ক্লোরফেনিরামিন কি কাজ করে?

ক্লোরফেনিরামিন কি কাজ করে এই সম্পর্কে জানতে অনেকেই গুগল সার্চ করে থাকেন। বাংলাদেশের অনেকেই ঔষধের নাম লিখে গুগল সার্চ করে এর উপকারিতা এবং অপকারিতা সর্ম্পকে জানতে চান। ক্লোরফেনিরামিন হচ্ছে একটি ঔষধের নাম। 

এই ঔষধটি ট্যাবলেট, সিরাপ, ওরাল সাসপেনশন আকারে বাজারে পাওয়া যায়।  যেকোনো ঔষধ সম্পর্কে জানার পর এবং ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী আপনার সেবন করা উচিত।

তথাপিও আপনার ঘরে যদি এই ওষুধটি থেকে থাকে তবে এই ঔষধ সম্পর্কে আপনি বিস্তারিত জেনে নিতে পারেন আপনার জ্ঞান অর্জনের জন্য। সেবন করার পরিমাপ ডাক্তারের পরামর্শ অনুসারে হবে।

ক্লোরফেনিরামিন কি কাজ করে? ও এর ব্যাবহার

ক্লোরফেনিরামিন এর ব্যাবহার
ক্লোরফেনিরামিন এর ব্যাবহার

ক্লোরফেনিরামাইন একটি অ্যালকাইল অ্যামাইন অ্যান্টিহিস্টামিন। এটি একটি শক্তিশালী হিস্টামিন এইচ-১ রিসেপ্টর ব্লকার এজেন্ট যা শক্তিশালী এন্টিহিস্টামিন রূপে ব্যবহৃত হয়। যার ফলে এটি প্রােমিথাজিন মেডিসিন থেকে সাধারণত কম নিদ্রার উদ্রেক করে। ক্লোরফেনিরামিন এইচ-১ রিসেপ্টর ব্লক করার মাধ্যমে এর কার্যক্ষমতা প্রদর্শন করে।

একটি মেডিসিন ক্লোরফেনিরামাইন মানব শরীরে একাধিক কাজ করে থাকে। 

ক্লোরফেনিরামাইন এর কাজ হচ্ছে নাকে প্রদাহ, নাকে সর্দি ঝরা, চোখ লাল হয়ে প্রদাহ সারিয়ে তোলা। 

তাই আমরা বলতে পারি ক্লোরফেনিরামাইন নাকে প্রদাহ, নাকে সর্দি ঝরা, চোখ লাল হয়ে প্রদাহ সৃষ্টি প্রভৃতিতে কার্যকরী।

এছাড়াও কোন কিছু খাওয়া বা ছোঁয়া লাগায় আর্টিকেরিয়া দেখা দিলে সফলতার সঙ্গে ব্যবহার করা হয়।

এছাড়াও কীট-পতঙ্গের কামড়ে বা কোন ওষুধের প্রতিক্রিয়ায় ব্যথা বা চুলকানিতে এটা কার্যকরী।

এছাড়া ভ্রমণজনিত পীড়া, ঠাণ্ডা কাশিতেও এটা ব্যবহার করা হয়। 

NOTE: চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া কোন প্রকার ওষুধ সেবন করলে দীর্ঘমেয়াদি সমস্যা দেখা দিতে পারে। ভিডিও দেখে বা কোন পোস্ট পড়ে নিজে নিজের চিকিৎসা থেকে বিরত থাকুন। ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

আরও পড়ুনঃ

কারবালা কোথায় অবস্থিত? কারবালার ইতিহাস

বাংলাদেশের এয়ারফোর্স ট্রেনিং সেন্টার কোথায়?

সিম কার নামে নিবন্ধন করা কিভাবে জানবো

ক্লোরফেনিরামিন কি কাজ করে?

ক্লোরফেনিরামিন মূলত কে প্রদাহ, নাকে সর্দি ঝরা, চোখ লাল হয়ে প্রদাহ সারিয়ে তোলার কাজ করে থাকে।

উপসংহার

আশা করি ক্লোরফেনিরামিন কি কাজ করে এই সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন।

অনলাইন থেকে ওষুধ সম্পর্কে জেনে তারপর ওষুধ সেবন করা কখনই উচিত নয়।

আপনাকে অবশ্যই ডাক্তার দেখাতে হবে এবং ডাক্তারের পরামর্শ অনুসারে ওষুধ গ্রহণ করতে হবে।

টেলিকম অফার, মোবাইল ব্যাংকিং অফার ইন্টারনেট থেকে স্বাস্থ্য বিষয়ক বিভিন্ন তথ্য জানতে রেগুলার ভিজিট করুন আমাদের ওয়েবসাইট.

এবং জয়েন করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। 

Leave a Comment

fifteen − 8 =