মা নিয়ে কিছু কথা | মায়ের গুরুত্ব এবং অবদান আলোচনা

প্রিয় পাঠকগণ মা নিয়ে কিছু কথা জানতে আজকের এই আর্টিকেলে আপনারা এসেছেন। “মা” আমাদের জীবনে এমন একটি শব্দ যাকে নিয়ে আপনি যত কথাই বলেন না কেন সবি কম হয়ে যাবে।

আপনার মা কিংবা আমার মা সকল মায়ের নামটি শুনলেই সর্বপ্রথম আসবে মায়া তারপর ভালোবাসা এ যেন এক ভালোবাসায় পরিপূর্ণ আশ্রয়স্থান। প্রতিটি সন্তানের জন্য মায়ের ভালোবাসা এতটা দামি সেটি আপনি ভালোবাসা না পেলে বুঝবেন না।

যারা এখনো পর্যন্ত মা হারিয়েছেন শুধুমাত্র তারাই বোঝেন মায়ের মুল্য বা মায়ের ভালোবাসার মুল্য কতটুকু। আমরা আজকের এই আর্টিকেলে প্রিয় মাকে নিয়ে কিছু কথা আপনাদের সামনে উল্লেখ করতে চলেছি।

এছাড়াও কিছু বাস্তবসম্মত গল্প ও ঘটনা আপনাদের সামনে আজকের এই আর্টিকেলের উল্লেখ করা হবে। তাই মায়ের অবদান ও গুরুত্ব সম্পর্কে জানতে আজকের এই আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়ুন।

মা নিয়ে যত কথা | আমাদের জীবনে মায়ের গুরুত্ব কতটুকু

মা নিয়ে যত কথা
মা নিয়ে যত কথা

পৃথিবীতে ভালোবাসার তুলনায় মা শব্দটি অনেক ছোট।

এই ছোট্ট শব্দটির মাঝে খুঁজলে লুকিয়ে থাকা পৃথিবীর সকল মায়া, মমতা, স্নেহ, ভালোবাসা সকল ধরনের খোঁজ এখানে পাওয়া যায়।

স্বার্থপর এবং চাওয়া-পাওয়ার এই ছোট্ট দুনিয়াতে বাবা মায়ের ভালোবাসার ওপর কোন কিছুই হতে পারে না।

মায়ের বিকল্প শুধুমাত্র মাই হবেন। মায়ের মতন এমন মধুর শব্দ অভিধান এর দ্বিতীয় টি আর নেই। নদী কিংবা সমুদ্রের তলদেশে তো অনেকেই চলে গিয়েছেন কিন্তু মায়ের ভালোবাসার গভীরে  কখনো যাওয়া সম্ভব নয়।

এমনকি মায়ের ভালোবাসার পরিমাপ করা বোকামি ছাড়া আর কিছুই নয়।

‘মা’ যেন সীমার মাঝে অসীম। প্রতিবছরের ন্যায় এবারও মা দিবস এমন একটি সময়ে এসেছে যে সময়ে মায়েদের কান্নার শেষ নেই।

মহান আরশের অধিপতির নিকট প্রার্থনা করি, তিনি যেন পৃথিবীর সব মায়ের কান্নাকে থামিয়ে দেন।

মা নিয়ে কিছু লেখা | মা নিয়ে পোস্ট

সেই ছোট্টবেলা থেকে ধীরে ধীরে মায়ের স্পর্শেই বড় হতে থাকে প্রতিটি সন্তান।

পৃথিবীতে যত ধর্ম থাকুক না কেন সকল ধর্মে মায়ের জায়গা রয়েছে একবারে উচ্চসীমায়।

৩৬৫ দিনের মাঝে প্রতিটি সময় মায়ের নামটি মনে করতে চাই আমরা। 

মা, আম্মা, আম্মি, মাম্মি সন্তানেরা যে যেভাবে ডাকুক; এই শান্তির ডাক শতকিছুর বিনিময়েও অন্য কোনো শব্দের সঙ্গে তুলনা করা যাবে না।

বিভিন্ন ভাষাভাষীর সন্তানের কাছে ‘মা’ ডাক শব্দটি কতই না আপন।

প্রথম দিন থেকে জীবনের শেষ পর্যন্ত সন্তানের প্রতি মায়ের ভালোবাসার কোনো পরিবর্তন হয় না।

মা তাই আমাদের কাছে অতুলনীয়, তিনি অনন্য।

কিন্তু সেই অতুলনীয় মানুষটিকে অনেক সময় তাঁদের সন্তানেরা উপযুক্ত প্রতিদান দিতে ব্যর্থ হয়।

তখনো মা আগের মতোই তাঁর সন্তানের জন্য মঙ্গল কামনা করেন।

মাকে নিয়ে সংক্ষিপ্ত গল্প | মায়ের অবদানের গল্প

মায়ের অবদান এর কথা সন্তানরা ভুলতে পারলেও মা কখনো সন্তানকে ফেলে দেন না। আজকে এই আর্টিকেলে আপনাদের সাথে একটি বাস্তব গল্প শেয়ার করব।

ঘটনাঃ পরিবারের তিন সন্তানের মধ্যে দুজন মেয়ে আর সবার বড় হচ্ছেন একজন ভাই।

বড় ভাই যখন কলেজ পড়ুয়া তখন তার বাবা পরলোকগমন করেন। বাবা তার দুই মেয়েকে বিয়ে দেয়ার পরই পরলোকগমন করেছেন।

ছেলেটিকে শুধুমাত্র তার মায়ের দায়িত্ব নিতে হতো। শুরুতে মায়ের প্রতি ভালোবাসা থেকে ছেলেটি চাকরি খুঁজতে থাকে।

তবে ছেলেটি তখনো ছাত্র হওয়ায় তেমন কোনো চাকরি জোগাড় করতে পারেনি।

বাবার জমিয়ে রাখা শেষ খুঁজে টুকু মা ছেলের হাতে তুলে দিয়েছিলেন এবং বলেছিলেন সেগুলো দিয়ে ব্যবসা পরিচালনা করতে।

মায়ের কথা অনুযায়ী ব্যবসা শুরু করল সে।

শুরুতে ব্যবসা খুবই ভালো চলত এবং মায়ের প্রতি ছেলেটির ভালোবাসা ছিল আশেষ।

এর পরবর্তী সময়ে একটি নির্দিষ্ট সময় পর ছেলেটি বিয়ে করল এবং ঘরের নতুন সদস্য আনল।

এতে করে মা খুশি হলেন তার সারাদিনের একাকীত্ব কেটেছে এবং কাজের সঙ্গী মিলেছে।

তবে কিছুদিন যেতে না যেতেই মায়ের শরীর কি খারাপ হয়ে যায় এবং তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন।

তখন থেকেই মূল সমস্যার শুরু হতে থাকে। ছেলেটি মাকে বোঝা মনে করে বৃদ্ধাশ্রমে ফেলে আসে।

কিন্তু তার মা এখনও পর্যন্ত সেই ছেলেটির জন্য দোয়া করে ছেলেটি যেন ভালো থাকে।

এটি হচ্ছে একটি মায়ের ভালোবাসার প্রতিচ্ছবি।

এই ঘটনাটি সম্পূর্ণ সত্য ঘটনা থেকে তুলে ধরা হয়েছে।

আশা করছি আজকের ঘটনা থেকে আপনারা এর প্রতি এমন অবিচার হওয়া থেকে সমাজকে রুখে দেবেন।

আরও পড়ুনঃ

মাকে নিয়ে কষ্টের কিছু কথা উক্তি

মাকে নিয়ে ইসলামিক উক্তি

নতুন বছরের অগ্রিম শুভেচ্ছা 2023

মা নিয়ে কিছু কথা FAQS

এই “মা” আমাদের জীবনে এমন একটি শব্দ যাকে নিয়ে আপনি যত কথাই বলেন না কেন সবি কম হয়ে যাবে। আপনার মা কিংবা আমার মা সকল মায়ের নামটি শুনলেই সর্বপ্রথম আসবে মায়া তারপর ভালোবাসা এ যেন এক ভালোবাসায় পরিপূর্ণ আশ্রয়স্থান।

উপসংহার 

সুপ্রিয় পাঠকগণ আজকের এই আর্টিকেলের মা নিয়ে কিছু কথা আপনাদের সামনে উল্লেখ করা হয়েছে।

এছাড়াও একটি বাস্তব ঘটনা আপনাদের সামনে আজকের এই আর্টিকেলের তুলে ধরা হয়েছে।

আশা করছি আজকের এই আর্টিকেলে আপনাদের মায়ের গুরুত্ব সম্পর্কে বোঝাতে পেরেছি।

মাকে আপনি যতটা ভালোবাসবেন এর দশগুণ সে আপনাকে ফিরিয়ে দেবে।

তাই অবশ্যই চেষ্টা করবেন মাকে যত বেশি ভালোবাসা যায়।

আপনাদের যদি আজকের এই আর্টিকেল সংক্রান্ত কোন মতামত বা প্রশ্ন থাকে তাহলে অবশ্যই আমাদেরকে কমেন্টের মাধ্যমে জানান।

এছাড়া আপনারা আমাদের ওয়েবসাইটে বিভিন্ন ধরনের অনলাইনে আয় এবং জ্ঞানমূলক আর্টিকেল পড়তে ভিজিট করতে পারেন।

আমাদের ওয়েবসাইটে সংক্রান্ত সকল আপডেট পেতে চোখ রাখতে পারেন আমাদের ফেসবুক পেইজে। 

Leave a Comment

19 − 4 =

%d bloggers like this: