কারাগারের রোজনামচা নামকরণ কে করেছেন?

কারাগারের রোজনামচা নামকরণ কে করেছেন এই সম্পর্কে জানতে আপনারা অনেকেই আগ্রহি। কারাগারের রোজনামচা কি? কেন কারাগারের রোজনামচা তৈরি করা হয়েছে, এর বিষয়বস্তু ও সকল বিষয়ে আজকে আপনাদের জানাবো।

“কারাগারের রোজনামচা” নামটি খুবি সহজ একটি বাংলা সব্দ, তবে অনেকে এই শব্দের সাথে পরিচিত নয়। কারাগারের রোজনামচা নামকরণের মুখ্য উদ্দেশ্য হচ্ছে এর পরিচিতিকে সকলের সামনে থুলে ধরা।

কারাগারের রোজনামচা কি?

বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান রচিত গ্রন্থ সংকলন হচ্ছে কারাগারের রোজনামচা। কারাগারের রোজনামচা একটি বই এর নাম। ২০১৭ সালে শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৮তম জন্মবার্ষিকীতে কারাগারের রোজনামচা নামের গ্রন্থটি বাংলা একাডেমি থেকে প্রকাশিত হয়।

কারাগারের রোজনামচা বই কি বিষয়ে লেখা?

বইটির বিষয়বস্তু অনেকটাই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন কাহিনী বলতে পারেন তবে এই খণ্ডে বিশেষ করে কারাগারে থাকাকালীন তার জীবনের ঘটনাবহুল তথ্যগুলো সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে তাঁর লেখা কে সংগ্রহ করেন। 

বাংলাদেশ ইতিহাসে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ১৯৬৬ থেকে ১৯৬৮ সাল পর্যন্ত ঘটনাবহুল জেল-জীবনচিত্র এ গ্রন্থে স্থান পেয়েছে, যার নাম রখা হয়েছে কারাগারের রোজনামচা।

বঙ্গবন্ধু নিজেই জেলে থাকাকালীন এবং জেল থেকে বের হয়ে একটি ডায়েরিতে তাঁর এই জেলস্মৃতির কথা লিখে রেখেছিলেন এবং এর নাম দিয়েছিলেন ‘থালাবাটি কম্বল, যা জেলখানার সম্বল’। 

বঙ্গবন্ধুর জেল-জীবন, জেল-যন্ত্রণা, কয়েদীদের অজানা কথা, অপরাধীদের কথা, কেন তারা এই অপরাধ জগতে পা দিয়েছিলো, তখনকার রাজনৈতিক পরিস্থিতি, কারাগারে আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের দুঃখ-দুর্দশা, গণমাধ্যমের অবস্থা, শাসক গোষ্ঠীর নির্মম নির্যাতন, ৬ দফার আন্দোলনের মূল সারমর্ম বিষয়ে এবং আন্দোলনে বাঙালি জাতির জন্য কি ধরনের অধিকার আদায়ের লক্ষে সংগ্রাম করেছিলেন এবং পশ্চিমা শাসকগোষ্ঠী সেই ৬ দফার আবেগকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা, ষড়যন্ত্র, বিশ্বাস ঘাতকতা, প্রকৃতি প্রেম, পিতৃ-মাতৃ ভক্তি, কারাগারে পাগলদের সুখ-দুঃখ, হাসি-কান্না এই গ্রন্থে তুলে ধরা হয়েছে।

কারাগারের রোজনামচা নামকরণ কে করেছেন?

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ কন্যা শেখ রেহানা কারাগারের রোজনামচা নামকরণ করেন বইটির, এবং বইটির ভূমিকা লিখেছেন তাঁর জ্যেষ্ঠ কন্যা শেখ হাসিনা ( বর্তমান বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী)।

কারাগারের রোজনামচা বইটি প্রথম প্রকাশিত হয় কবে?

কারাগারের রোজনামচা নামকরণ কে করেছেন

কারাগারের রোজনামচা বইটি প্রথম প্রকাশিত হয় বাংলা একাডেমি থেকে ১৭ই মার্চ ২০১৭ সালে, প্রকাশিত বাংলা তারিখ ফাল্গুন ১৪২৩।

বইটির প্রকাশক ও কর্মসূচি পরিচালকের দায়িত্বে ছিলেন বাংলা একাডেমির গবেষণা, সংকলন এবং অভিধান ও বিশ্বকোষ বিভাগের পরিচালক মোবারক হোসেন।

কারাগারের রোজনামচা বইটিতে অর্থায়ন করেছিল ‘গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার’-এর সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়। 

এছাড়াও কারাগারের রোজনামচা বইটির প্রচ্ছদ তৈরি করেছেন শিল্পী তারিক সুজাত এবং প্রচ্ছদে ব্যবহৃত পোট্রেটটি এঁকেছেন রাসেল কান্তি দাশ।

কারাগারের রোজনামচা বইটির গ্রন্থস্বত্ব ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেমোরিয়াল ট্রাস্ট’-এর নামে করা হয়েছে।

কারাগারের রোজনামচা বইটির মোট পৃষ্ঠা সংখ্যা ৩৩২।

কারাগারে থাকাকালীন নিজ জীবনের বর্ণনা বই পরিচিতি

প্রিয় পাঠক কারাগারের রোজনামচা নামকরন করেন কে এই সম্পর্কে জানতে আপনি নিচের টেবিলটি ভালকরে পড়ুন।

বইকারাগারের রোজনামচা
লেখকবঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান
বিষয়বস্তুকারাগারে থাকাকালীন নিজ জীবনের বর্ণনা
প্রথম প্রকাশ১৭ই মার্চ ২০১৭ সালে
প্রকাশনাবাংলা একাডেমি থেকে
ভূমিকা লিখেছেনশেখ হাসিনা
নামকরণ করেনশেখ রেহানা
পৃষ্ঠা সংখ্যা৩৩২ টি
কারাগারের রোজনামচা বই পরিচিতি

কারাগারের রোজনামচা নামকরণ কে করেছেন? থেকে প্রশ্ন ও উত্তর পর্ব

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জেল জীবনের কথা নিয়ে রচিত কারাগারের রোজনামচা নামকরণ করেছেন শেখ রেহানা।

১৭ই মার্চ ২০১৭ সালে প্রথম কারাগারের রোজনামচা বইটি প্রকাশিত হয়।

কারাগারের রোজনামচা বইয়ের ভুমিকা লেখেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠ কন্যা শেখ হাসিনা।

উপসংহার

আশাকরি আপনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কারা জীবনের নিয়ে লেখা কারাগারের রোজনামচা নামকরণ কে করেছেন সেই সম্পর্কে জানতে পেরেছেন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কারা জীবনী (১৯৬৬ থেকে ১৬৯৮) নিয়ে লেখা বই সম্পর্কে আপনার আরও জানার থাকলে আমাদের কমেন্ট করে জানান।

কেননা কারাগারের রোজনামচা বইটির নাম কে রাখেন এই সম্পর্কে ছাড়াও আপনার মনে আরও প্রশ্ন থাকতে পারে।

ব্লগিং, টেলিকম অফার, ডিজিটাল মার্কেটিং, ইন্টারনেট থেকে টাকা ইনকাম ও মোবাইল ব্যাংকিং সেবা সম্পর্কিত তথ্য জানতে নিয়মিত ভিজিট করুন আমাদের ওয়েবসাইট।

এবং ফেজবুকে আপডেট গুলি পেতে জয়েন করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

আরও পড়ুনঃ

কাতার ফিফা বিশ্বকাপ ২০২২ কোয়াটার ফাইনাল সময়সূচি বাংলাদেশ

১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসের ভাষণ | ১৬ ডিসেম্বর বক্তব্য দেয়ার সঠিক নিয়ম

ম্যারাডোনার মোট গোল সংখ্যা কত? ডিয়েগো ম্যারাডোনা পরিসংখ্যান

১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা ২০২২ স্ট্যাটাস ব্যানার উক্তি, ছবি

পর্তুগাল বনাম মরক্কো পরিসংখ্যান ২০২২ | হেড টু হেড লড়াই কে এগিয়ে

Leave a Comment

four × three =

%d bloggers like this: