ওয়েবসাইট তৈরি করার নিয়ম 2022 | ফ্রি ব্লগ তৈরি করার উপায়

ওয়েবসাইট তৈরি করার নিয়ম সম্পর্কে আজকে আপনাদের জানাবো। আপনি যদি লেখালেখি করতে ভালোবাসেন বা শৌখিন হন, তবে আপনাকে অবশ্যই আপনার নিজস্ব ওয়েবসাইট বা ব্লগ তৈরি করা উচিৎ। একটি ব্লগের মাধ্যমে আপনি লোকেদের তথ্য প্রদানের পাশাপাশি বিজ্ঞাপন প্রচার এর মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারেন। কিন্তু আপনি জানেন না এটি ওয়েবসাইট কোথায় এবং কিভাবে তৈরি করতে হয়। মূলত এই নিবন্ধে আমরা ওয়েবসাইট তৈরি করার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব যাতে আপনি সহজেই নিজের জন্য একটি ফ্রি ব্লগ তৈরি করে নিতে পারেন। 

সেই সাথে এখানে ওয়েবসাইট বা ব্লগ তৈরি করার কথা বলছি যাতে আপনি সহজেই কারও সাহায্য ছাড়া কীভাবে ওয়েবসাইট তৈরি করতে হয় তা শিখতে পারেন।

বর্তমানে অনলাইনে ওয়েবসাইট বা ব্লগ বানানের পিছনে আলাদা আলাদা কারন রয়েছে।

এখন এমন অনেকে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অনলাইন থেকে টাকা আয় করতে চায়, তারপর কেউ নিজের ওয়েবসাইট তৈরি করতে চায় যাতে সে তার জিনিসগুলি অন্য লোকেদের সাথে শেয়ার করতে পারে এবং অনেকে তাদের কোম্পানির পণ্যগুলি অনলাইনে বিক্রি করার জন্য ওয়েবসাইটও তৈরি করে।

আপনি যদি জানতে চান যে আপনি নিজে কিভবে ওয়েবসাইট তৈরি করবেন তাহলে এই নিবন্ধে আমাদের সাথে থকুন এবং পড়তে থাকুন।

গুগলে একটি ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করার সুবিধা অনেক, তাই আজ আমরা আপনাকে গুগ্লে কিভাবে ব্লগ বা ওয়েবসাইট বনতে হয় সেই সম্পর্কে বলব।

তবে তার পূর্বে, আপনাকে একটি ওয়েবসাইট তৈরির সাথে সম্পর্কিত প্রয়োজনীয় তথ্যগুলি সম্পর্কে জানতে হবে, যাতে আপনার কোনও সমস্যা না হয়। 

আমাদের দেশে এখনও অনেকে ব্লগ সম্পর্কে তেমন কিছু জানেন না, তাই তারা সমস্যায় পড়েন। অনেক প্রতারক ওয়েবসাইট সম্পর্কে ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে থাকেন, সমস্যা সেজন্যই। তাই আজ আমরা আপনাদের জানাবো কিভাবে আপনি আপনার ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করবেন।  

ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করার নিয়ম ২০২২ 

ওয়েবসাইট তৈরি করার নিয়ম
নিজে ওয়েবসাইট তৈরি করার নিয়ম

ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য গুগলে অনেক প্ল্যাটফর্ম রয়েছে, যেখান থেকে আপনি আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারেন।

তার মধ্যে কয়েকটি হল পেইড প্ল্যাটফর্ম (যার জন্য আপনাকে টাকা প্রদান করতে হবে) এবং কিছু ফ্রি প্ল্যাটফর্ম (যে প্ল্যাটফর্ম গুলো ব্যবহার করে ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করা যায়)। 

একটি পেইড ওয়েবসাইট তৈরি করতে, আপনাকে ওয়েব হোস্টিং এবং ডোমেইন নাম কিনতে হবে, যার জন্য আপনাকে কিছু খরচ করতে হবে প্রতিবছর।

বন্ধুরা ডোমেইন-হোস্টিং ক্রয় করে ওয়েবসাইট তৈরি করলে আপনি অনেক ফিচার পাবেন যা বিনামূল্যের ওয়েবসাইটে পাওয়া যায় না। 

এজন্য আপনাকে প্রথমে এই বিষয়ে পরিষ্কার ধারণা নেয়া জরুরী কোথা থেকে এবং কিভাবে আপনি একটি ওয়েবসাইট তৈরি করবেন। 

  • Blogger ( ব্লগার)
  • WordPress ( ওয়ার্ডপ্রেস ) 

ইন্টারনেট সম্পর্কে নতুন করে জেনেছেন এমন নতুন ব্যবহারকারীরা ওয়েবসাইট এবং ব্লগের মধ্যে পার্থক্য খুঁজতে থাকেন। 

আপনার অবগতির জন্য, আপনাকে বলতে চাই যে একটি ব্লগ এবং একটি ওয়েবসাইট একই জিনিস, এর মধ্যে সামান্য পার্থক্য রয়েছে। প্রতিটি ব্লগ একটি ওয়েবসাইট হিসাবে কাজ করতে পারে, তবে প্রতিটি ওয়েবসাইট একটি ব্লগ হতে পারে না। 

তো চলুন জেনে নেই কিভাবে ফ্রিতে একটি ওয়েবসাইট কিভাবে তৈরি করবেন বা মোবাইল দিয়ে কিভাবে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করা যায়।

একটি ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরির পদ্ধতি – ব্লগ ওয়েবসাইট তৈরি করার নিয়ম

গুগোল এর পক্ষ থেকে প্রদান করা ব্লগস্পট ( Blogspot) একটি প্ল্যাটফর্ম যা আপনাকে ফ্রি একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে এবং হোস্ট করতে দেয়।

ব্লগার.com Google এর নিজস্ব প্ল্যাটফর্ম, অনেকদিন থেকে গুগলের এই সেবাটি পরিচালিত হচ্ছে যারা বিনা খরচে তাদের জন্য একটি ব্লগ তৈরী করতে চান। 

গুগলের পণ্য, তাই আপনাকে সার্ভার ডাউনটাইম এবং এতে অন্যান্য সমস্যা নিয়ে চিন্তা করতে হবে না। 

এটি ছাড়াও, আপনি গুগলে হাজার হাজার ফ্রি ব্লগার টেমপ্লেট পাবেন যা ব্যবহার করে আপনি আপনার ওয়েবসাইটটিকে একটি পেশাদার লুক দিতে পারেন। 

চলুন শুরু করা যাক ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করার পদ্ধতি সম্পর্কে ধাপে ধাপে। 

ধাপ 1: প্রথমেই Blogger.com ওয়েবসাইটে যান

প্রথমত, আপনি আপনার কম্পিউটারে ব্রাউজার খুলবেন, তারপরে আপনি ব্লগারের ওয়েবসাইট www.blogger.com খুলবেন, (ব্লগার হচ্ছে গুগলের একটি ফ্রি পরিষেবা) তারপরে “SING IN” অথবা “Create New Blog” বাটনে ক্লিক করুন, তারপরে আপনি আপনার ইমেইল দেখতে পারেন। তবে যদি আপনার কোন ইমেইল আইডি গুগলের লগইন করা না থাকে তবে মেইল ​​আইডি এবং পাসওয়ার্ড দিন ( আপনার কাছে জিমেইল অ্যাকাউন্ট না থাকলে তৈরি করতে হবে)। 

ধাপ 2: তারপর নতুন ব্লগ তৈরি করুন

Sing In করার পর, আপনার সামনে একটি পেজ খুলবে, “Create New Blog” এ ক্লিক করুন। ক্লিক করার পর, আপনার সামনে একটি পপ-আপ উইন্ডো খুলবে, যেখানে ওয়েবসাইটের শিরোনাম, ঠিকানা লিখুন এবং থিম নির্বাচন করতে হবে। 

  • Title (শিরোনাম )- এখানে প্রথমে আপনাকে আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটের নাম লিখতে হবে, যেহেতু আমাদের ওয়েবসাইটের নাম “digital Touch”, আমারা এই নামে একটি ফ্রি ব্লগ খুলবো, এখনে আপনি আপনার ওয়েবসাইটের যে কোনও নাম রাখতে পারেন।
  • ঠিকানা – ইহাকে ওয়েবসাইটের URL বলা হয় এবং আপনার ওয়েবসাইটের ঠিকানা কী হওয়া উচিত,  তা আপনাকে নির্ধারণ করতে হবে। আপনি যদি ব্লগারে একটি ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করেন, তাহলে এতে আপনি আপনার ওয়েবসাইটের URL
    এর সাথে blogspot.com লেখা পাবেন। আপনি যদি অন্য কোন ওয়েবসাইট থেকে ডোমেইন কিনে ব্লগারে সেট করেন তাহলে আপনার ওয়েবসাইটের নাম আপনার পছন্দের নামে হয়ে যাবে।
  • Theme (থিম) – এরপর, আপনাকে আপনার ওয়েবসাইটের জন্য একটি থিম নির্বাচন করতে হবে। এখানে গুগোল এর পক্ষ থেকে গ্রাহককে অনেকগুলি টেমপ্লেট দেওয়া হয়েছে, আপনি যেকোন একটি নির্বাচন করতে পারেন যাতে আপনার ওয়েবসাইটটি ভাল অসুন্দর রূপে দেখায়।

ধাপ 3: এখন Create Blog-এ ক্লিক করুন

উল্লেখিত সমস্ত বিবরণ গুলি দেয়ার পরে 

সমস্ত বিবরণ প্রবেশ করার পরে, “Create New Blog” এ ক্লিক করুন, তারপরে আপনার ফ্রি ওয়েবসাইটটি প্রস্তুত, আপনি ব্রাউজারে সাইটের ঠিকানা প্রবেশ করে আপনার ওয়েবসাইট দেখতে পারেন।

আশা করি, উপরোক্ত উল্লেখিত পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করে আপনি আপনার জন্য একটি ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করার নিয়ম সম্পর্কে জেনেছেন। 

গুগলের মত ওয়েবসাইট কিভাবে তৈরি করব 

আপনার কাছে যদি কোন পণ্য বা সামগ্রী থাকে এবং আপনি চাচ্ছেন আপনার পণ্যটি বেশি সংখ্যক লোকেরা দেখুক এবং তিনি এজন্য আপনার একটি ছোট ব্যবসার ওয়েবসাইট তৈরি করা জরুরি।

 আপনি যদি গুগলের মত একটি ওয়েবসাইট নিজে তৈরি করা সম্পর্কে জানতে চান তবে আপনাকে নিজের পদক্ষেপগুলো অনুসরণ করা জরুরি। 

ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করে কিভাবে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করবেন

ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করে ওয়েব সাইট তৈরি করার জন্য আপনার টাকা খরচ করতে হবে এজন্য আপনাকে বাৎসরিক একটি ফি প্রদান করতে হবে ডোমেইন এবং হোস্টিং প্রোভাইডার কে। 

বর্তমানে বাংলাদেশে একটি ছোট ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য বাৎসরিক ডোমেইন-হোষ্টিং বাবদ খরচ ২০০০ থেকে 3000 টাকার মধ্যে পড়ে। 

1. একটি ডোমেন নেম ক্রয় করুন

একটি ব্লগ বা ওয়েবসাইট তৈরি করার পূর্বে অবশ্যই আপনাকে ডোমেন নেম বিষয়ে চিন্তা করা জরুরি এমন ডোমেইন নাম নির্বাচন করুন যেটি আপনার ব্যবসা বাপন পরী সবার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ। কোথায় বললে ডোমেন নামটি পড়লে যে কেউ বুঝতে পারে যে  ওয়েবসাইটটি কি বিষয়ে  এবং ব্যবহারের যাতে খুবই সহজে গুগল সার্চের মাধ্যমে আপনার ওয়েবসাইটটি অনুসন্ধান করতে পারে। 

ব্যবহারকারীরা আশা করতে পারে আপনার ডোমেন নামটি আপনার ব্যবসার নামের মতোই হবে। আপনি Godaddy বা NameCheap এর মতো ওয়েবসাইট থেকে ডোমেইন নাম কিনতে পারেন তবে আপনাকে এর জন্য অর্থ প্রদান করতে হবে।

তবে আপনি জেনে আনন্দিত হবেন যে ইন্টার্নেশনাল ওয়েবসাইট গুলো ছাড়াও বর্তমানে বাংলাদেশের বিভিন্ন ডোমেন নেম বিক্রয়কারী প্রতিষ্ঠান সার্ভিসটি প্রদান করছে। বাংলাদেশ একটি ডোমেইন নেম মাত্র ৮০০ টাকা থেকে ১০০০ টাকার মধ্যে ক্রয় করতে পারেন। 

বাংলাদেশের সেরা 5 টি ডোমেইন নেম বিক্রয়কারী প্রতিষ্ঠান

2. একটি ওয়েব হোস্টিং কোম্পানি খুঁজুন

ইন্টারনেটে আপনার ডোমেইন নাম পেতে আপনাকে একটি ওয়েব হোস্টিং কোম্পানি থেকে ওয়েবসাইটস রান করার জন্য হোস্টিং ক্রয় করতে হবে।

তবে এখন বেশিরভাগ ডোমেইন নেম প্রোভাইডার পরিষেবা প্রদানকারীরা ওয়েব হোস্টিং পরিষেবাগুলি অফার করে।

আপনি GoDaddy ওয়েবসাইট থেকেও ওয়েব হোস্টিং পেতে পারেন। আন্তর্জাতিক মান সম্মত ওয়েব হোস্টিং কোম্পানিগুলো গ্রাহকদের মাসিক ভিত্তিতে ওয়েব হোস্টিং সার্ভিস প্রোভাইড করে থাকে।  

একটি ওয়েবসাইটের জন্য একটি ভালো হোস্টিং খুবই জরুরী।

ওয়েব হোস্টিংয়ের জন্য মাসিক ফি নির্ভর করে আপনার ওয়েবসাইট কত বড় বা কতজন ব্যবহারকারী আপনার ওয়েবসাইট ভিজিট করেন তার উপর।

ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য আপনার কাছে ডোমেইন এবং হোস্টিং থাকলে আপনি সহজেই একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে নিতে পারেন মাত্র পাঁচ মিনিটের মধ্যে ডায়নামিক ও ব্যবহারকারী বান্ধব ডিজাইন সহকারে। 

3. আপনার বিষয়বস্তু প্রস্তুত করুন

গ্রাহক আপনার ওয়েবসাইটের মাধ্যমে কি ধরনের সামগ্রী পেতে চায় সে সম্পর্কে চিন্তা করুন। এটি আপনাকে আপনার ওয়েবসাইটে কী ধরণের তথ্য অন্তর্ভুক্ত করতে হবে তা নির্ধারণ করতে সহায়তা করবে৷

আপনার গ্রাহকরা কি আগ্রহী সে অনুযায়ী আপনার সাইটের গঠনে বিশেষ মনোযোগ দিন, যাতে তারা তাদের প্রয়োজনীয় জিনিসগুলি সহজেই খুঁজে পেতে পারে।

আপনি আপনার সাইট ডিজাইন করার জন্য একজন পেশাদার ওয়েব ডেভেলপার কে নিয়োগ করতে পারেন।

ঠিক  একইভাবে আপনি আপনার ওয়েবসাইটের বিষয়বস্তু  সম্পর্কে লিখতে এবং সম্পাদনা করার জন্য একজন পেশাদার লেখক এবং সম্পাদক নিয়োগ করতে পারেন বা কথা বিবেচনা করবেন।

4. আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করুন

এখন আপনি আপনার নিজস্ব ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারেন বা আপনি আপনার ওয়েবসাইট একজন পেশাদার ওয়েব ডিজাইনার দ্বারা তৈরি করতে পারেন। 

মনে রাখবেন ইন্টারনেটের ব্যবসা পরিচালনা এবং ওয়েবসাইট থেকে টাকা আয় করার জন্য আপনাকে আপনার ওয়েবসাইটগুলি আপ টু ডেট রাখতে হবে। 

আপনি যদি একজন নতুন ব্লগার হন, তাহলে অন্য কারো ওয়েবসাইট থেকে  অথবা ইউটিউব ভিডিও দেখে বিষয়বস্তু সম্পর্কে ধারণা নিতে পারেন।

একজন পেশাদার ওয়েব ডেভেলপার যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আপনার সাইট তৈরি করতে পারে এবং আপনাকে সফল ওয়েব ডিজাইনের জন্য টিপস দিতে পারে।

এছাড়াও একজন পেশাদার ওয়েব ডেভেলপার নিয়োগ করা আপনার জন্য কার্যকর হতে পারে।  

আরও পড়ুনঃ

ওয়েবসাইট তৈরি করার নিয়ম সম্পর্কে FAQS

বিশ্বের প্রথম ওয়েবসাইট কে বা কারা তৈরি করেন?

বিশ্বের প্রথম ওয়েবসাইটটি CERN-এ WWW উদ্ভাবক টিম বার্নার্স-লি তৈরি করেছিলেন এবং 1991 সালে অনলাইনে চালু হয়েছিল।

ওয়েবসাইট থেকে কি টাকা আয় করা যায়?

হ্যাঁ, ওয়েবসাইট বা ব্লগের মাধ্যমে টাকা আয় করা যেতে পারে, তবে এর জন্য আপনাকে কিছুটা ভাগ্য এবং কিছু কঠোর পরিশ্রম এবং তথ্য প্রয়োজন হবে।

ওয়েবসাইট কত প্রকার?

ওয়েবসাইট প্রধানত তিন প্রকার; নির্দিষ্ট স্ট্যাটিক, ডাইনামিক বা সিএমএস এবং ইকমার্স ইত্যাদি।

উপসংহার

তাই বন্ধুরা এই ছিল ওয়েবসাইট তৈরি করার নিয়ম সম্পর্কিত তথ্য যা আপনি অবশ্যই পছন্দ করেছেন। একটি ওয়েবসাইট তৈরি করা কত সহজ ছিল দেখুন।

আপনি ঘরে বসে আপনার নিজের ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারেন এবং আপনার যদি একটি ব্যবসা থাকে তবে আপনি এটিকে আপনার ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রচার করতে পারেন এবং আপনার ব্যবসা বাড়াতে পারেন।

যদি আপনার ব্যবসা না থাকে তবে আপনি একটি ফ্রি ব্লগ তৈরি করে টাকা আয় করতে পারেন এবং ইন্টারনেট দুনিয়ায় জনপ্রিয় হয়ে উঠতে পারেন। 

গুগল বা গুগল  ব্যবহার করে একটি ফ্রি ব্লগ বা ওয়েবসাইট তৈরি করার নিয়ম সম্পর্কে আপনার যদি কোনও প্রশ্ন থাকে তবে আপনি কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন।

আমরা আপনার মূল্যবান কমেন্টের উত্তর দেওয়ার জন্য সর্বদা প্রস্তুত। আপনি যদি পোস্টটি পছন্দ করেন, অনুগ্রহ করে এটি অন্য লোকেদের সাথে শেয়ার করুন যাতে তারাও এটি সম্পর্কে জানতে পারে, ধন্যবাদ!

Leave a Comment

three × 2 =