Blog meaning in Bengali | ব্লগ কি | বাংলায় জানুন ব্লগ তৈরির সুবিধা কী কী?

ব্লগ কি? ব্লগ তৈরির সুবিধা কী কী? Blog meaning in Bengali ভাষায় আপনারা জানতে পারবেন এই পোস্টে। বাংলায় ব্লগের অর্থ কী? Blog এর সুবিধা কী? কেন কোন ব্লগে লেখা হয়? বর্তমানে ব্লগ লেখার মূল উদ্দেশ্য কি?

আপনার প্রশ্ন ব্লগ কি? বা Blog meaning in Bangla এই প্রশ্নের উত্তর দেয়ার আগে, ব্লগ সম্পর্কিত কয়েকটি আকর্ষণীয় পরিসংখ্যান আপনাদের জানাইঃ

Statista ওয়েবসাইট তথ্য অনুসারে, ২০১১ সালের অক্টোবর মাসে পর্যন্ত সমগ্র বিশ্বে প্রায় ১৭ কোটি ৩০ লাখ ব্লগ তৈরি হয়েছিল।

বর্তমানে, একটি অনুমান অনুসারে, পুরো ইন্টারনেটে জুড়ে ব্লগের সংখ্যা প্রায় 44 কোটি বা তার বেশি হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

চলমান ব্লগ গুলিতে প্রতি মাসে 70 কোটি বা তার বেশি পোস্ট লেখা হয় ভিবিন্ন ভাষায়।

প্রতি মাসে ৪০০+ মিলিয়নের বেশি লোক এবং এমনকি আপনি নিজেও এই ব্লগ গুলি পড়ে থাকেন। যদিও ব্লগ পড়েন এমন লোকের সঠিক সংখ্যা সম্পর্কে এখনও সঠিক কোন তথ্য নেই বা আমরা সেই সম্পর্কে অবগত নই।

এই পরিসংখ্যান গুলি আপনাকে জানানোর মূল কারন হচ্ছে, আপনাকে জানানো বর্তমান বিশ্বে ইন্টারনেট দুনিয়ায় Blogging কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা জানান দেয়া।

ব্লগ করলে কি হবে? এবং আপনি কিভাবে একটি বাংলা ব্লগিং সাইট শুরু করবেন ? যদি ব্লগিং সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য চান, তবে অবশ্যই নিবন্ধটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

Blog meaning in Bengali | ব্লগ কি?

ব্লগ কি | বাংলায় জানুন ব্লগ তৈরির সুবিধা কী কী?

ব্লগ মানে হচ্ছে এমন একটি ওয়েবসাইট যা ব্লগাররা তাদের ডিজিটাল ডায়েরি হিসাবে ব্যবহার করে থাকেন। Blog meaning সম্পর্কে আরও কিছু ভালো ব্যাখ্যা প্রয়োজন আপনাদের।

So, Blog meaning in Bengali হচ্ছে blogger থেকে প্রকাশিত Digital ডায়েরি।

একটি ব্লগের উপর blogger তাদের অভিজ্ঞতা, চিন্তাভাবনা, ভালোলাগা এবং প্রয়োজনীয় তথ্য, পাঠ্য, চিত্র, ভিডিও, অডিও ইত্যাদির মাধ্যমে লোকদের সাথে ভাগ করে নেয় তার ছিন্তাধারা।

সেই সাথে গড়ে তুলে ইন্টারনেট দুনিয়ায় নিজের ব্লগ পরিচিত এবং নিজেও পরিচিত হয়  blogger নামে। আশা করি Blog meaning বাংলায় বুজতে পেরেছেন।

একটি ব্লগ পোস্ট কি?

ব্লগে যে বিষয়বস্তুু নিয়ে পোস্ট প্রকাশিত হয় সেই লেখাকে ব্লগ পোস্ট বলা হয়।

একটি ব্লগে অনেকগুলি ব্লগ পোস্ট থাকতে পারে। ডিফল্ট ভাবে চলমান তারিখ অনুসারে ব্লগ পোস্ট গুলি একটির পর একটি ক্রমানুসারে দেখানো হয়।

blogger নিজে থেকে কন সেটিং না করে দিলে ব্লগে নতুন পোস্টগুলি প্রথম দেখানো হয় এবং পুরাতন পোস্টগুলি ক্রমানুসারে প্রদর্শিত হয়।

একজন ব্লগার তার ব্লগ পোস্ট গুলি ব্যক্তিগত (Personal) করেও রাখতেও পারেন,  যাতে অন্য লোকেরা তার লেখা গুলি দেখতে না পারে।

তবে ইন্টারনেট দুনিয়ায় বেশিরভাগ ব্লগই সর্বজনীন প্রদর্শনের উদ্দেশ্যে  তৈরি করা হয়, যাতে যে যে কেউ পড়তে পারে এবং জানতে পারে, শিখতে পারে।

একটি Blog একজন ব্যক্তি বা একটি দল দ্বারা পরিচালিত হতে পারে।

এখন বড় বড় সংস্থাগুলি তাদের সংস্থার কাজগুলি বিশ্বকে জানাতে কর্পোরেট ব্লগিংয়ের বিশ্বে প্রবেশ করেছে।

তারা তাদের ব্লগে প্রচুর তথ্য সামগ্রী শেয়ার করে নিচ্ছে প্রতিদিনিই এবং তাদের ব্লগ পরিচালনার জন্য একটি সম্পূর্ণ দল রয়েছে।

ব্লগ পোস্টগুলি জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বা মিডিয়া যেমন ফেসবুক, টুইটার, গুগল প্লাস ইত্যাদিতে ভাগ করা যায় সহজেই।

কোন ব্লগ পোস্ট সম্পর্কে আপনি মন্তব্য করতে চাইলে কমেন্ট সেকশন থেকে আপনি আপনার মন্তব্য দিতে পারেন । মন্তব্য সেকশনটি একটি ব্লগ পোস্টের নিচে অংশে থাকে।

বর্তমানে ব্লগিং একটি অনলাইন ব্যবসায়  পরিণত  হয়েছে।  আজ থেকে কয়েক বছর আগেও যেখানে অনেকেই নিজের শখের বশে এবং নিজের চিন্তাধারাকে অন্যের মাঝে পৌঁছে দেয়ার জন্য ব্লগ তৈরি করতেন। 

কিন্তু বর্তমানে ব্লগ থেকে টাকা আয় করার জন্য বেশি Blog প্রকাশিত হয়ে থাকে।

History of Blogging in Bangla | ব্লগিংয়ের ইতিহাস বাংলা

Blog meaning in Bengali
Blog meaning in Bengali | ব্লগিং অর্থ কি?

প্রথম 1994 সালে একজন আমেরিকান শিক্ষার্থী বিশ্বের প্রথম ব্লগ লিংক তৈরি করেছিলেন যার নাম Justin Hall. এই লিংকের উপরে তিনি তাঁর ব্যক্তিগত জীবনের নানা বিষয়ের কথা লিখতেন, যা তিনি তার ডিজিটাল ডায়েরি হিসাবে ব্যবহার করেছিলেন।

তারপর 1997 সালে Robot Wisdom নামের একটি ব্লগের সম্পাদক Jorn Barger  নামক বেক্তি প্রথম “weblog” শব্দটি ব্যবহার করেছিলেন।

After that, 1998 সালে Bruce Ableson নামক একজন কম্পিউটার প্রোগ্রামার এবং ওয়েবসাইট পাবলিশার Open Diary তৈরি করেছিলেন। এই Open Diary তে ব্যবহারকারী যে কেউ নিজে একটি ডায়েরি লিখার পদ্দতি এবং নতুন করে ব্লগের উপর গোপনীয়তা সেটিংস সহ প্রথম কমেন্ট বিভাগ যুক্ত করা হয়।

তারপর 1999 সালে Peter Merholz ব্লগকে webblog শব্দটি থেকে ছোট করেছিলেন। তারপর থেকে ব্লগ ( blog) শব্দটি চালু হয়েছিল। একই বছর Pyra Labs একটি নতুন ব্লগ তৈরি করে introduced করেছিল। নতুন ব্যাবহারকারীদের জন্য প্রথম ব্লগ প্ল্যাটফর্ম যারা কোডিং ছাড়াই ব্লগ লিখতে পারেন এই নতুন পদ্দতিতে।

অতঃপর 2003 সালে Matt Mullenweg বর্তমানে সবচেয়ে বেশি ওয়েবসাইট  ব্যবহৃত অপারেটিং সিস্টেম ( CMS) ওয়ার্ডপ্রেস ( WordPress ) চালু করেছে।

তারপর 2007 সালে Tumblr ( টাম্বলার) চালু হওয়ার পর বর্তমানে বহুল প্রচলিত মাইক্রো ব্লগিংয়ের ধারণার জন্ম হয়।

পূর্বে শুধু ব্লগে লেখা প্রকাশ করা গেলেও, বর্তমানে ব্লগাররা শুধু পাঠ্যই নয় পিকচার, ভিডিও, অডিও ইত্যাদি শেয়ার করতে পারেন। এমনকি এখন লোকদের কাছে এসএমএস এবং ইমেলের মাধ্যমে Blog পোস্ট প্রকাশ করতে পারেন Blogger।

পরে ইমেলের সেবার দ্রুত বর্ধনশীল প্লাটফর্ম ইয়াহু ২০১৩ সালে ১.১ বিলিয়ন ডলারে কিনেছিল।

2007 সালে থেকে ব্লগিং পরিধি বেড়ে গেছে, যা এখন ইন্টারনেট ডায়েরি থেকে ফেসবুক, টুইটার, হোয়াটসঅ্যাপ এবং ইনস্টাগ্রামের সাথে যুক্ত হয়ে আরও বেশি লোকের কাছে পৌঁছানোর জন্য তৈরি হয়েছে।

কেন ব্লগিং করবেন? ব্লগ তৈরির সুবিধা কী কী?

বন্ধুরা বর্তমানে একটি ব্লগ তৈরির বিভিন্ন সুবিধা রয়েছে।

লোকজন তাদের বিভিন্ন সুবিধার জন্য ব্লগ এবং ব্যবহারকারীদের উদ্দেশ্যে একটি ব্লগ পরিচালনা করে থাকেন।

বর্তমানে অনেক ব্লগ তৈরি করে থাকেন অর্থোপার্জনের লক্ষ্যে। এখন আবার অন্যকে সাহায্য করার পাশাপাশি অর্থ উপার্জন করা যায় একটি ব্লগ শুরু করে।

ব্লগের সুবিধা অনেক। যা আপনি Blog meaning in Bengali পোস্ট পড়েই বুজতে পারবেন।

ভিন্ন ভিন্ন লোকজন তাদের ভিন্ন ভিন্ন উদ্দেশ্যের জন্য ব্লগ তৈরি করে থাকেনঃ

  • নিজের চিন্তা ধারনা নিজের মনের মতো করে প্রকাশ করার জন্য।
  • লোকদের জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য শেয়ার করতে।
  • অনলাইন বেবশা পরিচালনা করতে একটি অনলাইন পোর্টফোলিও তৈরি করে, আরও বেশি নতুন কাজ পেতে।
  • অনলাইন থেকে নিজের লিখা দিয়ে অর্থ উপার্জন করতে।
  • নিজের নামের একটি ফ্রেম অর্জন করতে ।
  • টাকা উপার্জন করতে।
  • নিজের অফলাইন ব্যবসা অনলাইন পরিচালনার জন্য।
  • ব্লগিং করার মাধ্যমে নিজেকে লেখক করে তোলতে।
  • অন্যের কাছ থেকে শিখতে ও শিখাতে।

For instance, উপরোক্ত কাজ গুলি ছাড়াও ব্লগিংয়ের কী কী সুবিধা হতে পারে, যদি এই সম্পর্কে আপনি জেনে থাকেন তবে আপনি কমেন্ট করে আমাদের জানান।

ব্লগার কে? ব্লগারের ধরণ কি কি?

একটি ব্লগ একাধিক লোক দ্বারা পরিচালিত হতে পারে তা আমরা আগেই জেনেছি।

যারা নিজ থেকে একটি ব্লগ পরিচালনা করতে পারেন আবার একাধিক লোক থাকতে পারে এটাই স্বাভাবিক তবে ব্লগার কে এই বিষয়ে কিছু পার্থক্য রয়েছে।

জিনি একটি ব্লগ তৈরি করেন এবং নিয়মিত তার ব্লগে লেখেন এবং ব্লগে প্রকাশ করেন তাকে ব্লগার বলা হয়।

বর্তমানে ইন্টারনেট দুনিয়ায় অনেক ধরনের ব্লগার রয়েছে। তবে এখানে আমরা মূলত চারটি মূল ভাগে ভাগ করেছি ব্লগারদের।

1. অপেশাদার ব্লগার

এই সকল ব্লগার নিজের তথ্যগুলো নিজের ভাষায় সহজেই প্রকাশ করে থাকেন। তারা তারা ব্লগে নিয়মিত না হলে তাদের চিন্তাধারা আলোকে তারা ব্লগ তৈরি করে থাকে এবং লিখে থাকেন।  

তারা অর্থের ব্যাপারে তেমন কোনো চিন্তা না করেই নিজের মনের খুশি অনুসারে ব্লগ করে থাকে। 

এমন ব্লগারদের আমরা অপেশাদার ব্লগার বলে থাকি, কারণ তিনি ব্লগিং তার পেশা নয়।  

অপেশাদার ব্লগারদের বিশেষত্ব হ’ল তারা সর্বদা তাদের ব্লগের সাথে যুক্ত থাকতে পছন্দ করে, কোন টাকা না আয় করলেও।

2. পার্ট টাইম ব্লগার ( Per time blogger):

যাঁরা চাকরী করছেন, স্কুল এবং কলেজ পড়ুয়া  শিক্ষার্থীরা তাদের পড়াশোনার পাশাপাশি অতিরিক্ত সময়ে ব্লগ পোস্ট লিখতে বা ব্লগিং করতে পারেন।

বন্ধুরা সময় কারো জন্য বসে থাকে না আপনি যদি কোন বিষয়ে নিজেকে প্রস্তুুত করতে পারেন যেমন ব্লগিংয়ে।

তবে অবসর সময়ে আপনি চাকুরী, স্কুল/কলেজ জীবনের পাশাপাশি ব্লগিংকে সময় দিতে পারেন। 

একসময় এমন আসবে আপনি ব্লগিং থেকে টাকা আয় করতে পারবেন।

শুরু দিন গুলিতে ব্লগ থেকে টাকা না আসলেও একসময় এমন আসবে আপনিও ব্লগ থেকে ভালো পরিমাণ অর্থ উপার্জন করতে পারবেন আপনি সেই সাথে ব্লগিং ও শিখে যাবেন। 

এই সকল ব্লগারদের পার্ট টাইম ব্লগার বলা হয় যাদের মুখ্য উদ্দেশ্য ব্লগ থেকে টাকা উপার্জন করা নয় নিজের সময়টাকে কাজে লাগানো।

3. ফুলটাইম ব্লগার

বন্ধুরা বর্তমান সময়ে এমন কিছু ব্লগার অনলাইনে রয়েছে যাদের মূল উপার্জনের উৎস হচ্ছে ব্লগ।  তারা একটি ব্লগ লিখি প্রচুর পরিমাণ টাকা আয় করে থাকে।

দিনের বেশিরভাগ সময় তারা ব্লগ লিখতে ব্যস্ত থাকে।

প্রতিদিন ব্লগ পোস্ট করে থাকেন তাদের ব্লগে নিয়মিত ভাবে। 

তারা তাদের ব্লগের ভিজিটর দের কে নতুন নতুন কনটেন্ট দিয়ে থাকে এবং ভিজিটরদের প্রশ্নের উত্তর সঠিক সময় দেওয়ার চেষ্টা করে। 

যত সময় যেতে  থাকে তাদের ব্লগে ভিজিটর সংখ্যা বাড়তে থাকে এবং পরবর্তীতে তারা বিভিন্ন অ্যাডভার্টাইজমেন্ট প্লাটফর্ম ব্যবহার করে অর্থ উপার্জন করে থাকে।

4. পেশাদার ব্লগার

বর্তমানে অনলাইন জগতে এমন কিছু সংস্থা রয়েছে যাদের সাথে যুক্ত হয়ে অনেক ব্লগাররা সব সময় তাদের জন্য কাজ করে।

তারা সংস্থার ব্লগের জন্য কনটেন্ট তৈরি করে এবং নতুন নতুন গ্রাহক তৈরি করার উদ্দেশ্যেই তারা নিজেদের সময়টুকু ব্যয় করে এবং তারা ভালো পরিমাণ অর্থ সংস্থা থেকে পেয়ে থাকে। 

তাদের কাজ হচ্ছে Blog সংস্থার পণ্য বা পরিষেবা সম্পর্কিত তথ্য লেখা এবং এটিকে যতটা সম্ভব ভিজিটরদের বা লোকদের কাছে পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করা।

Blog meaning in Bengali সম্পর্কে কিছু প্রশ্ন ও উত্তর

ব্লগিং করে টাকা আয়?

বন্ধুরা এখন বাংলা ব্লগিং করে টাকা আয় করা যায়।

ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায়?

বাংলা ব্লগিংয়ের ইংরেজি তুলনায় CPC কম হলেও ভিজিটর থাকলে Bangla blog থেকেও ভালো পরিমাণ টাকা আয় করা যায়।

বাংলা ব্লগ লিখে থেকে টাকা আয় করতে আপনার প্রচুর ভিজিটর থাকা প্রয়োজন। বাংলা ব্লগে নিয়মিত ১ হাজার ভিজিটর নিয়ে আসতে পারলে আপনি ১-২ ডলার আয় করতে পারবেন।

এখন আপনি চাইলে আপনার আপনার বাংলা ব্লগে সহজেই এক হাজার ভিজিটর নিয়ে আসতে পারেন ভালভাবে কনটেন্ট রিচার্জ করে লিখলে।

ব্লগিং কিভাবে শিখব?

বন্ধুরা বর্তমানে আপনাকে ব্লগিং শিখতে  কোথাও কোর্স করতে হবে না।

শুধু আপনার কাছে ভালো কোন আইডিয়া থাকলেই,  ইন্টারনেটে ব্লগিং সম্পর্কে ভিডিওগুলি দেখে আপনি সহজেই ব্লগিং শুরু করতে পারবেন।

মোবাইল দিয়ে ব্লগিং করা যায়?

ওয়ার্ডপ্রেস গ্রাহকদের জন্য নতুন নতুন ফিচার আপডেট করেছে যাতে ব্লগাররা মোবাইল থেকেও তাদের ব্লগ পরিচালনা করতে পারেন ব্লগ লিখতে পারেন।

তবে আপনি চাইলে এখন মোবাইল থেকে ব্লগ রান করতে পারেন, একটু কষ্ট হলেও এটা সম্ভব।

Blog meaning | Bangla blog সফল হওয়ার সম্ভাবনা?

আমি নিজে বাংলা ব্লগ লিখে থাকি এটা আমার একটি নতুন বাংলা ব্লগ। আমার আরও একটি বাংলা ব্লগ রয়েছে যার বয়স ১.৫ বছর রেগুলার ভিজিটর সংখ্যা ৪ হাজার।

বর্তমানে আমি পেশায় একজন ব্যবসায়ী ব্যবসা কাজ থেকে সময় বের করে, ব্লগে কিছু লেখার চেষ্টা করি।

আমি যদি ব্যবসার পাশাপাশি ব্লগ থেকে মাসে ১০  থেকে 12 হাজার টাকা আয় করতে পারি তাহলে একজন ফুলটাইম ব্লগার হলে আপনি কেন পারবেন না।

তবে অবশ্যই আপনাকে সঠিক টপিক নির্বাচন করতে হবে বাংলা ব্লক করার জন্য।  কেননা বাংলায়  গুগল সার্চ অনেক কম তাই উপযুক্ত টপিক নির্বাচন করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ আপনার ব্লগিং ভবিষ্যতের জন্য।

Bkash account open system

In conclusion,

Blog meaning in Bengali সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। ব্লগ কি এই সম্পর্কে এখনো আপনার কোন কিছু জানার থাকলে কমেন্ট করে জানান।

ভবিষ্যতের দিনগুলোতে ব্লগের চাহিদা আরো বেড়ে যাবে বিশেষ করে বাংলা ভাষায়।

কেননা ইংরেজিতে ভাষায় যথেষ্ট কনটেন্ট থাকলেও বাংলা ভাষায় অনেক কনটেন্টের অপ্রতুলতা রয়েছে।

তাই বাংলা ব্লগ করতে চাইলে এখনি আপনার ব্লগ শুরু করা উচিত। 

বাংলা ব্লগেও এখন গুগল মনিটাইজেশন পাওয়া যায় অর্থাৎ আপনি বাংলা ব্লগে টাকা আয় করতে পারেন। 

Leave a Comment

17 + 6 =