চামচ পাতিলেবুর রস, এক চা চামচ মধু নিন। কলার খোসা টি ছাড়ালে নিন এবং গলার ভিতরে সাদা অংশটি কে খুব ভালোভাবে চটকে খুলে ফেলুন। 

এবং এটিকে মধু এবং পাতিলেবুর সঙ্গে ভালো করে ঘন একটি পেস্ট তৈরি করুন।

এ পেস্ট টি আপনি চাইলে হাতে, মুখে এবং গলায় মারতে পারবে।

এরপর ১৫ মিনিট এটিকে রেখে দিবেন।

১৫ মিনিট পরে হালকা কুসুম গরম পানি দিয়ে এটিকে ধুয়ে নরমাল যেকোনো তোয়ালে দিয়ে চেপে চেপে মুখ মুছে নিন।

আপনারা যদি সপ্তাহে দুই থেকে তিনবার এ ফেইস প্যাকটি ব্যবহার করেন তাহলে ভাল কার্যকরী ফলাফল পেতে পারেন।

শসার ফেসপ্যাক 

শসার ব্যবহার সম্পর্কে আমাদের সকলেরই কমবেশি জানা আছে। শসা ত্বকের জন্য খুবই ভালো কাজ করে থাকে।

ত্বকের ভেতর থেকে অতিরিক্ত তেল নিয়ন্ত্রণ করে এবং আপনার ত্বককে ফ্রেশ রাখতে সাহায্য করে। ঘরোয়া পদ্ধতিতে আপনারা শসার ধারা একটি সুন্দর ফেসপ্যাক তৈরি করতে পারবেন।

চলুন শসার ফেসপ্যাক কিভাবে তৈরি করা হয় সেটি শিখেনি।

ফেসপ্যাক তৈরিঃ ২ টেবিল চামচ পরিমাণ শসার পেস্ট, এক চা চামচ পরিমাণ গোলাপজল, কয়েক ফোঁটা লেবুর রস একসাথে ভালো করে মিশিয়ে নিন।

এরপর এগুলোকে হালকা আলতোভাবে আপনার মুখে লাগিয়ে নিন। 

১৫ থেকে ২০ মিনিট এটিকে আপনার মুখে রাখবেন। 

তারপর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিন।

আপনারা চাইলে এই ফেসপ্যাকটি প্রতিদিন ব্যবহার করতে পারেন।

এই ফেসপ্যাকটি এর ব্যবহারের ফলে আপনাদের ত্বক ফ্রেশ এবং তেলমুক্ত থাকবে।

আরও পড়ুনঃ

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট কি?

মৃত ব্যক্তির জন্য দোয়া কোনগুলো?

মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর কোথায় অবস্থিত?

ব্রণ দূর করতে পানি কতটা কার্যকরী 

ব্রণ দূর করতে পানি কতটা কার্যকরী
ব্রণ দূর করতে পানি কতটা কার্যকরী

আমরা সকলেই জানি প্রত্যহিক জীবনে আমাদের একজন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তির জন্য প্রচুর পরিমাণে পানি প্রয়োজন রয়েছে।

কিন্তু আমরা সে পরিমাণে পানি পান করতে প্রস্তুত থাকি না। 

অথবা কেউ এর সম্পর্কে জানার পরেও পানি ঠিকঠাকমতো পান করেন না।

আপনি কি জানেন আপনার মুখের জন্য পানি অনেক কার্যকরী একটি উপাদান।

পানি পান করলে আপনার মুখের ব্রণের খুবই ভালো ফল পাওয়া যাবে।

আপনারা হুট করে নিজেদের পানি খাওয়া বাড়িয়ে দিতে পারবেন না।

তাই ধীরে ধীরে আপনারা পানি খাওয়ার অভ্যাস টি বাড়িয়ে তুলুন।

এতে করে আপনার মুখের ব্রণ কমে যাবে।

ফেসপ্যাক ব্যবহারে সর্তকতা 

আমাদের উপরে উল্লেখিত সকল ফেসপ্যাক গুলো বিভিন্ন ধরনের ওয়েবসাইট ঘেঁটে বের করে তবে আপনাদেরকে দেয়া হয়েছে। 

আপনারা অবশ্যই এই ফেসপ্যাক ব্যবহার করার পূর্বে এর সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেয়ার চেষ্টা করবেন। 

অথবা আপনাদের মুখে যদি অতিরিক্ত তৈলাক্ত হয় তাহলে অবশ্যই আপনারা ডাক্তারের পরামর্শ নিতে পারেন।

এছাড়া আপনাদেরকে আজকের যে সকল ঘরোয়া উপায় গুলো দেখানো হয়েছে এগুলো আপনারা ব্যবহার করতে পারবেন। 

তবে সে ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ আপনাদের দায়িত্বে এগুলো ব্যবহার করবেন।

কেননা আমরা সকলেই জানি একেকজন মানুষের ত্বক একেক রকম হয়ে থাকে।

তাই কোন ফেইস প্যাকটি আপনার ত্বকের কার্যকরী সে ফেসপ্যাকটি আপনি ব্যবহার করুন।

যদি এ ধরনের ফেসপ্যাক গুলো ব্যবহারের ফলে আপনাদের মুখে কোনো সমস্যা দেখা দেয় সেক্ষেত্রে আমরা কোনভাবেই দায়ী থাকব না।

আরও পড়ুনঃ

সুশাসনের মূল ভিত্তি কি?

বার্থডে উইশ ফর ফ্রেন্ড

ফরজ নামাজের পর দোয়া কোনগুলো পড়তে হয়?

তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণ দূর করার উপায় FAQS

তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণ দূর করার উপায় কি?

আপনার মুখের ব্রণ দূর করার জন্য আজকের এই পোস্টে আমরা আপনাদের ঘরোয়া উপায় গুলো বলেছি। আপনারা আজকের এই পোস্টের নিয়ম গুলো সঠিক ভাবে ব্যাবহার করে মুখের ব্রণ দূর করতে পারবেন।

উপসংহার 

প্রিয় পাঠকগণ আজকের এই আর্টিকেলে তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণ দূর করার উপায় সম্পর্কে আপনাদেরকে বিস্তারিত জানানোর জন্য গঠন করা হয়েছে।

আশা করছি আজকের এই আর্টিকেলটি আপনাদের ভাল লেগেছে এবং আপনার আজকেরে আর্টিকেল থেকে ঘরোয়া উপায়ে কিভাবে আপনারা নিজেদের ব্রণ দূর করতে পারেন সে সম্পর্কে জেনে গিয়েছেন।

আপনারা এ ধরনের ফেসপ্যাক গুলো অবশ্যই সকল উপাদানের মাধ্যমে ঘরে বসে ব্যবহার এবং তৈরি করতে পারেন।

আপনাদের যদি এই বিষয়ে কোন প্রশ্ন অথবা মতামত থাকে তাহলে অবশ্যই আমাদেরকে কমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন।

অনলাইনের মাধ্যমে কিভাবে কাজ করে নিজেদের ক্যারিয়ার গঠন করা যায় সে বিষয়ে অনেকেরই জানার আগ্রহ রয়েছে।

অথবা কোন প্ল্যাটফর্মগুলোতে কাজ করলে আপনারা সফল হতে পারবেন সে বিষয়ে আপনাদের জানার আগ্রহ রয়েছে।

আমাদের ওয়েবসাইটে অনলাইন বিষয়ক যে সকল কাজ গুলো রয়েছে সে কাজের বিস্তারিত সম্পর্কে আর্টিকেল প্রকাশিত আছে।

আপনারা চাইলে সে সকল আর্টিকেলগুলো পড়ে নিজেদের সঠিক পদক্ষেপ নিতে পারেন।

এবং সেইসাথে আমাদের ওয়েবসাইটের সকল আপডেট গুলো খুব দ্রুত পেতে ফলো করুন আমাদের ফেসবুক পেইজে

Leave a Comment

four × 3 =