কিভাবে ব্লগার হওয়া যায় | ব্লগিং করতে হলে কি করতে হবে

কিভাবে ব্লগার হওয়া যায় এমন প্রশ্ন এখন অনেক বাংলাদেশি তরুণদের মনে। ব্লগার হতে হলে আপনি প্রথমেই আপনার মধ্যে লেখালেখি করার অভিজ্ঞতা রয়েছে কিনা তা যাচাই করুন।

এমন অনেকেই রয়েছেন তারা ব্লগ শুরু করে কোন কিছু চিন্তা ভাবনা না করে।

কিছুদিন পরে তাদের কাছে মনে হয় যে তাদের লেখালেখি করতে ভাল লাগছে না। এমনটা মনে হলে ব্লগিং কে পেশা হিসাবে নিতে হলে আপনাকে অবশ্যই লিখার দিকে নজর দিতে হবে।

বিটকয়েন কি

তবে আপনার কাছে যদি টাকা থাকে তবে আপনি কন্টেন্ট রাইটার হায়ার করতে পারেন, সে আপনার জন্য পোস্ট লিখবে এবং আপনি তাকে টাকা প্রদান করবেন।

কন্টেন্ট রাইটার দিয়ে পোস্ট লিখে নিবেন, এমনটা করতে হলেও আপনার কাছে কিভাবে একটি ভালো ব্লগ পোস্ট লিখতে হয় সেই সম্পর্কে ভালো জ্ঞান থাকা জরুরী। 

যাই হোক আমাদের দেশে যারা গুগল সার্চ করে কিভাবে ব্লগার হওয়া যায় তারা নিশ্চয়ই টাকা দিয়ে কন্টেন্ট লিখাবেন না। 

তবে লিখাবেন না এমনটা নয় আপনার ব্লগ টি যদি একটি সফল ব্লগ হয় এবং আপনি ব্লগ থেকে ভালো পরিমান টাকা আয় করা শুরু করেন তখন আপনার কন্টেন্ট রাইটার লাগবে।

এছাড়াও সঠিক নিয়মে ব্লগিং করলে আপনাকে টিম গঠন করে কাজ করার দরকার পরবে।

আশা করি ব্লগার হওয়ার জন্য আপনি আমাদের কাছ থেকে সঠিক ধারণা পাবেন।

কিভাবে ব্লগার হওয়া যায়? 

ব্লগিং করতে হলে কি করতে হবে
ব্লগিং করতে হলে কি করতে হবে

একজন সফল ব্লগার হতে হলে আপনাকে প্রথমে এসিও অপটিমাইজ ব্লগপোস্ট লিখা জানতে হবে।

আপনার লেখা কন্টেন্ট গুলি আপনাকে একজন সফল ব্লগার হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করবে। 

How to add bkash priyo number

একটি ফ্রি ব্লগ তৈরি করেও আপনি ব্লগার হতে পারেন। আশা করি কিভাবে ব্লগার হওয়া যায় এই প্রশ্ন পরিস্কার হয়েছে। 

কিভাবে ব্লগার হওয়া যায় এবং ব্লগিং করতে হলে কি করতে হবে? 

অনেক নতুন ভাই ও বোনেরা ব্লগিং শুরু করার সাথে সাথেই ব্লগিং করে দ্রুত টাকা আর চিন্তা করে থাকেন। 

মূলত ব্লগ থেকে টাকা কত দিনে আশে ও কি কি সমস্যা মোকাবিলা করতে হবে ব্লগ থেকে টাকা আয় করতে হলে এই সম্পর্কে একদম চিন্তা করেননা।

তাই তাদের ব্লগিং ক্যারিয়ারকে লম্বা সময় পর্যন্ত চলে না।

ব্লগিং করতে হলে আপনাকে অবশ্যই ধৈর্য ধারণ করতে হবে। এমন অনেক সফল ব্লগার রয়েছেন যাদের প্রথম ব্লগে তারা এক থেকে দেড় বছর কাজ করেও কোন ধরনের অর্থ উপার্জন করতে পারেন নি।

এমন অনেক লোক রয়েছেন যাদের প্রথম কয়েকটি ব্লগ সফলতা পায়নি। তথাপিও তারা ব্লগিং ছেড়ে দেননি, কেননা তারা ব্লগ থেকে টাকা আয় করতেই হবে এমনটা না ভেবে ব্লিগিং কে নিজের ফেশন হিসাবে নিয়েছেন এবং ধৈর্য ধারণ করেছেন। 

তথাপিও তারা ব্লগিংকে কন্টিনিউ করেছেন এবং নিজেদেরকে একজন সফল ব্লগার হিসেবে প্রস্তুত করেছেন।  

ব্লগিং করে সফল হতে

আপনার যদি কোন বিষয়ে খুব বেশি দিন ব্লগ লিখতে ভালো ন লাগে এবং আপনি যদি খুব তাড়াতাড়ি আয় করতে চান তবে অবশ্যই ব্লগিং পেশা আপনার জন্য উপযুক্ত নয়।

তবে হা আপনার লেখালেখি প্রতি কিরকম আগ্রহ রয়েছে এই বিষয়টি আপনাকে একজন সফল ব্লগার বানাতে পারে।

সেই সাথে ব্লগিং পেশায় নানা ক্ষেত্রে আপনাকে ধৈর্যের পরীক্ষা তো দিতেই হবে।

একসময় আপনার লেখাগুলো গুগলের প্রথম পেজে রেঙ্ক হবে আপনার ওয়েবসাইটে পর্যাপ্ত পরিমান ভিজিটর আসবে এবং প্রতি মাসে একটি ভালো পরিমাণ টাকা আপনি ব্লগ থেকে আয় করবেন এমন উদ্দেশ্য নিয়েই অনেকে ব্লগিং করে থাকেন।

আপনিও এমন টা করতে পারেন কোন সমস্যা ,বর্তমানে এমন অনেক উদাহরণ রয়েছে যারা ব্লগিং কে নিজের পেশা হিসেবে তৈরি করেছেন এবং তাদের জীবনের যাবতীয় খরচ তারা ব্লগিং থেকে উপার্জিত টাকা থেকেই ব্যয় করে থাকেন। 

আপনি যদি মনে করেন যে আপনি ব্লগিং শুরু করতে চাচ্ছেন তবে নির্দ্বিধায় করে ফেলুন। শুরুতে আপনি গুগল blogspot ব্যবহার করে একটি ফ্রি ব্লগ খুলতে পারেন।

ওয়ার্ডপ্রেস.org থেকেও এখন আপনি ফ্রি ব্লগ তৈরি করতে পারবেন। 

তবে আপনার কাছে যদি কিছু টাকা থাকে তবে আপনি ওয়ার্ডপ্রেস ব্যাবহার করুন। ওয়ার্ডপ্রেস ব্যাবহার করতে আপনার একটি ডোমেন ও Hosting ক্রয় করতে হবে।

বাংলাদেশের বাজারে অনেক গুলি কোম্পানি থেকে আমি ডোমেন ও Hosting ব্যাবহার করেছি।

অনেক Hosting কোম্পানির সার্ভিস ভালো পেয়েছি, আবার অনেকের কিছু সমস্যা রয়েছে। 

তবে ডোমেন ও Hosting দাম ও সার্ভিস বিবেচনায় ওয়েবহোস্ট বিডি ভালো সার্ভিস দিচ্ছে। আমি আমার একটি ওয়েবসাইট বিগিত ৩ বছর যাবত ব্যাবহার করছি। তাদের সেবা অনেক ভালো।

এখন আপনি মাত্র ২০০০ টাকায় ১ বছরের জন্য একটি ডোমেন এর সাথে ১ বছরের জন্য Hosting পাবেন।

একজন নতুন ব্লগার ও একটি নতুন ব্লগ চালু করার জন্য যথেষ্ট। 

Webhost থেকে ডোমেন ও Hosting কিনতে এখানে ক্লিক করুন। 

ব্লগের জন্য নিশ নির্বাচন

কিভাবে ব্লগার হওয়া যায়
ব্লগিং নিশ কি?

ব্লগ নিশ কি? ব্লগ নিশ হচ্ছে ব্লগের বিষয়, যে বিষয়ে আপনি ব্লগ শুরু করতে চাচ্ছেন। বর্তমানে আপনি যে কোন কাজ শুরু করার পূর্বে কোন না কোন প্লানিং করতে হয়। 

একটি ব্লগ তৈরি করার পূর্বে আপনার উচিৎ আপনার ব্লগ নিশের উপর কিছু দিন রিচার্জ করা। 

কেননা আপনি যে বিষয়টি সম্পর্কে লিখতে চাচ্ছেন সে বিষয়টি গুগলে লোকেরা সার্চ করেকিনা তা আপনার জানা জরুরী।

আমি আপনাকে বলছি আপনার জীবনের প্রথম ব্লগতি আপনি গুগলে সার্চেবল কন্টেন্টের উপর তৈরি করুন।

তবেই আপনার ব্লগিং ক্যারিয়ার তাড়াতাড়ি আগে বাড়বে।

ধরুন টেলিকম একটি নিশ। টেলিকম নিশের মধ্যে রয়েছে টেলিকম যন্ত্রাংশ, টেলিকম সিম অফার ইতাদি। 

ধরুন চাকরি একটি নিশ। চাকরির নিশের মধ্যেও অনেক ধরনের চাকরি রয়েছে। সরকারি চাকরি, বেসরকারি চাকরি, NGO চাকরি ইত্যাদি। 

আমি বলবো আপনি একটি মাইক্রো নিশ খূজে বের করুণ আপনার পছন্দের বিষয়ের উপর। আপনি যদি সঠিক মাইক্রো নিশ নির্বাচন করে কন্টেন্ট লেখা শুরু করেন, তবে আপনি তিন মাসের মধ্যে ভালো রেজাল্ট পাবেন। 

কিওয়ার্ড রিচার্জ ( keyword recharge )

কিওয়ার্ড কি? মূলত কিওয়ার্ড হচ্ছে কোন লেখাটি লিখে লোকেরা গুগলে সার্চ করে থাকে সেই শব্দ।

আপনাকে যে কোন ব্লগ পোস্ট লেখার পূর্বে অবশ্যই সঠিক এবং লো কপিটিশান কিওয়ার্ড খুঁজে বের করতে হবে।

আপনার লেখা ব্লগ পোস্ট গুগলে রেঙ্ক হওয়ার জন্য একটি প্রধান শর্ত হচ্ছে একটি সঠিক লোকপিটিশান কিওয়ার্ড।

বন্ধুরা আপনার প্রশ্ন কিভাবে ব্লগার হওয়া যায়? 

আমি বলবো আপনি যদি আমার পূর্বে লেখা গুলি ভালো ভাবে পড়ে থাকেন তবে আপনাকে শুরু করে দেয়া উচিৎ। 

কেননা ব্লগিং আপনি একদিনে শিখে যাবেন না। শুরু করুন ধীরে ধীরে শিখতে পারবেন। আমি ও ইউটিউব ভিডিও আপনার সঙ্গী।

এখন গুগলে সঠিক নিয়মে সার্চ করলে ব্লগিং সম্পর্কে সকল তথ্য পাওয়া যায়। 

এছাড়াও আপনি যদি নিজের লেখালেখির স্কিল কে প্রথমে দেখতে চান তবে অবশ্যই আপনি বিভিন্ন ব্লগ গুলোতে নিজের লেখা জমা দিতে পারেন।

বাংলাদেশে এমন অনেক সাইট রয়েছে যারা বর্তমানে কনটেন্ট রাইটারকে লেখার জন্য পারিশ্রমিক দিচ্ছে।

আপনি চাইলে কাজটি ব্লগ পোস্ট লেখার কাজটি করতে পারেন এবং আপনি চাইলে টাকার বিনিময়ে ব্লগ লিখতে পারেন। 

এটা একান্তই আপনার ব্যক্তিগত ব্যাপার। তবে আপনার কাছে সুযোগ রয়েছে কিছু টাকা আয় করে নেয়ার।  

কেননা আপনি চাইলে এক বছরের ডোমেন ও Hosting খরচ অন্য ব্লগে ব্লগ পোস্ট লিখে আয় করতে পারেন।

এতে আপনার ব্লগ পোস্ট লেখা শিখা হল এবং আপনি টাকাও পেলেন।

তবে আমরা বর্তমানে ব্লগ লিখে আয় করার উপায় যারা খুঁজছেন তাদের খুজছি।

What is Graphic Design Bangla? গ্রাফিক্স ডিজাইন কি ও গাইডলাইন

Robi Minute Bundle Offer 2022 | New Robi Minute Pack List 

মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় ২০২২ | ৬ টি সহজ পদ্দতি

Tin Certificate BD Registration Download | টিন সার্টিফিকেট বের করার নিয়ম

বাংলালিংক মাসিক ইন্টারনেট প্যাকেজ 2022 | Banglalink 30 Days net pack

ব্লগ সম্পর্কে কিছু কথা

ব্লগার অর্থ কি?

ব্লগ শব্দের অর্থ হচ্ছে একটি অনলাইন ব্যক্তিগত দিনলিপি বা ব্যক্তিকেন্দ্রিক পত্রিকা। ব্লগ শব্দটি ওয়েবব্লগের সংক্ষিপ্ত রূপ। যারা এই ব্লগ গুলি পরিছালনা করেন বা লেখেন তাদের ব্লগার বলা হয়।

কিভাবে ব্লগার হওয়া যায়?

একজন সফল ব্লগার হতে হলে আপনাকে প্রথমে একটি ব্লগ তৈরি করতে হবে এবং তাতে নিয়মিত লিখতে হবে।

বাংলাদেশে কি ব্লগিং করে টাকা আয় করা যায়?

১০০% যায় আমি নিজেও একজন পারটাইম ব্লগার এবং আমি বাংলাদেশে বাংলায় ব্লগ লিখে টাকা আয় করছি। আপনি ছাইলেও পারবেন।

উপসংহার 

আশা করি আপনি জানতে পেরেছেন কিভাবে ব্লগার হওয়া যায়। ব্লগিং করতে হলে কি করতে হবে এই সম্পর্কে আপনার আরও জানার থাকে কমেন্ট করুন। 

ব্লগিং ও ব্লগ তৈরি সম্পর্কে নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের সাথে থাকুন। 

জয়েন করুন আমাদের ফেসবুক পেজ

Leave a Comment

1 × 2 =