স্কলারশিপ কিভাবে পাওয়া যায় । বিদেশে স্কলারশিপ পাওয়ার যোগ্যতা

স্কলারশিপ কিভাবে পাওয়া যায় এই প্রশ্ন এখনকার সময় দেশের বেশিরভাগ শিক্ষার্থীদের মধ্যে তৈরি হয়। এছাড়াও শিক্ষার্থীরা চায় কিভাবে খুব সহজে বিদেশে স্কলারশিপ পাওয়া যায়। কারণ, বিভিন্ন কারণে দেশের শিক্ষার্থীদের মধ্যে অনেক বড় একটি অংশ স্কলারশিপ নিয়ে পড়াশোনা করতে চান শিক্ষাজীবনে। 

দেশের মেধাবি শিক্ষার্থীদের মধ্যে অনেক বড় একটি অংশ উচ্চ শিক্ষার জন্য স্কলারশিপ নিয়ে দেশের বাহিরে যেতে চান। এ বিষয় সবথেকে বেশি যে প্রশ্নগুলো সবার মনে জেগে হাকে আজকে সেসব বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো। 

সবথেকে বেশিবার সবাই জানতে চায় কোন দেশে সহজে স্কলারশিপ পাওয়া যায়? বিদশে স্কলারশিপ পাওয়ার যোগ্যতা কি লাগে? স্কলারশিপ কিভাবে পাওয়া যায়? অথচ এদের মধ্যে অনেকেই জানেন না স্কলারশিপের জন্য কি করতে হয় কিভাবে স্কলারশিপের জন্য প্রস্তুতি নিতে হয়? 

Contents hide

স্কলারশিপ কাকে বলে ? – What is a scholarship?

স্কলারশিপ বলতে মূলত বৃত্তি নিয়ে দেশের বাহিরে পড়াশোনা করতে যাওয়াকে বোঝায়। শিক্ষার্থীদের একটি অংশের ছাত্র জীবনের লালিত স্বপ্নই স্কলারশিপ নিয়ে দেশের বাহিরে পড়তে যাওয়া। প্রকিতপক্ষে স্কলারশিপ কি এই বিষয়ে আগে জেনে নেওয়া দরকার। 

চলুন জেনে নেওয়া যাক স্কলারশিপ কিভাবে পাওয়া যায় কিভাবে প্রস্তুতি নিতে হয়। স্কলারশিপ কি এবং কেন ছাত্র জীবনে স্কলারশিপ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ 

স্কলারশিপ কিভাবে পাওয়া যায়
স্কলারশিপ কিভাবে পাওয়া যায়

সারা বিশ্বে অনেক দেশ আছে যারা তাদের নিজস্ব বিভিন্ন উন্ননতমানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে দেশের বাহিরের শিক্ষার্থীদের জন্য সম্পূর্ণ বিনামূল্যে অথবা অর্ধেক খরচে স্কলারশিপ দিয়ে থাকে। এক্ষেত্রে আপনি দেশের বাহিরে সম্পূর্ণ নিজস্ব খরচে পড়াশোনা করলে তা কোনোভাবেই স্কলারশিপ হিসেবে বিবেচিত হবে না।    

কিভাবে সহজে স্কলারশিপ পাওয়া যায়? – How to get a scholarship 

স্কলারশিপের জন্য আপনার পছন্দের দেশ অথবা পছন্দের দেশের প্রতিষ্ঠান সিলেক্ট করতে হবে। আর এই স্কলারশিপ পাওয়ার জন্য আপনাকে নিয়মিত সেই দেশের স্কলারশিপ বিষয়ক ওয়েবসাইটে নিয়মিত চোখ রাখতে হবে। এবং আপনার পছন্দের ক্যাটাগরি থেকে আপনার মন মতো বিষয়ে স্কলারশিপ পাওয়ার জন্য আবেদন করতে পারেন। 

স্কলারশিপ কত প্রকার ও কি কি?

স্কলারশিপকে বিভিন্ন দিক থেকে চারটি ভাগে ভাগ করা হয়ে থাকে। তবে স্কলারশিপ কিভাবে পাওয়া যায় পোস্টে আমরা আপনাকে বিস্তারিত তথ্য দেব।

বন্ধুরা স্কলারশিপ পেতে এই বিষয় গুলি ভালভাবে পড়ুন। যেমনঃ 

১) মেধাক্রম অনুযায়ী স্কলারশিপ 

মেধাক্রম স্কলারশিপ মূলত শিক্ষার্থীর মেধার উপর নির্ভর করে দেওয়া হয়। হতে পারে শিক্ষা, খেলাধুলা এবং শৈল্পিক মেধা। বিশ্বের মধ্যে অন্যতম স্কলারশিপ দেশ হিসেবে আমেরিকা খুবই স্বনামধন্য।  

২) প্রয়োজন অনুযায়ী স্কলারশিপ

প্রয়োজন অনুযায়ী স্কলারশিপ সাধারণত শিক্ষার্থীর আর্থিক/ অর্থনৈতিক অবস্থার উপর ভিত্তি করে দেওয়া হয়ে থাকে।

এক্ষেত্রে বেশিরভাগ দেখা হয় শিক্ষার্থীর পারিবারিক বিশেষ করে বাবা মায়ের ইনকামের পরিমাণ। অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায়, শিক্ষার্থী খুব মেধাবি হলেও পারিবারিক অর্থনৈতিক কারণে দেশে বাহিরে উচ্চ শিক্ষার জন্য যাওয়া সম্ভব না।

এমন শিক্ষার্থীদেরই মূলত সম্পূর্ণ স্কলারশিপের এই ক্যাটাগরিতে ফ্রিতে দেশের বাহিরে ভালো ভালো প্রতিষ্ঠানে ফুল ফ্রি স্কলারশিপে পড়ার সুযোগ দেওয়া হয়।  

৩) শিক্ষার্থী অনুযায়ী স্কলারশিপ

শিক্ষার্থী অনুযায়ী স্কলারশিপ দেওয়ার ক্ষেত্রে একজন শিক্ষার্থীর জাতীয়তা, ধরম, লিঙ্গ, পারিবারিক অবস্থা সহ আরও কিছু বেশিক বিষয়ে দেখা হয়ে থাকে।

উদাহরণ স্বরূপ বলা যায় কানাডাতে শিক্ষার্থী অনুযায়ী স্কলারশিপ বেশি দেওয়া হয়। এই স্কলারশিপটি Resident Scholarship নামে পরিচিত।

দেশটিতে এই স্কলারশিপ দেওয়া হয়ে থাকে দেশ সহ দেশের বাহিরের সকল শিক্ষার্থীদের তাদের যোগ্যতা এবং প্রাপ্ত অনুযায়ী।  

৪) কর্মজীবন অনুযায়ী স্কলারশিপ

নিজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অর্থাৎ কলেজ/ ইউনিভার্সিটি থেকে কোনো একটি নির্দিষ্ট বিষয়ে উপর কর্মজীবন পরিকল্পনায় সাহায্যের জন্য শিক্ষার্থীদের এই ধরনের স্কলারশিপ প্রদান করা হয়ে থাকে।

এই মুহূর্তে সারা বিশ্বে নারসিং পেশা অধিক চাহিদার এবং প্রয়োজনীয়। তাই এই মুহূর্তে সারা বিশ্বে নারসিং পেশায় মানুষদের ভেড়াতে বেশ পরিমাণ স্কলারশিপ দেওয়া হয়ে থাকে। 

এর বাহিরেও যদি কোন স্কলারশিপ সেক্টরে কাজ করে তাদের সন্তানেরা স্কলারশিপ পরিবার হিসেবে স্কলারশিপ পেয়ে থাকে।

অনেক দেশে আবার সামরিক ভাবেই ওদের পরিবারের সন্তানদের স্কলারশিপের ব্যবস্থা থাকে।

বিদেশে স্কলারশিপ পাওয়ার যোগ্যতা

এবার স্কলারশিপ কিভাবে পেতে পারি তা জানার চেষ্টা করবো। অর্থাৎ, স্কলারশিপ পাওয়ার যোগ্যতা জানতে হবে। 

স্কলারশিপ কিভাবে পাওয়া যায় এই বিষয় জানার পাশাপাশি আপনাকে যোগ্যতার বিষয়টাও মাথায় রাখতে হবেন

আমাদের দেশ থেকে কোনো শিক্ষার্থী উচ্চ মাধ্যমিক বা বিশ্ববিদ্যালয় পড়াশোনা শেষ করে ইউরোপ আমেরিকা বা যুক্ত রাষ্ট্রের কোনো দেশে স্কলারশিপে উচ্চ শিক্ষার জন্য যাওয়া যায়। এজন্য শিক্ষারথিকে যোগ্যতা অরজনের জন্য নিচের বিষয়গুলি নিজের মধ্যে রাখতে হবে। 

এসএটি (SAT) স্কোর বা মান 

SAT স্কোরকে গুরুত্ত দেওয়া হয় বেশিরভাগ কানাডা, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়া সহ বিভিন্ন দেশে স্কলারশিপে যাওয়ার জন্য। এসব দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে স্কলারশিপ আবেদনের জন্য এসএটি মান বিভিন্ন রকমের চেয়ে থাকে।  

সামাজিক কার্যক্রমে অংশগ্রহণ 

বিশ্বের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্কলারশিপের জন্য আবেদন করার সময় সামাজিক কার্যক্রমকে স্বাভাবিক ভাবেই অনেক গুরুত্ব দেওয়া হয়ে থাকে। 

এর মধ্যে হতে পারে যেমন স্কাউট কার্যক্রম, বিএনসিসি কার্যক্রম ছারাও সামাজিক বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবা মূলক কাজে অংশগ্রহনের সনদও আপনার আবেদনকে অনেকটা এগিয়ে রাখবে।

সুপারিশপত্র (রিকমেন্ডেশন লেটার)

স্কলারশিপের বেলায় আবেদন পত্রের ক্ষেত্রে সুপারিশপত্র জমা দিতে হয় যাকে রিকমেন্দেশন লেতার বলে। এটি হয়ে থাকে স্বনামধন্য কোনো ব্যক্তির থেকে, স্কুল, কলেজ অথবা বিশ্ববিদ্যালয়য় থেকে শিক্ষকদের দ্বারা লিকিহত সনদ পত্র।

যেখানে উল্লেখ থাকে উক্ত ব্যক্তি আপনাকে চেনেন এবং আপনাকে খুব ভালো ভাবে জানেন, এই মর্মে একটি সুপারিশ পত্র লিখে জমা দিতে হয়। 

ভাষা দক্ষতার প্রমাণ

স্কলারশিপ এর জন্য শিক্ষার্থীকে অবশ্যই ভাষা ভিত্তিক দক্ষতা অর্জন করতে হবে। আবার ভাষা দক্ষতার সনদপত্রও জমা দিতে হবে। 

বিশেষ করে ইংরেজি যেটি সার্বজনীন ভাষা এই বিষয়ে নিয়ে পড়তে গেলে IELTS এবং TOEFL স্কোরকে গুরুত্ব দেওয়া হয়ে থাকে সবথেকে বেশি ।

ভবিষ্যতের লক্ষ্য

স্কলারশিপ নিয়ে পড়তে গেলে যানতে চাওয়া হতে পারে তার এই পড়াশোনার লক্ষ্য কি? তাই এই বিষয়ে আগে থেকেই আপনাকে সম্পূর্ণ প্রস্তুতি নিয়ে রাখতে হবে ।

অনেকে অন্য কারোর আবেদনপত্র থেকে কপি করে জমা দিয়ে থাকে, এই কাজ কখনই করা যাবে না। এক্ষেত্রে নিজের স্বকীয় বৈশিষ্ট বজায় রাখতে হবে প্রত্যেকটা জায়গায়।

নিজের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য-আগ্রহের কথা নিজেকেই ব্যাখ্যা করতে হবে নিজের মতো করে।

স্কলারশিপ পেতে করণীয় বা কি কি প্রয়োজন?

স্কলারশিপের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র যা দরকার তা নিচে তালিকা করা হলো 

১) এসএসসি অরজিনাল মার্কশিট। মনে রাখবেন আবেদনের ক্ষেত্রে অনলাইন মার্কশিট কপি গ্রহণযোগ্য নয় ।

২)  এসএসসি আরজিনাল সার্টিফিকেট । এটাও মূল কপি হতে হবে। 

৩) এইচএসসি মার্কশিট অথবা সমমানের মূল সার্টিফিকেট এবং মার্কশিট। 

৪) পাসপোর্ট। আপনার আবেদনের জন্য অবশ্যই আপনার নিজস্ব পাসপোর্ট এর প্রয়োজন হবে।

৫)  ভিসা অ্যাপ্লিকেশন ফরম সংগ্রহ। 

৬। অ্যাডমিশন লেটার । আপনি যে প্রতিষ্ঠানে স্কলারশিপ নিতে চাচ্ছেন তাদের ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে আবেদন করতে পারবেন । ওখান থেকে আপনি সিলেক্ট হওয়ার পর আপনাকে অ্যাডমিশন লেটার দেওয়া হবে। 

৭) JW পেপার থাকা লাগবে। এখন আপনি হয়তো বা প্রশ্ন করতে পারেন এটা আবার কি? এই পেপারটি আপনাকে অ্যাডমিশন লেটার এর সাথে প্রেরণ করা হবে  আপনার পোস্ট অফিসে। 

৮) ব্যাংক স্টেটমেন্ট। 

৯) পুলিশ ক্লিয়ারেন্স। তবে এটা শিথিল যোগ্য অনেক ক্ষেত্রে।

১০) মেডিকেল চেকআপ রিপোর্ট।

১১) ন্যাশনাল আইডি কার্ড এবং জন্ম সনদ সঠিক এবং মূল কপি। 

১২) অনেক ক্ষেত্রে বিমানের টিকিট বুকিং এর কাগজপত্র দরকার হয়ে থাকে।

কোন কোন দেশে সহজে স্কলারশিপ পাওয়া যায়?

বিশ্বের এমন কিছু দেশ রয়েছে যেগুলোতে খুব অল্প খরচে আবার বিনা খরচে আপনি পড়াশোনা করতে পারবেন খুব সহজে।

সেই সব দেশগুলো হচ্ছে – চীন, জার্মানি, ফ্রান্স, গ্রিস, নরওয়ে, ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, স্পেন, চেক রিপাবলিক এবং বেলজিয়াম সহ ইত্যাদি।

স্কলারশিপের জন্য দেশ ভিত্তিক ওয়েবসাইট সমূহ 

আপনাদের সুবিধার জন্য নিম্নে কিছু দেশের স্কলারশিপ ওয়েবসাইটের তালিকা দেওয়া হলো। স্কলারশিপ কিভাবে পাওয়া যায় এই বিষয়ে জানতে এই বিষয় ওয়েবপেজ গুলি আপনাকে হেল্প করবে।

আমেরিকাwww.dol.gov
বাহরাইনwww.mol.gob.bh
ব্রুনাইwww.labour.gov.bn
বাহরাইনwww.markosweb.com/www/mol.gov.sa
মিসরwww.moiegypt.gov.eg/english
মালয়েশিয়াwww.mohr.gov.my
রাশিয়াwww.labour.gov.on.ca
সাইপ্রাসwww.moi.gov.cy
স্পেনwww.mtin.es/en
সিংগাপুরwww.mom.gov.sg
অষ্ট্রেলিয়াwww.workplace.gov.a
বাংলাদেশwww.moi.gov.bd
স্কলারশিপ মানে কি

আরও পড়ুনঃ ঘরে মোবাইল নেটওয়ার্ক না থাকলে করনীয় কি?  

আমেরিকায় স্কলারশিপ পাওয়ার উপায় বা কিভাবে পাওয়া যায়

বিজ্ঞান, প্রযুক্তি ,শিক্ষাদীক্ষার দিক থেকে সমগ্র বিশ্বে প্রথম অবস্থানে রয়েছে আমেরিকা। আমেকিার ডিগ্রি পৃথিবীজুরে স্বীকৃত এবং বেশি গুরুত্ব বহন করে থাকে। আমেরিকায় স্কলারশিপ কিভাবে পাওয়া যায়, তাই আপনাকেও চেষ্টা করা উচিৎ।

আমেরিকায় এখন প্রায় পাঁচ হাজার বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে, সেখানে পড়াশোনা করছে প্রায় ছয় থেকে সাত লক্ষ বিদেশি শিক্ষার্থী।

পৃথিবীর নানা প্রান্ত থেকে ছুটে মানুষ সেখানে উচ্চশিক্ষার জন্য এবং এই শিক্ষার্থীদের বরাট অংশ স্কলারশিপ নিয়ে পড়তে আসে আমেরিকায়।

প্রতিনিয়ত সেখানে উদ্ভব ঘটছে নতুন নতুন জ্ঞান –বিজ্ঞানের, তাই আমেরিকা স্কলারশিপ প্রত্যাশীদের প্রথম পছন্দ।

তবে মনে রাখেবন আমেরিকার পড়াশোনার মাধ্যম হচ্ছে ইংরেজি, তাই আমেরিকায় পড়ার আগ্রহ থাকলে অবশ্যই আপনাকে ইংরেজিতে দক্ষ হতে হবে।

  • ইংরেজি ভাষার দক্ষতার প্রমণ সরূপ আপনাকে TOEFL এ নূন্যতম ১৮০ থাকতে হবে। আন্ডার গ্রেজুয়েটের জন্য। 
  • আর পোস্ট গ্রেজুয়েশনের জন্য নূন্যতম ২২০ থাকতে হবে। (কম্পিউটার বেইজ)। 
  • তবে শিক্ষা প্রতিষ্টান ভেদে স্কোর এর চাহিদা ভিন্ন হতে পারে। 
  • এছাড়া GRE,  নূন্যতম ২৮০ এবং IELTS নূন্যতম ৬.৫ চাওয়া হয়।

স্কলারশিপ কিভাবে পাওয়া যায় FAQS

স্কলারশিপ কিভাবে পাওয়া যায়?

মেধা, যোগ্যতা, সার্টিফিকেট ও ভাষা দক্ষতার উপর ভিত্তি করে স্কলারশিপ পাওয়া যায়। স্কলারশিপ কিভাবে পাওয়া যায় এই বিষয়ে জানতে এই পোস্ট পড়ুন।

স্কলারশিপ মানে কি?

স্কলারশিপ মানে হচ্ছে বৃত্তি নিয়ে দেশের বাহিরে পড়াশোনা করতে যাওয়াকে বোঝায়।

উপসংহার

আশা করছি আজকের পোস্টে স্কলারশিপ কিভাবে পাওয়া যায় আপনাদেরকে এই সম্পর্কে বুঝাতে পেরেছি।

আর্টিকেলটি মন দিয়ে পড়লে কোনো বিষয়ে আর দ্বিধা বা অজ্ঞতা থাকবে না। তথাপিও স্কলারশিপ কিভাবে পাওয়া যায় বিষয়ে আপনার আরও জানার থাকলে আমাদের কমেন্ট করে জানান।

নিত্য নতুন সকল বিষয়ে লেখা পেতে ভিজিট করুন আমাদের ওয়েবসাইট এবং চোখ রেয়াখুন আমাদের ফেসবুক পেজে। 

2 thoughts on “স্কলারশিপ কিভাবে পাওয়া যায় । বিদেশে স্কলারশিপ পাওয়ার যোগ্যতা”

  1. অনার্স কমপ্লিট করে স্কলারশিপের জন্য আবেদন করা কি ভালো হবে না অনার্স শেষ হওয়ার আগে

    Reply

Leave a Comment

twenty − seventeen =