ইমেইল আইডি খোলার নিয়ম | মোবাইল থেকে ইমেইল আইডি খোলার নিয়ম

ইমেইল আইডি খোলার নিয়ম কি? মোবাইল থেকে ইমেইল আইডি খোলার নিয়ম সম্পর্কে অনেকেই এখন জানতে চান। কেননা এখন google email account অনেক গুলি সুবিধা রয়েছে, আজকের যুগে আপনার ইমেল আইডি তৈরি করা খুব গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে।

বন্ধুরা, এখন আমাদের যদি ইন্টারনেটে কোনও অ্যাপ খুলতে হয় বা কারও কাছে মেইল ​​প্রেরণ করতে হয় বা অনলাইনে কিছু কিনতে হয়, তবে ইমেল আইডি ছাড়া এটি সম্ভব নয়।

ছাড়াও যদি আপনার একটি ইমেল আইডি তৈরি করা থাকে, তবে আপনি আপনার মোবাইলে সমস্ত অ্যাপ্লিকেশন যেমন – গুগল প্লে-স্টোর, ইউটিউব, গুগল ড্রাইভ ইত্যাদি চালাতে পারবেন সহজেই।

আরও পড়ুনঃ অনলাইন ব্যবসা করার নিয়ম

এর জন্য আপনাকে প্রথমে আপনার ডিভাইজ থেকে ব্রাউজারে যেতে হবে,

আপনি যে কোনও ব্রাউজার যেমন Mi Browser, Uc Browser  বা অন্য যে কোনও ব্রাউজারে যেতে পারেন, তবে আমি আপনাদের গুগল ক্রোম ব্রাউজার ব্যবহার করার পরামর্শ দেব, কারণ আমি আপনাকে গুগল ক্রোম ব্রাউজার থেকে ইমেইল আইডি খোলার নিয়ম জানাবো।

গুগল ক্রোমে কীভাবে ইমেইল আইডি খোলার নিয়ম তা শিখে নিন।

অন্য কোনও ব্রাউজারে হয়ত ইন্টারফেসটি আলাদা হবে,ট তবে ফেসবুক ইমেইল আইডি খোলার নিয়ম একী।

যদিও ইমেল আইডি তৈরির করার বেশ কিছু উপায় রয়েছ, তবে আপনি যখন একটি গুগল ইমেল আইডি তৈরি করেন, তখন এটিকে অনেকে জিমেইল আইডিও বলে থাকেন।

আপনি যে নামেই ডাকেন না কেন কাজ একই, কারণ এটি গুগলে তৈরি করা হয়, তাই এটি জিমেইল আইডি বলে।

বন্ধুরা আজ আপনাদের বলি যে ইমেল আইডি কিভাবে বানাবো।

ইমেইল আইডি খোলার নিয়ম | মোবাইল থেকে ইমেইল আইডি খোলার নিয়ম

ইমেইল আইডি খোলার নিয়ম হচ্ছে আপনি প্রথমেই আপনি আপনার ডিভাইজ থেকে আপনার ব্রাউজারটি ওপেন করুন। সেখানে আপনি google.com টাইপ করুন।

create google account লিখে গুগল সার্চ করুন। আপনারা সামনে কিছু লিংক আসবে। সেখান থেকে যে কোন একটি লিংক ক্লিক করুন।

এর পরে কিছু অপশন আপনার সামনে উপস্থিত হবে, আপনাকে আপনার নতুন জিমেইল আইডি তৈরি করতে হবে, সুতরাং আপনি আইডি তৈরি করতে Create Account বাটনে ক্লিক করতে হবে।

ইমেইল আইডি খোলার নিয়ম

বর্তমানে Create Account ক্লিক করলে দুটি অপশান দেখা যায়। একটি হচ্ছে myself অন্যটি হচ্ছে To manage my business. আপনি আপনার জন্য myself সিলেক্ট করুন।

মোবাইল থেকে ইমেইল আইডি খোলার নিয়ম

তারপর একটি ফর্ম আপনার সামনে আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের স্ক্রিনে উপস্থিত হবে, যাতে আপনাকে নির্দিষ্ট ফিল্ডে আপনার তথ্য গুলি পূরণ করতে হবে।

প্রথমত, আপনি নামটি পূরণ করার অপশান টি দেখতে পাবেন।

 জিমেইল আইডি কিভাবে তৈরি করবো

বন্ধুরা, এতে আপনি দুটি কলাম দেখতে পাবেন, একটি কলামে এটি “First Name” লিখতে হবে, এখানে আপনাকে নিজের নামের প্রথম অংশ লিখতে হবে।

উদাহরণস্বরূপ, ধরুন আপনার নাম সাজ্জাদ শেখ, প্রথম ফিল্ডে আপনি সাজ্জাদ, তাপর “Last Name” ফিল্ডে শেখ লিখবেন।

ইমেইল আইডি নেম কি 

তারপর আপনি Date Of Birth এর একটি কলাম দেখতে পাবেন। নিজের জন্ম তারিখটি লিখতে হবে এই কলামে। কলাম তিনটি অংশ পাবেন, প্রথম ফিল্ডে আপনাকে জন্মের মাস লিখতে হবে, দ্বিতীয়টিতে জন্মের দিন লিখতে হবে এবং তৃতীয় কলামে আপনাকে জন্মের বছর প্রবেশ করতে হবে।

এরপর লিঙ্গ নির্বাচন করতে হবে আপনি Male/ Female বা যাই হোন না কেন আপনি।

ইমেইল একাউন্ট তৈরী করার নিয়ম

বন্ধুরা এখন আপনি গুগল আইডির নাম তৈরি করবেন। ফেসবুক ইমেইল আইডি খোলার নিয়ম ও অন্য যে কোন কাজের জন্য email id তৈরি করার নিয়ম একই।

gmail id kivabe toiri korbo

এরপরে থাকা অপশান টি আপনার জন্য খুবি গুরুত্বপূর্ণ, আপনাকে এটিতে “Username” লিখতে হবে, তবে আমরা আপনাকে বলতে চাই এটি খুব সাধারণ প্রতিক্রিয়া। যেখানে আপনি আপনার নিজের ইমেল আইডির নাম নির্ধারণ করবেন।

উদাহরণস্বরূপ, ধরুন আপনার নাম সাজ্জাদ শেখ, তাহলে আপনি সাজ্জাদ নামের সাথে বিভিন্ন সংখ্যা সাথে যুক্ত করে একটি ইমেল আইডি নির্বাচন করতে হবে, আমি আপনাকে এখানে ৩ টি পৃথক উদাহরণ দেব।

  • sajjadsheikh1922
  • sajjadsk9870
  • sheikhsajjad9977

এগুলি কিছু উদাহরণ মাত্র, আপনি যা মনে রাখতে পারবেন তাই লিখুন যা আপনি সহজে মনে রাখতে পারবেন, আপনি চাইলে নিজের নামের পরে নিজের মোবাইল নম্বরটির কিছু সংখ্যা যুক্ত করে রাখতে পারেন।

এভাবেই ইমেইল আইডি খোলার নিয়ম।

এছাড়াও গুগল আপনাকে নীচে কিছু বিকল্প নাম সাজেশান দেখাবে, আপনি সেগুলি থেকেও একটি আইডি নাম বাছাই করতে পারবেন।

কারণ আইডিটি তৈরি করার সময় ঠিক একই নামে একাধিক আইডি তৈরি করা যায় না, তাই ইমেল আইডি তৈরি করার সময় এই জাতীয় আইডি তৈরি করতে আপনাকে সাথে সংখ্যা অথবা অন্য কোন সেম্বল যুক্ত করে আইডি নেম নির্বাচন করা উচিত যা আপনি মনে রাখতে সহজ হবে।

আপনি যদি একই নামে আইডি তৈরি করেন তবে এটি নাও পেতে পারেন এবং আপনার ইমেল আইডি কাজ করবে না।

ইমেল password নির্ধারণ

তারপরে আপনাকে তৃতীয় অপশানে যেতে হবে, তৃতীয় অপশানটি হচ্ছে পিন কোড লেখার জন্য।

“Create A Password ” পাসওয়ার্ড তৈরি করুন ফিল্ডে আপনি এমন একটি পাসওয়ার্ড তৈরি করুন যা কেউ হ্যাক করতে পারে না এবং আপনি সহজে মনে রাখতে পারেন।

গুগল আইডি পাসওয়ার্ড কিভাবে সেট করবো

আপনি যদি চান যে কেউ আপনার জিমেইল একাউন্ট সুরক্ষিত থাকুন তবে আপনাকে এই পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করতে হবে।

একটি শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরি করতে

কখনো আপনি নিজের-

  • মোবাইল নম্বর ব্যাবহার করবেন না,
  • আপনার বাড়ির নাম বা ঠিকানা ব্যাবহার করবেন না,
  • বা আপনার গাড়ির নম্বর ব্যাবহার করবেন না।
  • এ জাতীয় পাসওয়ার্ড গুলি দ্রুত হ্যাক হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

সুতরাং, আমি মনে করি আপনার ইমেল পাসওয়ার্ড এমন নম্বর বা সংখ্যা নির্বাচন করা উচিত যা আপনি সহজে মনে করতে পারেন।

যেন আপনার পাসওয়ার্ড টিতে আপনি শক্তিশালী করে তৈরি করেন তাই আপনাকে কিছু জিনিস লক্ষ্য রাখতে হবে-

  • এলেমেলো সংখ্যার ব্যাবহার। যেমন- 145978
  • বড় হাতের অক্ষর ও ছোট হাতের অক্ষর ব্যাবহার। যেমন- A1b23fr
  • অন্তত একটি হলেও স্পেশাল ক্যারেক্টার ব্যাবহার করুন।যেমন- [email protected]@135

Password নম্বর এবং সংখ্যা গুলি এমনভাবে বাছাই করা উচিত যাতে কেউ হ্যাক করতে না পারে এবং আপনার মনে থাকে।

গুগল মনে করে আপনার Password সর্বনিন্ম ৮ সংখ্যার পাসওয়ার্ড হওয়া উচিত।

উদাহরন সরুপঃ ([email protected])

প্রথম ফিল্ডে পাসওয়ার্ড দেয়ার পরে, আপনাকে আবারো একই পাসওয়ার্ড “Confirm Password” ফিল্ডে নিশ্চিত করে পুরন করতে হবে।

এই পর্যন্ত ঠিক থাকলে আপনি এখন Next বাটনে ট্যাব করে পরবর্তীতে যেতে পারেন।

এখন আপনি Next করার পর আপনাকে আরও কিছু ফিল্ড পূরণ করতে হবে।

১. যদি চান তবে আপনি নিজের মোবাইল নম্বরটি আপনার আইডিতে যুক্ত করতে পারেন এবং চাইলে এটি ছেড়ে দিতে পারেন। তবে সম্ভব হলে ভাল, পরবর্তীতে আপনার এটি প্রয়োজন হতে পারে।

আপনি যদি ইমেল আইডি টি ভুলে যান তবে আপনি এটি মোবাইল নম্বর থেকেও মুছে ফেলতে পারেন।

তাছাড়া মোবাইল নম্বর দিয়েও আপনার ইমেল আইডি রিকভার ও Password পরিবর্তন করতে পারবেন।

২. আরও একটি অপশানে আপনি “Recovery Email Address” পাবেন এতে আপনি অন্য ব্যক্তির বা আপনার কোন ইমেল আইডি প্রবেশ করতে পারেন। এটিও ঐচ্ছিক একটি অপশান, আপনি এটি খালিও রেখে দিতে পারেন।

⇒ যদি কোনও কারণে আপনি Gmail অ্যাকাউন্ট লগইন না করে, তবে Recovery Email Address প্রয়োজন হতে পারে। তাই, আমি দিয়ে ররাখলে ভালো।

গুগলে মোবাইল নাম্বার ভেরিফাই

আপনার নম্বর দিয়ে ইমেইল আইডি ভেরিফাই করা থাকলে আপনি সহজেই আপনার আইডি পুনরুদার করতে পারবেন।

google মোবাইল নাম্বার ভেরিফাই

 

গুগল Privacy And Terms

এখন Next এ যাওয়ার পরে আপনাকে এখন গুল্গল “গোপনীয়তা এবং শর্তাদি” দেখাবে। যার মধ্যে গুগল Privacy And Terms গোপনীয়তা বিস্তারিত লেখা থাকবে।

গুগল Privacy And Terms

বন্ধুরা এখন আপনার Gmail অ্যাকাউন্ট প্রস্তুত। আপনি এই ধরনের ইন্টারফেস দেখতে পাবেন আপনার সামনে।

ইমেইল আইডি খোলার নিয়ম

আপনার ইমেইল একাউন্ট তৈরী করা শেষ হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ তথ্য প্রযুক্তি কি? তথ্য প্রযুক্তি কাকে বলে 

গুগল একাউন্ট কি

এখন আপনার ইমেইল একাউন্ট তৈরী শেষে নিশ্চয়ই মনে হতে পারে ইমেইল একাউন্ট কি? বন্ধুরা আগে আমাদেরকে দূর দুরান্ত থেকে চিঠি পাঠানো হত।

কিন্তু বর্তমান যুগে এটি আরও ডিজিটাল হয়ে হাতের মুঠোয় চলে এসেছে। বর্তমানে ইন্টারনেট যে কোন কাজে আপনার একটি ইমেইল একাউন্ট থাকতে হবে।

তাই আপনি বলতে পারেন ইমেইল একাউন্ট হচ্ছে আপনার ইন্টারনেট দুনিয়ার আইডেন্টিটি। কেননা ইমেইল একাউন্ট নামেই আপনাকে সকলে চিনবে এবং আপনার সাথে যুগাযোগ করার সেরা উপায় এটি।

এখন আপনার একটা ইমেইল একাউন্ট তৈরী করা থাকলে বিশ্বের যে কোন প্রান্ত থেকে বার্তা প্রেরন করতে পারবে যে কেউ।

এখন আপনি সহজেই যে কোন ইমেল ইউজারকে মেইল প্রেরণ এবং গ্রহণ করতে পারেন।

কেবল এটিই নয়, এখন আপনি খুব সহজেই আপনার গুগল প্লে-স্টোর ও ইউটিউব অ্যাক্সেস করতে সক্ষম হবেন আপনার মোবাইল থেকে।

বন্ধুরা ইমেইল আইডি খোলার নিয়ম জেনে আইডি খোলার পর এখন আপনার জন্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে ইমেল আইডি এবং পাসওয়ার্ড মনে রাখা। সেই সাথে যে মোবাইল নম্বর ব্যাবহার করেছেন তা ভেরিফাই করে নেয়া।

পোষ্টের এই পর্যায়ে কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়!

আমি আমার SAMSUNG Galaxy A50 ফোনে ক্রোম ব্রাউজার থেকে এগুলি করেছি, আপনি যদি অন্য কোনও mobile বা ব্রাউজারে এগুলি করেন তবে আপনি কিছুটা আলাদা ইন্টারফেস দেখতে পাবেন।

আপনার যদি ইমেল আইডি তৈরিতে কোনও ধরণের সমস্যা হয় তবে আপনি সরাসরি মন্তব্য বাক্সে গিয়ে আমাদের জিজ্ঞাসা করতে পারেন।

আশা করি এখন আপনি নিজে নিজে এখন ইমেল আইডি কিভবে খুলবেন তা শিখেছেন।

আরও পড়ুনঃ

ফেসবুক ইমেইল আইডি খোলার নিয়ম

বন্ধুরা আপনি সকল ধরণের কাজ একটি মাত্র ইমেইল আইডি দিয়ে সম্পন্ন করতে পারবেন।

আশা করি আপনি ফেসবুক ইমেইল আইডি খোলার নিয়ম সম্পর্কে জানতে পেরেছেন।

ইমেইল আইডি খোলার নিয়ম জানার পর কিছু পরামর্শ

  • বন্ধুরা আপনি কখনোই আপনি আপনার ইমেল পিন কোড কারো সাথে সেরার করবেন না।
  • ইমেল আইডি আপনার নামের সাথে মিল করে রাখার চেষ্টা করুন।
  • ইমেলে আশা সকল লিংকে নাজেনে ক্লিক করবেন না।
  • অন্যথায় আপনার সকল তথ্য বেহাত হতে পারে।

আপনার মূল্যবান সময় দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ! আশা করি আপনি নতুন করে ইমেইল আইডি খোলার নিয়ম সম্পর্কে জেনেছেন।

Leave a Comment

five + two =