সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার উপায় । কিভাবে একটি সম্পর্ক সমাপ্তি করতে হয়

একটি ভুল সম্পর্ক আজীবন বয়ে বেড়ানোর মাঝে কোনো কৃতিত্ব নেই। বরং, ভুল সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার উপায় খুজে পাওয়াই সাফল্য। প্রত্যেকটি মানুষ চলার পথে কম বেশি একবার কিংবা একাধিকবার ভুল সম্পর্কে জড়ায়। তাই বলে কি ভুল বুঝতে পেরেও আজীবন ভুল নিয়ে থাকতে হবে?

আজকে আমরা জানবো, ভুল সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার উপায় সম্পর্কে। সবকিছুর মতো সম্পর্কও সুন্দর ভাবে শেষ করা যায়। একটি সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে এসে নিজেকে ভালো রাখা যায়। ভালো থাকা যায়।

মানুষ মাত্রই ভুল হয়ে থাকে। আর স্বাভাবিক ভাবে কোনও একটি সম্পর্কে জড়ানোর সময় শুধু আবেগকেই প্রাধান্য দেওয়া হয়। এজন্য সম্পর্কের আগে বা প্রথমে ভুল গুলো নিজ চোখে দেখা যায় না। চলুন জেনে নেওয়া যাক, সম্পর্ক থেকে বেড়িয়ে আসার উপায়।

Contents hide

ভুল সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার উপায় । ভুলকে বিদায় করবেন কিভাবে 

ভুল সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার উপায়
ভুল সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার উপায়

মানুষ সাধারণত একটি সুন্দর সম্পর্কের সপ্ন থেকেই সম্পর্কে জড়িয়ে থাকে। কিন্তু সব সপ্ন সত্যি হলেও এই সপ্ন অন্যকে ঘিরে। এত সহজে সত্যি করা সহজ না।

যেখানে আপনি কাকে ভালোবাসবেন সেটি বুঝতেই পারছেন না। সেখানে সঠিক মানুষ কিভাবে চিনবেন। মানুষ চেনা এত সহজ না।

মানুষকে চেনা অনেক কঠিন। একপ্রকার অসম্ভব একটি কাজ এটি। কিন্তু কিছুটা যখন বুঝতে পারার কথা তখন মানুষ আবেগে ডুবে থাকে।

মহা পণ্ডিতদের মতে, “শুধু আবেগ দিয়ে জীবন সঙ্গী নির্ধারণের মতো কঠিন সিদ্ধান্ত নিবে না”। তবুও মানুষ ভুল মানুষকে ভালোবাসে।

তাই বলে ভুল মানুষের জন্য নিজেকে আজীবন জীবন্ত নরকের আগুনে পুড়তে হবে। একদম না। সম্পর্ক নিয়মিত করার পর আপনার যদি মন হয় যে, আপনি ভুল সম্পর্কে আছেন।

তাহলে কয়েকটি উপায় অবলম্বন করে খুব সুন্দর ভাবে সহজেই সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার উপায় পাবেন। 

এইসব টেকনিক বাস্তবায়ন করার আগে মনে রাখতে হবে। পরিস্থিতি যা-ই হোক আমাকে (আপনাকে) পারতেই হবে। খুব সহজ ভাবে সবকিছু নেওয়ার জন্য মানসিক ভাবে প্রস্তত থাকতে হবে।

অতিরিক্ত আবেগপ্রবন হওয়া যাবে না। নিজ সিদ্ধান্তে অটল থাকতে হবে। তবেই আপনি পারবেন অস্বাস্থ্যকর সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসতে। 

সবকিছুর মতো ভুল সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার জন্য রয়েছে সুস্থ এবং যৌক্তিক কিছু উপায়। ভুল সম্পর্কে জড়িয়ে সম্পূর্ণ হতাশ হয়েও এসব টেকনিক ব্যবহার করে অনেক মানুষ বেরিয়ে এসেছে।

আজ তারা সফল, নিজ পায়ে প্রতিষ্ঠিত। এসব ব্যক্তিদের বাস্তব জীবন থেকে এই বিষয়গুলি বিশ্লেষণ করে আপনার সমাধানে কাজে লাগাতে আমাদের আজকের এই আর্টিকেল।

সম্পর্ক বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিতে আবেগি নয় যৌক্তিক হতে হবে । সম্পর্ক বাদ দেওয়ার কৌশল

ভুল মানুষটিকে ভালোবাসা  দিয়ে পরিবর্তন করতে ব্যর্থ হয়ে যখন নিজেকে পরিবর্তন করতে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তখন আবেগি সিদ্ধান্ত থাকে না।

কিন্তু আপনি সম্পর্কটি থেকে একবারে বের হয়ে আসতে চাইছেন এক্ষেত্রে মানুষ যতই বলুক একটু আবেগ কাজ করবেই।

সেই ভুল মানুষটির সাথে কাটানো প্রতিটা মুহূর্ত মনে পরবেই। তবে, সবকিছুর পরেও আপনাকে আবেগ নিয়ন্ত্রণ করে সিদ্ধান্তে অটল থাকতে হবে।

জীবন সুন্দর, আর এই সুন্দর জীবন ফিরে পেতে আপনাকে অবশ্যই এই ভুল সম্পর্ক থেকে ফিরে আসার সিদ্ধান্ত সঠিক রাখতে হবে।

কখনোই কেউ আপনার বিষয়গুলোকে পছন্দ করুক বা না করুক এটা ভেবে কখনোই নিজের মানসিক এবং আবেগের শক্তি ক্ষয় করবেন না।

এর থেকে নিজেকে নিজের ভিতর থেকে অনুভব করুন নিজেকে ভাবুন।

মনে রাখবেন, রঙিন সপ্ন রাসায়নিক বিক্রিয়ার মতোই ক্ষণস্থায়ী। তাই সম্ভাব্য সপ্ন দেখুন এবং তা নিয়ে কাজ করুন।

যে মানুষটা আপনার জন্য ক্ষতিকর সে আর যা হোক আপনার প্রিয়জন হতে পারে না।

মনে রাখবেন সঠিক মানুষ কখনো ক্ষতিকর হয় না। কখনো লালসার মাঝে নিজেকে হারিয়ে ফেললে বিসাক্ত ফাদে আঁটকে যাবেন।

তার চেয়ে নিজেকে জিগ্যেস করুন, আপনার মানুষটির ভিতরে আপনার চাওয়া কিছু আছে কি না। আপনি সব গুলো চাওয়া কখনো আশা করবেন না। তবে বেশিরভাগ তার মধ্যে পাবেন।

যদি মানুষটি সঠিক থাকে। আর আপনার আশার ছিটেফোঁটা না পেলে বাদ দিয়ে দিন খুব তারাতারি খুব অল্প সময়ে। 

একা থাকতে শিখুন । ভুল সম্পর্ক নিজেই ছেরে দিবে

মানুষ একা থাকতে বড্ড ভয় পায়। ব্যক্তিগত জীবনে মানুষকে খারাপ সময় একাকেই পার করতে হয়।

শুধু সম্পর্ক করেই একাকীত্ব দূর করতে হবে বিষয়টা এমন না। আপনাকে মাথায় রাখতে হবে, পৃথিবীর হাজার হাজার কোটি কোটি মানুষ সম্পর্কহীন দিব্বি আছে। 

আপনাকেও পারতে হবে। আপনার মাঝে পারার শক্তি ঠিকই আছে।

দরকার শুধু আপনার নেতিবাচক চিন্তা। সবচেয়ে বড় কথা ভুল সম্পর্কগুলো সাধারণত দূরত্ব বেড়ে যাওয়ার পরে একদমই থাকে না।

কারণ ভুল সম্পর্কে ভুল মানুষটি সবসময় স্বার্থ এবং খারাপ উদ্দেশ্য নিয়ে নিজেকে অসুস্থ মস্তিষ্কের করে রাখে। 

একা থাকার ভয়ে ভুল সম্পর্ককে টিকিয়ে রেখে নিজের সুন্দর জীবন শেষ করে দিবেন না। এমন সিদ্ধান্ত এতটা ভুল যা আপনার জীবন পর্যন্ত নিয়ে নিতে পারে।

প্রথমদিকে একা থাকা একটু কঠিন হবে। কারণ, দিন শেষে আমরা প্রাকৃতিক ভাবেই আমরা ভালোবাসায় জড়িয়ে যাই। 

অন্য একজন মানুষের সাথে সফল এবং পূর্ণ সম্পর্কে আগে নিজের সাথে নিজের একটি খাঁটি সম্পর্কের একান্ত দরকার যা একা থাকার মাদ্ধমেই সম্ভব।

একা থাকতে শেখা স্বাভাবিক ভাবে একটি কঠিন কাজ। কিন্তু, অসুস্থ মানসিকতার ভুল সম্পর্কে নিজেকে জীবন্ত মেরে ফেলার থেকে কয়েকগুন ভালো। 

আপনার একা থাকার সাথে সাথে আপনার জড়ানো ভুল মানুষটি আপনার থেকে সে নিজেই দূর হয়ে যাবে।

কারণ, ভুল মানুষ কখনো ভালোবাসা খুজে না। ভালোবাসার নামে স্বার্থ আর দেহ খোঁজে। তাই নিজেকে আসতে আসতে আড়াল করে নিন এবং মানসিক ভাবে প্রস্তত হন একা থাকার জন্য। 

নিজের ইচ্ছা নিজে পূরণ করুন । কি করলে সম্পর্কের ইচ্ছাই আপনার থাকবে না

নিজের চাহিদা সর্বাধিক নিজেই পূরণ করতে শিখে ফেলুন।

দেখবেন সম্পর্ক করার ইচ্ছাই আপনার থাকবে না। যদি আগে ভুল সম্পর্কেও ডুবে থাকেন সেই মানুষটি আপনার আচরণে হতভম্ব হয়ে নিজেই দূরে যাবে।

দিন শেষে কেউই শুধু আপনার চাহিদা পুরনের জন্য আসেনি। এটা বাস্তবতা। আর বাস্তবতা যত তারাতারি মানতে পারবেন ততই ভালো। 

আপনি নিজের কোনকিছুর জন্য অন্যের উপর নির্ভর করছেন। তাহলে নিজের দুর্বলতা নিজে বাড়িয়ে দিলেন।

জীবনকে সহজ করার অন্যতম মাধ্যম নিজেই নিজের সব চাহিদা পূরণ করা।

মনে রাখবেন, আপনার দায়িত্ব আপনার থেকে ভালোভাবে কেউ পালন করতে পারবে না।

আপনাকে একটি সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার জন্য আত্মবিশ্বাসী হতে হবে। আর মানুষ কখন আত্মবিশ্বাসী হয় জানেন?

যখন নিজের ক্যারিয়ার, ঋণ, স্বাস্থ্য, ব্যকিগত জীবন নিজেই দেখভাল করতে পারা যায়। তাই নিজেকে আত্মবিশ্বাসী করার জন্য হলেও নিজের দায়িত্ব নিজে নেন। 

নিজের দায়িত্ব নিজে নেওয়ার মাঝে নিজের প্রতি ভালোবাসা এবং আত্মসম্মান বোধ বাড়াতে পারবেন।

আপনি যখন নিজেকে সম্মান করতে শিখে যাবেন তখন সম্পর্ক নামক ভুল ফাঁদে আটকাবেন না। আর এর সবি সম্ভব নিজের সরল স্বাভাবিক ব্যবস্থাপনার মাদ্ধমেই। 

অন্যকে হটাতে নিজের প্রতি বিশ্বাস রাখুন । বেরিয়ে আসুন সম্পর্ক থেকে

আমাদের মানবদেহের ষষ্ঠ ইন্দ্রিয় দ্বারা অন্যদের শক্তি এবং মনের বিষয়ে আগেই অনুমান করা যায়।

ষষ্ঠ ইন্দ্রিয় দ্বারা বুদ্ধিমানরা নাটকীয় প্রেম বা বিসাক্ত সম্পর্ককে পর্যবেক্ষণ করতে পারে। আপনি প্রতারনার শিকার হইতেছেন।

আপনি নিজেই পর্যবেক্ষণ করে বুঝতে পারবেন। বুঝতে পারলেই সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার উপায় খুজতে পারবেন।

এজন্য মাঝে মাঝে ভালোবাসার মানুষটিকে দেখুন।

ষষ্ঠ ইন্দ্রিয় দ্বারা অনুভব করার চেষ্টা করুন। মানুষটি ভুল হলে আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন।

বিশ্বাস রাখুন নিজের প্রতি, আপনি পারবেন সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসতে।

মনে রাখবেন পৃথিবীতে মৃত্যু ঠেকিয়ে রাখা বাদে অসম্ভব আর কিছু নেই। 

কখনো যদি ভালোবাসার মানুষটির সাথে সারাক্ষণ রাগারাগি চলতে থাকে তাহলে ভেবে নিন মানুষটি আপনার জন্য ভুল। কারণ সে আপনাকে হেও করছে।

আবার তার প্রস্থানের পর খারাপ লাগলে ভেবে নিন আপনি ভুলে আঁটকে গেছেন। যার একমাত্র সমাধান সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার উপায় জানতে হবে। 

অন্যদিকে যখন আপনি ভালোবাসার মানুষকে এড়িয়ে চলার প্রয়োজন অনুভব করবেন তখন বুঝে নিয়েন আপনি অসুস্থ সম্পর্কের মধ্যে হাবুডুবু খাচ্ছেন।

এজন্য নিজের প্রতি দৃঢ় বিশ্বাস রাখুন। আপনি পারবেন সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসতে।

সব দম্পতিদের মাঝেই কম বেশি দিমত এবং কথা কাটাকাটি হয়।

তবে এগুলো যদি প্রতিনিয়ত চলতে থাকে তখন সুন্দর সমাধান হয় ডিভোর্স।

কারণ মানুষের মানসিক শান্তিটাই আসল।

প্রতিদিন বাড়াবাড়ি করলে মানসিক শান্তি হারিয়ে যায় চিরতরে যার পরিনাম হয় অত্যন্ত ভয়াবহ।

কারোর থেকে কিছু আশা করার আগে করণীয় । কিভাবে সম্পর্ক থেকে বের হওয়া যায় 

কিভাবে সম্পর্ক থেকে বের হওয়া যায় 
কিভাবে সম্পর্ক থেকে বের হওয়া যায় 

মানুষের সবথেকে বড় একটি ভুল, অন্যকে যা বলি নিজে তা করি না।

আবার অন্যের কাছ থেকে তাকে যেমন আশা করি আমি নিজে সেরকম কি না এটি এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার উপায় খুজুন। যদি মনে হয় এরকম ভাবে বের হওয়া সম্ভব না। তখন নিজের সাথে মেলান।

দেখুন তার কাছে চাওয়া ব্যাপারগুলো আপনার মাঝে আছে কি না। 

আপনি আগে নিজের কাছে বিশ্বাস যোগ্য হন।

পরে অন্যকে বিশ্বাস যোগ্য হিসেবে আশা করুন।

মনে রাখবে একটি সম্পর্ক গড়ে তোলা অনেক কষ্ট কিন্তু ভেঙ্গে ফেলা খুবসহজ।

তাই আগে আপনার ভুল হচ্ছে কি না তা পর্যবেক্ষণ করুন। তারপরে সম্পর্কে থাকা অন্য মানুষটির ভুল ধরুন। 

সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার উপায়- স্পষ্টভাষী হতে হবে । বেরিয়ে আসার কথা বলে ফেলুন 

সবসময় স্পষ্টভাষী হতে হবে। আপনি আগে নিজেকে স্থির করুন। যে আপনি সম্পরকতা থেকে বের হয়ে আসবেন এটা নিশ্চিত হন।

সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার উপায় কি এবার কারণগুলো খুজুন। এরপর একদিন খুব শান্ত ভাবে ঠাণ্ডা মাথায় ভুল মানুষটিকে ডাকুন। এরপর সুস্থ ভাবে আপনার কথাগুল বলুন। এভাবে সম্পর্কটা শেষ করতে পারলে সবচেয়ে ভালো।  

উপরে বিষয়গুলো থেকে আপনি ভুল সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার উপায় এতক্ষণে পেয়ে গেছেন।

এবার সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার পর কিছু করণীয় কাজ সম্পর্কে জানা যাক। যা করা একান্ত দরকার। আপনার নিজের জন্য এই কাজগুলি করতে হবে।  

সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার পর করণীয় । নিজেকে ব্যস্ত রাখুন 

সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার পর করণীয়
সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার পর করণীয়

একটি ভুল সম্পর্ক থেকে বের হয়েহচেন মানে একপ্রকার জীবন্ত মরন জালা থেকে বেচে ফিরছেন।

এবার আপনার নিজের ভালো থাকা নিজের কাছে। তবে এই বিষয়গুলো ফলে করলে আপনার ভালো থাকাতি হবে আরও সহজ। 

এই পৃথিবীতে নিজেকে ভালো রাখার দায়িত্ব নিজেকেই নিতে হয়।এজন্য সবসময় সদর্থক মানুষের সাথে মিশুন।

এমন মানুষের সঙ্গে বন্ধুত্ব রাখুন, কথা বলুন যাঁরা আপনার ভাবনা বোঝে। এজন্য খুব কাছে দুএকজন বন্ধুই সেরা। 

নিজেকে প্রচুর ব্যস্তরাখতেই হবে এজন্য কাজ খুঁজুন। কাজের মধ্যে থাকলে অন্য কোনও ধরনের চিন্তা আপনার মাথার মধ্যে প্রবেশের সময়ই পাবে না।

নিয়ম করে মাঠে যান ব্যায়াম করুন। এক্সট্রা স্কিল ডেভলপ করুন। চেষ্টা করুন কোনও বিষয়ে সম্পূর্ণ মনঃসংযোগ সেদিকে দেওয়ার। 

নিজেকে দোষ দেওয়ার অভ্যাসটা এবার ছারার সময় এসেছে। এই পৃথিবী হল রঙ্গমঞ্চও।  এই চিত্রপটে নানা ধরনের খেলা চলমান যা চলতেই থাকবে। আমারা প্রত্যেকে সেখানে একটি চরিত্র মাত্র। সবকিছু আমাদের হাতে নেই। নিজের নিয়মেই সব হচ্ছে যা হতে থাকবে। এজন্য খারাপটা চলে গেছে। নতুন ভাবে ভালো সময়টাও আসবে অবশ্যই ফিরে আসবে। 

খুব বেশি সমস্যা হলে অবশ্যই বাড়িতে বসে না থেকে কোথাও ঘুরতে যান। স্থান পরিবরতনে মানসিক পরিবর্তন হয়।

এছাড়া বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন। তিনি আপনার সকল সমস্যার সহজ সমাধান করতে পারবেন।

এবার সম্পর্ক নিয়ে অধিক জিজ্ঞেসিত কিছু প্রশ্ন এবং উত্তর জেনে নেওয়া যাক। এইসব জিজ্ঞাসা সাধারণ মানুষ অনেক বেশি করে থাকে।

চলুন জেনে নেওয়া যাক সম্পর্ক নিয়ে কিছু প্রশ্ন এবং উত্তর।

সম্পর্ক নিয়ে মানুষের অধিক জিজ্ঞেসিত প্রশ্ন এবং উত্তর । FAQS

প্রশ্নঃ কিভাবে ভালোবাসার জন্য সঠিক মানুষ বেঁছে নিবো?

উত্তরঃ সবার আগে নিজেকে সঠিক একজন মানুষ হতে হবে। নিজেকে নিজের সম্মান করতে হবে। তবেই সঠিক একজন ভালোবাসার মানুষ পেয়ে যাবেন নিজ থেকেই।

প্রশ্নঃ কেউ আমাকে সত্যি ভালোবাসে কিনা তা বোঝার উপায় কি?

উত্তরঃ যে আপনাকে সত্যি ভালবাসবে, সে কখনো আপনার কথায় বিরক্ত হবে না। আপনকে অপমান করবে না। আপনার ছোট ছোট বিষয়গুলিও তার প্রাধান্যের শীর্ষে থাকবে।

প্রশ্নঃ বিয়ের আগে প্রেম করা ঠিক কি না?

উত্তরঃ ইসলামিক দৃষ্টিতে এটা হারাম। তবে বর্তমান সময়ে বিয়ের আগে প্রেম না করা ছেলে মেয়েদের সংখ্যা খুবই কম।

তবে, বিয়ের আগে দুজন দুজনকে চেনার জন্য, নিজেদের বন্ডিং বোঝার জন্য কথা বলে নেওয়া উচিত কিছু দিন। তা হতে পারে কয়েক মাস বা এক বছর।

তবে প্রেমের নামে অশালিন কাজ নিঃসন্দেহে ঘৃণিত।

প্রশ্নঃ আমি কিভাবে নিজেকে প্রেম থেকে দূরে রাখতে পারি?

উত্তরঃ প্রম সবার জীবনে আসে। আগে বা পরে। আবার অনেকের জীবনে বিয়ের পর প্রেম হয়। প্রেম একটি প্রাকৃতিক রোগের মতো। এটি আসবেই। তা আপনি যতই চেষ্টা করুন আসবেই।

সর্বশেষে । যেভাবে সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার উপায় পাওয়া যায়

দেখুন, জীবন সুন্দর, তাই বলে খুব সহজ না। আমাদের জীবনকে আমাদেরই সহজ করে সুন্দরে রুপ দিতে হয়।

তাই ভুল হয়ে গেলে সেই বিষয়ে আজীবন নিজেকে তিলে তিলে শেষ না করে সাহস দেখান। সিদ্ধান্ত নিন। আপনি পারবেন। সবাই পারবে। দরকারে মানুষ সব পারে। 

আজকে আমরা সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার উপায় সম্পর্কে জানতে চেষ্টা করেছি।

আশা করছি আজকের পোস্টটি প্রত্যেক মানুষের জীবনের একটি অংশ।

আশা করছি সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি ভালোভাবে পড়ার পর এ বিষয়ে বুঝতে কোনো সমস্যা হবে না।

এরপরেও কোনো বিষয়ে জানতে বা পরামর্শ পেতে হলে কমেন্ট করুন। আমাদের একজন প্রতিনিধি খুব তারাতারি আপনার প্রশ্নের উত্তর দিবেন।

সব বিষয়ে নিত্য নতুন আর্টিকেল পেতে নিয়মিত আমাদের ওইয়েবসাইট ভিজিট করুন। চোখ রাখুন আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে।  

Leave a Comment

three − 2 =