সিম কার নামে নিবন্ধন করা কিভাবে জানবো

আমার ব্যবহার করা সিম কার নামে নিবন্ধন করা এই সম্পর্কে আমার জানা অত্যন্ত জরুরী। মূলত আপনি নিজেই যদি নিজের সিম ক্রয় করে থাকেন তবে এ বিষয়ে আপনি 100 পার্সেন্ট নিশ্চিত। তবে আপনার আইডি কার্ড তৈরি হওয়ার আগে যদি আপনি মোবাইল ব্যবহার করেন তবে অবশ্যই সিম আপনি অন্য কারো নামে আপনি ক্রয় করেছেন। 

আমার আইডি কার্ড হওয়ার পূর্বে আমি আমার ভগ্নিপতির নামে একাধিক সিম রেজিস্ট্রেশন করেছি।

এখন আমার কাছে (NID) আইডি কার্ড আছে এবং আমার আইডি কার্ডের নামেও আমি একাধিক সিম রেজিস্ট্রেশন করেছি.

তাই এখন আমি  কিছুটা হলেও চিন্তিত আছি কোন সিম কোন আইডি কার্ড দিয়ে খোলা হয়েছিল।

এছাড়াও বর্তমানে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা একাউন্ট আমরা প্রতিনিয়ত ব্যবহার করে থাকি। 

যেকোনো একটি সিমে আপনি মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট খুলতে পারেন। ধরুন আমি এমন একটি নাম্বারে মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট খুলেছি যেটাতে আমার রেগুলার লেনদেন সম্পন্ন হয় এবং ওই অ্যাকাউন্টে যদি অন্য কারো নাম হয়ে থাকে সেটি রিপ্লেস করে নিলে আমার সমস্ত টাকা তার কাছে চলে যাবে এক্ষেত্রে আমার কিছু করণীয় থাকবে না। 

সিম কার নামে নিবন্ধন করা এ বিষয়টি জানার পাশাপাশি আমাদের জানা প্রয়োজন আমার নিজের নামে কয়টি সিম রয়েছে।

কেননা বর্তমানে বাংলাদেশে বিটিআরসির নিয়ম অনুসারে একটি নামে বা NID card এ সর্বোচ্চ পর্যন্ত রাখা যাবে 15 টি, এর বেশি থাকলে ঐ সিম গুলো বন্ধ করে দেয়া হবে।

তাই সিম কার নামে নিবন্ধন করা এবং বর্তমানে আপনার ভোটার আইডি দিয়ে কতটি সিম রয়েছে সকল বিষয়ে জানতে সম্পূর্ন পোস্ট পড়ুন। 

সিম কার নামে নিবন্ধন করা? সিম রেজিস্ট্রেশন চেক অনলাইন

সিম কার নামে নিবন্ধন করা কিভাবে জানবো
সহজে সিম কার নামে নিবন্ধন করা

সহজে সিম কার নামে নিবন্ধন করা বিষয়টি জানার জন্য আপনাকে ইউএসএসডি কোড পদ্ধতি ব্যবহার করতে হবে, অথবা বাংলাদেশের চলমান টেলিকম অপারেটর কোম্পানিগুলোর সার্ভিস সেন্টারে গিয়ে জানতে হবে। 

আপনি সঠিকভাবে একটি সিমের জন্য নিশ্চিত করতে পারবেননা সিমটি কার নামে নিবন্ধন করা।

তবে আপনি আপনার আইডি কার্ড দিয়ে চেক করতে পারবেন এই সিমটি আপনার নামে কিনা।

কারণ আপনার আইডি কার্ড একটি ইউএসএসডি কোডের মাধ্যমে প্রদান করার ফলে আপনাকে ফিরতি এসএমএস এর মাধ্যমে আপনার নামে কয়টি সিম রয়েছে তা জানানো হয়ে থাকে।  

ইউএসএসডি কোডের মাধ্যমে সিম কার নামে নিবন্ধন করা চেক করতে আপনার মোবাইলে ফোন থেকে *১৬০০১# ডায়াল করুন।  

সিম কার নামে নিবন্ধন চেক করতে

  • তাই বলতে পারেন সিম কার নামে নিবন্ধন করা জানতে চেক কোড হচ্ছে *১৬০০১#।
  • প্রথমেই আপনি আপনার নামে ব্যাবহার করা সিম থেকে এই কোড ডায়াল করুন, তারপর স্ক্রিনে একটি পপ-আপ আসবে।
  • NID (ভোটার আইডির) শেষ ৪ টি সংখ্যা লিখুন। যে নামের সিম নিবন্ধন চেক করতে চাচ্ছেন ঐ নামের আইডি নম্বরের সেস ৪ সংখ্যা লিখে এন্টার চাপুন, 
  • এবং পরবর্তীতে আপনি NID এর অধীনে নিবন্ধিত ফোন নম্বরগুলির তালিকা সম্বলিত একটি এসএমএস বার্তা পাবেন।

এখন এসএমএস টিতে আপনি জানতে পারবেন Nid দিয়ে কয়টি সিম রেজিস্ট্রেশন হয়েছে।

এই পদ্ধতিতে সিম কার নামে নিবন্ধন করা জানা সম্ভব।

আরও পড়ুনঃ ব্লগ লিখে আয় করার উপায় | ঘরে বসে বাংলা লিখে টাকা আয় করুন! বিকাশ পেমেন্ট

তবে মনে রাখবেন ঠিক সিমটি কার নামে এই বিষয়টি জানার জন্য প্রথমে জানা প্রয়োজন এই আইডি কার্ডের অধীনে এই সিম নম্বর টি রয়েছে কিনা যদি থেকে থাকে তবে আপনি কনফার্ম।

অন্যথায় আপনাকে উক্ত সিম কোম্পানির অফিসে সশরীরে উপস্থিত হয়ে তাদের কাছে প্রয়োজনীয় তথ্য উপস্থাপনের মাধ্যমে সিমটি কার নামে রয়েছে এই বিষয়টি জানতে পারেন। 

এই পদ্দতিতে সিম নিবন্ধন রেজিস্ট্রেশন চেক করা হলে আপনার নামে গ্রামীণফোন, বাংলালিংক, রবি, এয়ারটেল, টেলিটক কোম্পানির কতটি সিম রয়েছে তা দেখানো হবে এসএমএসের মাধ্যমে।

এসএমএসে অপারেটর কোড এবং সিমের সর্বশেষ 4 সংখ্যা এসএমএসের মাধ্যমে আপনাকে জানানো হবে।

এবং এসএমএস থেকে আপনি নির্বাচন করে নিতে পারবেন।

আসলে ঐ সিমটি আপনার নামে নিবন্ধন করা রয়েছে কিনা যদি আপনার নামে নিবন্ধন করা থাকে ওই নাম্বারটি প্রদর্শিত হবে।

তবে এই পদ্ধতিতে আপনি সম্পন্ন মোবাইল নাম্বারটি সম্পর্কে জানতে পারবেন না।

উদাহরনঃ 88017*****224, বাংলালিংক হলেঃ 88019*****778

আরও পড়ুনঃ

নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন করার নিয়ম অনলাইনে

সিম নাম্বার দিয়ে আইডি কার্ড বের করা

অনেকেই চিন্তা করেন পরিচিতজনের মোবাইল নাম্বার টি ব্যবহার করে ভোটার আইডি কার্ড নাম্বারটি বের করার।

সিম নাম্বার দিয়ে আইডি কার্ড বের করা সম্ভব তবে তা সাধারণ জনগণ নয়, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে এই ধরনের তথ্য অ্যাক্সেস করার অনুমতি রয়েছে। 

আরও পড়ুনঃ Birth Registration Certificate Check Online BD

তাই আপনি সিম নাম্বার দিয়ে আইডি কার্ড বের করার বৃথা চেষ্টা থেকে বিরত থাকুন।

Nid দিয়ে কয়টি সিম নিবন্ধন/রেজিস্ট্রেশন হয়েছে

একটি এনআইডি কার্ড দিয়ে কতটি সিম রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে এই বিষয়টি জানার জন্য উপরোক্ত দেখানো সিম নিবন্ধন চেক করার কোড ব্যাবহার করতে পারেন। 

এসএমএস আপনার nid কার্ডে কতটি সিম রয়েছে তা জানতে পাবেন।

তবে বাংলাদেশ টেলিকম সংস্থা বিটিআরসির নিয়ম অনুসারে বর্তমানে আপনি সর্বোচ্চ 15 টি সিম রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন।

তাই প্রয়োজনীয় সিমগুলো রেখে করুন অপ্রয়োজনীয় সিম গুলো ক্যানসেল করে দিন।

আরও পড়ুনঃ NID BD Helpline Number

সিম নিবন্ধন বাতিল করার নিয়ম

সিম কার নামে নিবন্ধন করা এই বিষয়টি জানা হলে এবং আপনার নামে কয়টি সিম রয়েছে এই সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানার পর এখন আপনার জানা প্রয়োজন, অপ্রয়োজনীয় সিম বন্ধ করতে চাইলে আপনার করনীয় কি। 

দেশে চলমান টেলিকম অপারেটর গুলি হচ্ছে রবি, গ্রামীন,বাংলালিংক,এয়ারটেল এবং টেলিটক।

একটি সিম কে কোন কারনে ব্লক করে রাখতে চাইলে আপনি হেল্প লাইনে কল করে ব্লক করতে পারেন।

তবে আপনার নাম থেকে মুছে ফেলতে হলে আপনাকে উক্ত টেলিকম অপারেটর এর সার্ভিস সেন্টারের সশরীরে উপস্থিত হতে হবে।

তারা আপনার কাছ থেকে প্রয়োজনীয় তথ্য প্রমাণ যাচাই শেষে আপনার নাম থেকে সিমটির নিবন্ধন বাতিল করে দিবে।

সিম নিবন্ধন সম্পর্কে কিছু প্রশ্ন ও উত্তর

সিম নিবন্ধন বাতিল করার নিয়ম?

আপনার আইডি কার্ডে কত টি সিম রয়েছে বা সিম কার নামে নিবন্ধন করা নিশ্চিত হলে আপনি আপনার সিম কম্পানির নিকটস্থ সার্ভিস সেন্টারের সশরীরে উপস্থিত সিমের নিবন্ধন বাতিল করতে পারবেন।

রবি সিম রেজিস্ট্রেশন চেক অনলাইন?

রবি সিম সহ দেশের যেকোনো টেলিকম অপারেটর সিম অনলাইন চেক করতে আপনাকে একটি ইউএসএসডি কোড ব্যবহার করতে হবে।
সিম রেরেজিস্ট্রেশন অনলাইন চেক কোড *১৬০০১# ডায়াল করে আপনার ভোটার আইডি কার্ডের সর্বশেষ 4 সংখ্যা দেওয়ার পর আপনার কাছে একটি এসএমএস চলে আসবে।
এসএমএস এর মাধ্যমে আপনি আপনার ভোটার আইডি কার্ডের অধিনে থাকা সকল টেলিকম অপারেটর এর সিম নাম্বার সমূহের লাস্ট ৪ ডিজিট ও অপারেটর কোড সহ দেখতে পাবেন।

আরও পড়ুনঃ

উপসংহার,

আশা করি আপনি সিম কার নামে নিবন্ধন এই সম্পর্কে জানতে পেরেছেন।

বাংলাদেশের চলমান সকল সিম অপারেটরের ইন্টারনেট অফার মিনিট অফার কলরেট অফার ও অন্যান্য সকল সমস্যা সম্পর্কে জানতে আমাদের ওয়েবসাইট টি রেগুলার ভিজিট করুন।

কিভাবে ব্লগার হওয়া যায় | ব্লগিং করতে হলে কি করতে হবে জানুন।

এবং জয়েন করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Leave a Comment

5 × 3 =