নবীন বরণ অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্য কিভাবে দিবেন । সঠিক নিয়ম জানুন

নবীন বরণ অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্য কিভাবে দিতে হয় আপনি জানেন কি? আজ আমরা এই পোস্টের মাধ্যমে জানব কিভাবে নবীন বরণ অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্য দিতে হয়।

কলেজ বা ইউনিভার্সিটি জীবনের প্রথম দিনটিতে যে অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ছাত্র-ছাত্রীদের বরণ  করে নেওয়া হয় তাকে নবিন বরণ অনুষ্ঠান বলা হয়।

নবীন বরণ অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে ছাত্র- ছাত্রিদের অনেক আনন্দ উল্লাস দেখা যায়। 

প্রায় সময় নবাগত শিক্ষার্থীদের আমন্ত্রণ করার জন্য তাদের উদ্দেশ্যে স্বাগত বক্তব্য দেওয়ার  প্রয়োজন পড়ে।

আজকের আর্টিকেলটি মূলত নবীন বরণ অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্য নিয়ে লেখা। 

আজকের আর্টিকেলটি পড়লে আপনি নবীন বরণ অনুষ্ঠানের জন্য একটি সুন্দর বক্তব্য পেয়ে যাবেন।

তাই নবীন বরণ অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্য সম্পর্কে একটি পরিপূর্ণ ধারণা পেতে আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়ুন।  

কিভাবে নবীন বরণ অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্য দিবেন ১: কলেজের জন্য 

কিভাবে নবীন বরণ অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্য দিবেন
কিভাবে নবীন বরণ অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্য দিবেন

মঞ্চে উপস্থিত সম্মানিত সভাপতি, আমার শ্রদ্ধেয় শিক্ষকমন্ডলী, নবাগত শিক্ষার্থীবৃন্দ, আমার সহপাঠী ও সিনিয়র ছাত্রছাত্রী ভাই – বােনেরা ,

আস্সালামু আলাইকুম ।

আমি আমার বক্তব্যের শুরুতেই কলেজের / ইউনিভার্সিটির নবাগত ভাইবােনদের জানাই শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

আমরা তােমাদের অন্তরের অন্তঃস্থল থেকে উষ্ণ আবেগে, ভালােবাসার আশ্বাসে একান্ত নিবিড় করে গ্রহণ করলাম।

তােমাদের আগমন শুভ হােক। এই শিক্ষায়তনের উন্মুক্ত অঙ্গনে তােমরা জীবন বিকাশে সক্ষম হও, সফল হও — এটাই আমাদের একান্ত কামনা। 

প্রিয় ভাই ও বােনেরা ,

তােমরা স্কুল জীবন পেরিয়ে আজ কলেজ নামক বৃহত্তর শিক্ষায়তনে এসেছ।

স্কুলের সংকীর্ণ আবদ্ধ পরিসর, বাঁধাধরা নিয়মবিধির থেকে কলেজের পরিসর অতি উদার, এখানকার সামগ্রিক পরিবেশও অনেক বেশি উন্মুক্ত।

এই পরিবেশে মতামত প্রকাশ, ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত গ্রহণ ইত্যাদি বিষয়ে রয়েছে অনেক বেশি স্বাধীনতা।

আশা করা যায় তােমরা এখানেে একজন পূর্ণ মানুষের স্বীকৃতিতেই আত্মনির্মাণ ও আত্মবিকাশে সক্ষম হতে পারবে। 

প্রসঙ্গক্রমে তোমাদের একটি উপদেশ না দিয়ে পারছি না।

এ কথাটি আমাদের সবারই জানা যে, স্বাধীনতা অর্জনের চেয়ে তাকে রক্ষা করা অধিকতর কষ্টকর । তােমাদের ক্ষেত্রে এই কথাটি আরও বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

তোমরা এই স্বাধীনতার যে সুযােগ পাচ্ছো আশা করি তা সঠিকভাবে কাজে লাগাবে।

তােমরা তোমাদের বৃহত্তর জীবনের এই আহবানে নিজেদেরকে  আগামী জাতীর কাণ্ডারী – রূপে গড়ে তুলতে সচেষ্ট থাকবে, এটাই সবার প্রত্যাশা।

আরও পড়ুনঃ

বাংলাদেশে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে কত টাকা লাগে

ডায়াবেটিস হলে কি কি সমস্যা হয়

বাংলাদেশের জন্য কোন কোন দেশের ভিসা খোলা আছে । ভিসা সম্পর্কিত তথ্য

কিভাবে নবীন বরণ অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্য দিবেন ২: 

স্নেহের ছােট ভাই – বােনেরা ,

তোমরা জানো, আমাদের এই অত্র কলেজের সুনাম রয়েছে দেশজোড়া।

নকল ও সন্ত্রাসমুক্ত একটি আদর্শ কলেজ হিসেবে এর নাম আমরা সগৌরবে উচ্চারণ করি।

তাছাড়া একটি নিয়মতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান হিসেবেও এর যথেষ্ট সুনাম রয়েছে।

এই ঐতিহ্য ও সুনাম একদিনের নয়, শ্রদ্ধেয় শিক্ষকমণ্ডলীর আন্তরিক প্রয়াস ও শিক্ষার্থীদের চেষ্টা ও সহযােগিতায় এ কলেজ সারা দেশে একটি উজ্জ্বল ভাবমূর্তি স্থাপন করেছে।

এই সুনাম ধরে রাখার এবং উত্তরােত্তর বৃদ্ধি করার দায়িত্ব তােমাদের।

লেখাপড়ায়, আচার – আচরণে, আদব – কায়দায় সবক্ষেত্রে তােমরা তােমাদের স্বাতন্ত্র্য হিসেবে প্রমাণ করবে।

আমরা তােমাদের পূর্বসূরি হিসেবে তোমাদের কাছে এই দাবি করা অসঙ্গত নয় বলেই মনে করি। 

তোমাদের পথপরিক্রমায় নির্দেশনা প্রদান করার ক্ষেত্রে আমাদেরও রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব। আমরা সর্বদা এ দায়িত্ব পালনে সচেষ্ট থাকব ইনশাআল্লাহ।

আমাদের পরামর্শ ও দিকনির্দেশনা গ্রহণে কখনো কোনাে দ্বিধা করবে না।

আমরা তােমাদের সাথে মিলে শ্রদ্ধা ও স্নেহ, ভালােবাসা ও শাসনের সম্মিলনে এ পবিত্র শিক্ষাঙ্গণকে আরও গৌরবদীপ্ত করে তোলার চেষ্টা  করব।

আমরা যেমন আমাদের পরম শ্রদ্ধেয় শিক্ষকমণ্ডলীকে মান্য করি, তাদের অনুসরণ ও আদর্শরূপে গ্রহণ করি তােমরাও তেমনি সবক্ষেত্রে তাঁদের প্রতি আনুগত্য প্রদর্শন করবে এটাই আমাদের প্রত্যাশা।

পরিশেষে তােমাদের সুস্থ দেহ-মন ও কৃতিত্বপূর্ণ শিক্ষাজীবন কামনা করি।

তােমাদের কলরবে এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নবপ্রাণের জোয়ারে ভেসে যাক এটাই আমাদের প্রত্যাশা।

আবারও নবাগত ভাইবােনদের ফুলের শুভেচ্ছা জানিয়ে শেষ করছি । 

আরও পড়ুনঃ

15000 টাকার মধ্যে ভালো মোবাইল বাংলাদেশ । Best mobile at low prices

সব মেঘ থেকে বৃষ্টি হয় না কেন আপনি জানেন কি?

কিভাবে নবীন বরণ অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্য দিবেন ৩:

মাননীয় অধ্যক্ষ মহােদয়, শ্রদ্ধেয় শিক্ষকমণ্ডলী, বন্ধুপ্রতিম ও নবাগত শিক্ষার্থীবৃন্দ সবাইকে আমার শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন ।

ঐতিহ্যবাহী এই কলেজে তোমরা যারা নবাগত শিক্ষার্থী হিসেবে পদার্পণ করেছ তাদের বরণ করে নেওয়ার উদ্দেশ্যেই এ অনুষ্ঠানের আয়ােজন।

দ্বাদশ শ্রেণির একজন ছাত্র হিসেবে তাদের স্বাগত জানাতে কিছু বলার সুযােগ পেয়ে আমি বেশ আনন্দ অনুভব করছি ।

আমি আজ অত্যন্ত আনন্দিত যে এই রকম নামকরা একটি প্রতিষ্ঠানের একজন ছাত্র/ছাত্রী হিসেবে আজ থেকে তোমরা নতুন শিক্ষা জীবন শুরু করতে চলেছ।

সারা দেশে এই প্রতিষ্ঠান একটি স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান।

এখানে যারা শিক্ষক হিসেবে আছেন তারা অত্যন্ত আন্তরিক ও সহযোগীতাপূর্ণ মনোভাব রাখেন।

কিভাবে বক্তব্য রাখতে হয়

কিভাবে বক্তব্য রাখতে হয়
কিভাবে বক্তব্য রাখতে হয়

তো আজকের এই দিনে আমি প্রত্যাশা রাখবো যে আগামী দিনেও যেনো এই প্রতিষ্ঠান তার সুনাম আরো বৃদ্ধি করতে পারে, সেই সাথে আজ থেকে এই প্রতিষ্ঠানে তোমাদের যে নতুন পথচলা শুরু হলো সেটা যেনো সফলতার সাথে তোমরা সমাপ্ত করতে পারো। .

জীবনের অতি গুরুত্বপূর্ণ একটি পর্বের সফল সমাপ্তির পরে তোমরা আজ সম্পূর্ণ নতুন এবং মুক্ত জ্ঞানের রাজ্যে প্রবেশ করেছো।

এখানে রয়েছে জ্ঞানচর্চার উন্মুক্ত পরিবেশ এবং স্বাধীন চিন্তা বিকাশের অপূর্ব সুযোগ।

নিরন্তর সাধনা ও পঠন-পাঠনের মাধ্যমে তোমাদের মেধা ও মননশীলতা বিকশিত হোক — এটিই আমাদের প্রত্যাশা।

তোমরা অনেকেই  জানো যে আমাদের এ কলেজ থেকেই অতীতে পড়ালেখা করে জ্ঞানীগুণী পণ্ডিত হিসেবে অনেকেই দেশে ও আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে সুনাম অর্জন করেছেন।

ডাক্তার, প্রকৌশলী, রাজনীতিক, সাহিত্যিক, সাংবাদিক হিসেবে এ প্রতিষ্ঠানের অনেক শিক্ষার্থীই পরবর্তী জীবনে সমাজে খুব ভালোভাবে প্রতিষ্ঠা লাভ করেছে।

তোমরাও তাদের মতোই দেশ ও জাতির মুখ উজ্জ্বল করবে এটাই আমরা আশা করি।

আমাদের এ শিক্ষালয়ের দীর্ঘদিনের এক সুমহান ঐতিহ্য ও খ্যাতি রয়েছে সারা দেশব্যাপী।

এখানকার ছাত্র-শৃঙ্খলা, ছাত্র-শিক্ষক সুসম্পর্ক, প্রতিবছর পরীক্ষায় ঈর্ষণীয় ফলাফল সারাদেশে আলোড়ন সৃষ্টি করে।

আজ তোমরা যারা নতুন প্রাণশক্তি ও অমিত সম্ভাবনা নিয়ে এখানে এসেছো, তোমাদেরকে এ ঐতিহ্য রক্ষার সুমহান দায়িত্বে অংশীদারিত্ব করার জন্য অনুরোধ করছি।

আশা করি, এ প্রতিষ্ঠানের গৌরব বৃদ্ধিতে তোমরা অবদান রাখতে পারব।

এ প্রতিষ্ঠানে তোমাদের শিক্ষাজীবন সফল-সার্থক ও গৌরবময় হোক এটার জন্য সকলে কাছে দোয়া প্রার্থনা করছি।  

সবাইকে ধন্যবাদ, সবার জন্য শুভকামনা।

নবীন বরণ অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্য FAQS

নবীন বরণ অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্য কিভাবে রাখতে হয়?

মূলত যেকোনো জায়গায় বক্তব্য রাখার জন্য আপনার প্রয়োজন সুসংগঠিত শব্দ বলা। যেহেতু নবীন বরণ অনুষ্ঠানের মধ্যে আপনি বক্তব্য রাখতে চাচ্ছেন সে ক্ষেত্রে ছোটদের প্রতি সহানুভূতিশীল এবং সুন্দরভাবে উপদেশ মূলক বক্তব্য দিতে হবে।

কলেজের ক্ষেত্রে কিভাবে নবীন বরণ অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দিতে হয়?

সাধারণত অন্য সকল ক্ষেত্রে আমরা যেভাবে নবীন বরণ অনুষ্ঠানের জন্য বক্তব্য দিয়ে থাকি কলেজের ক্ষেত্র আমরা ঠিক একইভাবে বক্তব্য দিব। তবে কলেজের ক্ষেত্রে একটু মার্জিন এবং সুশীল ভাষায় এবং পরিপাটিভাবে বক্তব্য প্রদান করতে হবে।

শেষ কথা

আশা করছি আপনি  নবীন বরণ অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্য আরটিকেলটি শেষ পর্যন্ত পরেছেন। যদি পরে থাকেন তাহলে আপনার এই বিষয়ে আর কোনো সমস্যা থাকার কথা না। 

এরপরও যদি আপনার কোনো মতামত থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করবেন। 
সব বিষয়ে নিত্য নতুন আর্টিকেল পেতে নিয়মিত ভিজিট করুন আমাদের ওয়েবসাইট। চোখ রাখুন আমাদের ফেসবুক পেজে।

Leave a Comment

nineteen + nine =