নগদ এজেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২৩

নগদ এজেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে আজকে আপনাদের জানাবো। বিকাশ cash In পয়েন্ট গুলোকে বিকাশ এজেন্ট পয়েন্ট বলা হয়, কিন্তু নগদের পক্ষ থেকে নগদ এজেন্টদের কে নগদ উদ্যোক্তা বলা হয়ে থাকে। তাই আপনার গুগল সার্চ যদি নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট খোলার নিয়ম হয়ে থাকে তবেও এই পোস্টটি আপনারই জন্য।  

বাংলাদেশের মোবাইল ব্যাংকিংয়ের অগ্রদূত ডাচ বাংলা ব্যাংক পরিচালিত রকেট কে বলা হলেও বর্তমানে সুযোগ সুবিধার দিক থেকে নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা বিশেষ অবস্থান দখল করে নিয়েছে। খুবই অল্প সময়ের মধ্যে নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা টির অবস্থান বাংলাদেশের দ্বিতীয়। 

সর্বশেষ 2021 সালের তথ্য মতে নগদে প্রতিদিন লেনদেন ৪০০ কোটি টাকা লেনদেন হয়। তাই নগদ এজেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে এখন অনেকেই জানতে চাচ্ছেন এবং নগদ উদ্যোক্তা হওয়ার জন্য অনেকেই আগ্রহী। 

নগদ উদ্যোক্তা বা এজেন্ট কি?

নগদ এজেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম
নগদ উদ্যোক্তা বা এজেন্ট কি

বন্ধুরা নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সেবার মাধ্যম হিসেবে কাজ করে উদ্যোক্তা বা এজেন্টরা।

এজেন্টদের আপনি একটি ব্যক্তিগত নগদ একাউন্ট নম্বর থেকে টাকা উত্তোলন এবং টাকা ক্যাশ ইন করার পয়েন্ট ও বলতে পারেন। 

এক কথায় নগদ এর সাথে চুক্তিবদ্ধ হয় আপনি নগদ এর বিভিন্ন সেবাগুলো গ্রাহকদেরকে দিবেন বিনিময়ে আপনি কিছু কমিশন পাবেন এরাই নগদ এজেন্ট।  আর দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে নির্দিষ্ট যে পয়েন্টে গুলিতে নগদের সেবা প্রদান করা হয় তাদেরকেই নগদ উদ্যোক্তা বলা হয়ে থাকে। 

নগদ এজেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম – নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট খোলার নিয়ম

একজন নগদ উদ্যোক্তা হবার (নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট খোলার নিয়ম) জন্য আপনি বেশ কয়েকটি পদ্ধতি অনুসরণ করতে পারেন। 

  • নগদ সার্ভিস সেন্টারে যোগাযোগ করুন।
  • নগদ ডিস্ট্রিবিউটর হাউসে যোগাযোগ করুন।
  • => নগদ DSO এর সাথে যোগাযোগ করুন।  

বিকাশ এজেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম

নগদ সার্ভিস সেন্টারে ভিজিট করার পূর্বে নগদ হেল্পলাইন ১৬১৬৭ নম্বরে কল করে আপনার কাছাকাছি নগদ সার্ভিস পয়েন্টের ঠিকানা সংগ্রহ করুন।

তবে নগদ এজেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম সমূহের মধ্যে সবচেয়ে সহজ এবং জনপ্রিয় পদ্ধতি হচ্ছে আপনার এলাকার নগদ ডিস্ট্রিবিউশন হাউস অথবা নগদ সেবা প্রদানকারী (DSO ), যারা আপনার এলাকায় নগদ এজেন্টদের সার্ভিস দিচ্ছে তাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। 

সার্ভিস সেন্টারে যোগাযোগ নগদ উদ্যোক্তা হবার নিয়ম 

এক্ষেত্রে আপনাকে বলে রাখা ভাল নগদ সার্ভিস পয়েন্ট গুলোর বেশিরভাগই এজেন্ট বা উদ্যোক্তা একাউন্ট খোলার সঙ্গে জড়িত নয়।

তবে আপনাকে একটি নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট খোলার জন্য সর্বোচ্চ সহযোগিতা করবে এই নগদ সার্ভিস সেন্টার গুলো।

তাদের কাছ থেকে আপনি সকল ধরনের যোগাযোগ নাম্বার গুলি পেতে পারেন যা আপনার নিকটবর্তী। 

তবে আপনি চেষ্টা করবেন সার্ভিস সেন্টার গুলোতে ভিজিট করার পূর্বে কিছু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সঙ্গে নিয়ে যেতে, যাতে সহজেই আপনি নগদ এজেন্ট একাউন্ট খুলতে পারেন।

নগদ এজেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম জন্য প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র গুলি হচ্ছে –

  • আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ট্রেড লাইসেন্স
  • উদ্যোক্তার এনআইডি কার্ডের ফটোকপি
  • ২ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি
  • নগদ একাউন্ট খোলা হয়নি এমন একটি মোবাইল নম্বর ( যেকোনো নেটওয়ার্ক  নাম্বার ব্যবহার করা যাবে)

আরও পড়ুনঃ

Airtel Internet Offer code

GP Call Rate Offer

Banglalink 1000 Minute Offer

প্রয়োজনীয় কাগজপত্র গুলো যাচাই-বাছাই শেষে নগর সার্ভিস পয়েন্ট গুলো আপনার নগদ এজেন্ট একাউন্ট এর জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবে যাতে আপনি সহজে একটি নগদ এজেন্ট একাউন্ট খুলতে পারেন। 

ডিস্ট্রিবিউটর হাউস থেকে নগদ এজেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম

ডিস্ট্রিবিউশন হাউস গুলি মূলত এলাকাভিত্তিক কাজ করে থাকে।

দেশের প্রতিটি জেলায় নগদ ডিস্ট্রিবিউশন হাউস রয়েছে। আপনার নিকটস্থ ডিস্ট্রিবিউশন হাউস সম্পর্কে জানতে আপনি নগদ হেল্প লাইনে কল করতে পারেন।  

উপরে উল্লেখিত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে আপনি নগদ ডিস্ট্রিবিউশন হাউজের যোগাযোগের মাধ্যমে একটি নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট খুলে নিতে পারেন সহজেই। 

নগদ ডিএসও মাধ্যমে নতুন এজেন্ট একাউন্ট খোলার পদ্ধতি 

একটি ডিস্ট্রিবিউশন হাউজের অধীনে বর্তমানে আপনার এলাকায় চলমান নগদ এজেন্টদের সেবাপ্রদানকারী হচ্ছে ডিএসও।

এক কথায় বললে আপনার হাতের কাছে সবার আগে আপনি ডিএসও কে পাবেন।

তাই ডিএসও এর সাথে যোগাযোগের মাধ্যমে আপনি সহজেই একটি নগদ এজেন্ট একাউন্ট খুলতে পারেন। 

নগদ ডিএসও এর কাছে কাগজপত্র জমা দিলে তারাই আপনার ফর্মটা সাবমিট করে জমা দিবেন আপনার এজেন্ট এর জন্য।

এই পদ্দতি অনুসরনে আপনাকে খুব বেশি কষ্ট করতে হবে না এজেন্ট পেতে। 

তবে উপরোক্ত পদ্ধতি গুলোর কোন পদ্ধতিতে যদি আপনি সফল না হন তবে অবশ্যই নগদ হেলপ্লাইন 16167 আপনার সাহায্য করবে।

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ নগদ একাউন্ট খোলার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দেওয়ার পর আপনাকে 10 থেকে 15 দিন অপেক্ষা করতে হতে পারে।

মনে রাখবেন বর্তমানে অনেক মোবাইল ব্যাংকিং সেবা এজেন্ট খোলার জন্য উদ্যোক্তাগণের কাছ থেকে টিন সার্টিফিকেট সংগ্রহ করে থাকে। 

আমি বলছিনা নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট খোলার জন্য আপনার টিন সার্টিফিকেট (TIN CERTIFICATE) প্রয়োজন.

তবে প্রয়োজন হতে পারে, তাই যোগাযোগ করে জেনে নিবেন এবং প্রয়োজন হলে একটি টিন সার্টিফিকেট জমা দেওয়া লাগতে পারে আপনার নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট খোলার জন্য।  

নগদ একাউন্ট দেখার নিয়ম

Nagad app download 

কিভাবে নগদ এজেন্ট একাউন্ট খুলবো?

একটি নগদ এজেন্ট একাউন্ট খোলার জন্য আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ট্রেড লাইসেন্স, ভোটার আইডি কার্ডের ফটো কপি এবং দুই কপি ছবি সহ নগদ ডিস্ট্রিবিউশন হাউস অথবা নগদ সার্ভিস সেন্টারে ভিজিট করুন।

কিভাবে নগদ উদ্যোক্তা হওয়া যায়?

নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট খোলার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সহ নগদ ডিস্ট্রিবিউশন হাউস অথবা নগদ সার্ভিস সেন্টারে যোগাযোগ করুন।

নগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট খোলার নিয়ম?

প্রিয় পাঠক নগদ উদ্যোক্তা বা এজেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম একই।

উপসংহার,

আশা করি আপনি নগদ এজেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। 

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সম্পর্কে আপনার আরো কিছু জানার থাকলে আমাদের কমেন্ট করে জানান।

সেইসাথে আমাদের এই পোস্টটি ভালো লাগলে আপনার আশেপাশের লোকেদের সাথে শেয়ার করুন তারা আরও বেশি জানতে পারে নগদ মোবাইল ব্যাংকিং এজেন্ট নেওয়ার পদ্ধতি সম্পর্কে।

অনলাইনে ঘরে বসে টাকা ইনকাম, টেলিকম অফার, মোবাইল ব্যাংকিং অফার ও ইন্টারনেট থেকে সঠিক তথ্য পেতে নিয়মিত ভিজিট করুন আমাদের ওয়ের সাইট।

ডিজিটাল মার্কেটিং ও ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে জ্ঞান অর্জন করতে নিয়মিত ভিজিট করতে পারেন আমাদের এই ব্লগটি। জয়েন করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

আরও পড়ুনঃ

ই পাসপোর্ট করতে কি কি লাগে 

Jonmo Nibondhon online check

ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো?

Leave a Comment

18 + eight =

%d bloggers like this: