জমির নকশা কোথায় পাওয়া যায়?

সুপ্রিয় পাঠক জমির নকশা কোথায় পাওয়া যায় এ বিষয়টি অনেকেই নিশ্চিত নন। তাই অনেকেই জমির নকশা কোথায় পাওয়া যাবে এ সংক্রান্ত বিষয়ে গুগল সার্চ করে থাকেন। 

আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে জমির নকশা কোথায় পাওয়া যায় এবং জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করা হবে।

 আমরা আর্টিকেল মনোযোগ সহকারে পড়লে জমির নকশা সম্পর্কিত এবং জমি সংক্রান্ত নানান তথ্য আপনারা জানতে পারবেন। তাই জমি সংক্রান্ত বিষয়ে জানতে মনোযোগ সহকারে আমাদের পুরো আর্টিকেলটি পড়ুন।

জমির নকশা কোথায় পাওয়া যায়

খতিয়ান ও পর্চা কি
খতিয়ান ও পর্চা কি

আমাদের মধ্যে প্রায় সকলেরই ভূমি বা জমি রয়েছে। মূলত জমির যেসকল  গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্টসগুলো রয়েছে সেগুলোর মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য ডকুমেন্টগুলো হল-

  • খতিয়ান ও পর্চা
  • দলিল
  • জমির ম্যাপ

অনেক সময় বিভিন্ন কারণে আপনাদের এই সকল গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্টস গুলো হারিয়ে  যেতে পারে অথবা চুরি হয়ে যেতে পারে।

কিন্তু একটি জমির ক্ষেত্রে এই ডকুমেন্টগুলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং প্রয়োজনীয় হয়ে থাকে।  আপনি এই ডকুমেন্টগুলো ছাড়া কখনোই ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলন অথবা আপনার জমিটি বিক্রি করতে পারবেন না। 

তাই আপনাকে অবশ্যই এ সকল জিনিস গুলো খুবই যত্ন সহকারে রাখতে হবে। 

আর যারা এই সকল জিনিস গুলো হারিয়ে ফেলেছেন তাদের জন্য আজকের এই আর্টিকেলে কিভাবে তা পুনরুদ্ধার করবেন সে বিষয়ে সম্পূর্ণ তথ্য দেয়া হবে।

আরও পড়ুনঃ

জমির মালিকানা বের করার উপায় অনলাইনে

জমির দাগ নম্বর থেকে খতিয়ানটি বের করুন

মৌজা কিভাবে বের করবো?

খতিয়ান ও পর্চা কি?

অনেকের মনেই প্রশ্ন হতে পারে জমির খতিয়ান কি? 

খতিয়ান হল একটি জমির একাধিক কলামে জমির মালিকের নাম, পিতার নাম, ঠিকানা, দাগ নং, জমির শ্রেণী, পরিমাণ, অংশ খাজনা ইত্যাদি তথ্য সঠিকভাবে লিপিবদ্ধ অবস্থায় যে কাগজে উল্লেখ থাকে সেটি হল খতিয়ান বা পর্চা।

মূলত খতিয়ানে কোন এক মৌজায় যেকোন একজন মালেকের জমির বিবরণ থাকে।

আবার কোন কোন জমির ক্ষেত্রে খতিয়ানে একাধিক মালিকের বিবরণ ও থাকতে পারে।

এই লেখককে  স্বত্বের রেকর্ড বা রেকর্ড অফ রাইটস(ROR) বলা হয়।

সিএম, এসএ,আরএস এর জন্য মাত্র ২০ টাকা বা কোর্ট ফি। সিটি জরিপের জন্য ১০০ টাকা খরচ হবে।

আপনি যদি চান তাহলে ইউনিয়ন ভূমি অফিস বা তফসিল অফিস থেকে একটি খসড়া খতিয়ান গ্রহণ করতে পারবেন।

আপনি যে ক্ষয়ক্ষতি আন্টি আপনার হাতে পাবেন তার কোনো আইনত মূল্য নেই। তবুও অফিসটি খুব গুরুত্বপূর্ণ কারণে আপনার জমির খতিয়ান নাম্বার না জানলে তারা আপনাকে আপনার খতিয়ান নাম্বার জানাবে।

অফিসে খতিয়ান ও পর্চার বালাম বই থাকে তবে আপনি এই অফিস থেকে খতিয়ানের জের সার্টিফাইড কপি রয়েছে তা নিতে পারবেন না।

মূলত এই অফিসেই জমির খাজনা ভূমি উন্নয়ন কর প্রদান করতে হয়।

আপনি ভূমি অফিস থেকে খতিয়ানের সার্টিফাইড পর্চা বাকওয়ার্ড পর্চা তুলতে পারবেন কিনা?

সুপ্রিয় পাঠক আপনারা ভূমি অফিস থেকেও খতিয়ানের সার্টিফাইড পর্চা পর্চা তুলতে পারবেন না।

যদিও এই অফিসে মূল কাজ হলো জমির নামজারি বা খারিজ করা।

তবুও তারা আপনাকে আপনার খতিয়ানের পর্চা বা কোর্ট পর্চা প্রদান করবে না।

আপনি যদি জেলা ডিসি অফিস কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করেন তাহলে সে অফিস থেকে আপনি আপনার খতিয়ান বা পর্চার সার্টিফাইড কপি সংগ্রহ করতে পারবেন।

এই অফিসে মূলত খতিয়ানকে খুবই গুরুত্বের সাথে দেখা হয়।

এছাড়াও আপনি সেটেলমেন্ট অফিস থেকে শুধুমাত্র নতুন রেকর্ড বা জরিপের পর্চা অথবা খতিয়ান গ্রহণ করতে পারবেন।

সেই সাথে আপনি নতুন রেকর্ড এবং ব্যাপক গ্রহণ করতে পারবেন সেই অফিস থেকে।

জমির দলিল বা বায়া দলিল

আপনারা অনেকেই জমির দলিল বা বায়া দলিল কোথায় পাবেন সে বিষয়ে জানেন না। জমির দলিল বা দলিলের সার্টিফাইড কপি অথবা নকল মূলত দুটি অফিস থেকে সংগ্রহ করা যেতে পারে।

  • জেলা রেজিস্ট্রি অফিস অথবা সদর রেকর্ডরুম অফিস
  • উপজেলা সাব রেজিস্ট্রি অফিস

এবং আপনি যদি নতুন দলিল রেজিস্ট্রেশন করতে চান তাহলে আপনি উপজেলা সাব রেজিস্ট্রি অফিস থেকে দলিলের নকল ও মূল দলিল পাবেন। কিন্তু পুরাতন দলিল বাবা দলিল আপনি এই অফিস থেকে পাবেন না।

আপনি জেলা রেজিস্ট্রার অফিস বা সদর রেকর্ড রুম থেকে আপনার পুরাতন বা নতুন দলিলের সার্টিফাইড কপি নকল পেয়ে যাবেন।

যদি কোন দলিল সঠিকভাবে খোঁজ করে না পাওয়া যায় সে ক্ষেত্রে আপনি আপনার দলিলটি অন্য কোন অফিস থেকে পাবেন না।

দলিল তোলার ক্ষেত্রে আপনাকে যা খরচ করতে হবে তা নির্ভর করবে আপনার নকলের খরচের ওপর। অথবা আপনার ওই এলাকার সিন্ডিকেটের ওপর।

আরও পড়ুনঃ

সাংবাদিক হওয়ার যোগ্যতা ও গুণাবলি কি কি?

রবি মিনিট দেখার কোড

ক্লোরফেনিরামিন কি কাজ করে?

জমির নকশা বা ম্যাপ

জমির নকশা বা ম্যাপ
জমির নকশা বা ম্যাপ

অন্যান্য সকল গুরুত্বপূর্ণ তথ্যের পাশাপাশি অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি জিনিস হল জমির নকশা বা ম্যাপ।

আপনার জমি বিক্রয় কিংবা ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলনের জন্য আপনাকে জমির নকশা ও প্রদর্শন করতে হবে।

সে ক্ষেত্রে আপনি যদি জমির নকশা বা ম্যাপ হারিয়ে ফেলেন তাহলে তা কোথা থেকে পেতে পারেন এখন তা জানব। 

মূলত আপনারা জমির ম্যাপ বা নকশা দুইটি জায়গায় পেতে পারেন।

  • জেলা ডিসি অফিস
  • ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তর, ঢাকা।

আপনি জেলা ডিসি অফিস থেকে সিএস,এসএ,আরএস, বিএস যেকোনো ধরনের মৌজার ম্যাপ বা নকশা সংগ্রহ করতে পারবেন।

এই নকশাটি হাতে পাবার জন্য আপনাকে ২০ টাকার কোর্ট ফি এবং নগদ পাঁচশত টাকা, একটি আবেদন ফরমের সাথে জমা দিতে হবে।

মূলত এটি আপনার সর্বমোট খরচ।

আপনি ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তর থেকে বাংলাদেশের যে কোন জায়গার মৌজা ম্যাপ সিএস,এসএ,আরএস, বিএস,জেলা ম্যাপ,বাংলাদেশ ম্যাপ তুলতে পারবেন।

এক কথায় বলতে গেলে আপনি বাংলাদেশের যে কোন ম্যাপ এই অফিস থেকে নিতে পারবেন।

ম্যাপ তুলতে খরচ হয় আবেদন ফরম কোর্ট ফি ডিসিআর সর্বমোট ৫২০ টাকা লাগে।

ম্যাপ তুলতে সময় লাগে আবেদন করার দিন হতে ২-৫ দিন এর মধ্যেই ম্যাপ সংগ্রহ করা যায়।

অনলাইন থেকে জমির নকশা দেখার নিয়ম | জমির নকশা কোথায় পাওয়া যায়

অনলাইন থেকে জমির নকশা দেখার নিয়ম
অনলাইন থেকে জমির নকশা দেখার নিয়ম

বর্তমানে বাংলাদেশের প্রায় সরকারিভাবে সকল কাগজপত্র অনলাইনের মাধ্যমে পাওয়া যায়। সেইসাথে অনলাইন থেকে জমির নকশাও দেখা সম্ভব বর্তমানে।

আপনি ঘরে বসেই আপনার জমির মৌজাম্যাপ বা নকশা দেখে নিতে পারবেন খুবই সহজে।

বর্তমানে আপনাকে পুরনো ম্যাপ বহন করার প্রয়োজন নেই আপনি চাইলে যেকোনো সময় আপনার  মোবাইল আপনি চাইলে যেকোন সময় আপনার মোবাইল ফোন থেকে ম্যাপ বের করে দেখতে পারবেন।

জমির নকশা ডাউনলোড

আপনাকে জমির নকশা ডাউনলোড করার জন্য কিছু নিয়ম অনুসরণ করতে হবে। সেগুলো হলো-

  • ডিজিটাল ভূমি সেবা মেনু থেকে মৌজা ম্যাপ অনলাইন আবেদনের সিস্টেম দেখতে পারবেন।
  • আপনি চাইলে সরাসরি ম্যাপ থেকে অথবা অন্যভাবে বিভাগ নির্বাচন করুন।
  • আপনার জেলা নির্বাচন করুন।
  • আপনার ম্যাপের টাইপ বা ধরন নির্বাচন করুন।
  • এবার উপজেলা সার্কেল নির্বাচন করে আপনার এলাকার মৌজা সিলেক্ট করুন।
  • সিট একাধিক থাকলে সেগুলো সিলেক্ট করুন এবং সবশেষে অনুসন্ধান করুন
  • ফলাফলস্বরূপ আপনার সামনে চলে আসবে এবং আপনি চাইলে সেটি একই প্রক্রিয়ায় সার্টিফাইড কপি জন্য আবেদন করতে পারেন।

আরও পড়ুনঃ

কারবালা কোথায় অবস্থিত?

বাংলাদেশের এয়ারফোর্স ট্রেনিং সেন্টার কোথায়?

বিলিরুবিন তৈরি হয় কোথায়?

জমির নকশা কোথায় পাওয়া যায় FAQS

জমির নকশা কোথায় পাওয়া যায়?

আপনারা জমির ম্যাপ বা নকশা দুইটি জায়গায় পেতে পারেন।
১/ জেলা ডিসি অফিস
২/ ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তর, ঢাকা।

জমির নকশা পেতে কত টাকা লাগে?

নকশাটি পাবার জন্য আপনাকে ২০ টাকার কোর্ট ফি এবং নগদ পাঁচশত টাকা, একটি আবেদন ফরমের সাথে জমা দিতে হবে।

উপসংহার

সুপ্রিয়া পাঠক আশা করছি জমির নকশা কোথায় পাওয়া যায় এবং জমিসংক্রান্ত নানান বিষয়ে আপনাদের কে আজকের আর্টিকেল এর মাধ্যমে সাহায্য করতে পেরেছি।

আপনারা যদি মনোযোগ সহকারে আমাদের এই আর্টিকেলটি পুরোপুরি পড়ে থাকেন তাহলে আপনারা খুব সহজেই জমির নকশা বের করতে পারবেন।

তবুও যদি আপনাদের এ সংক্রান্ত বিষয়ে কোনো ধরনের প্রশ্ন বা মতামত থাকে তাহলে অবশ্যই আমাদের কমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন।

অনলাইন থেকে টাকা আয় এবং শিক্ষামূলক নানান বিষয় সমূহ সম্পর্কে জানতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ভিজিট করুন।

আপনাদের সুবিধার্থে সকল আপডেট পেতে আমাদের  ফেসবুক পেজটি ফলো করুন।

ধন্যবাদ। 

Leave a Comment

17 − fourteen =