বাংলার দার্জিলিং বলা হয় কোন পাহাড়কে?

বাংলার দার্জিলিং বলা হয় কোন পাহাড়কে এই সম্পর্কে জানতে অনেকেই গুগোল করে থাকেন। ভ্রমণ পিপাসুদের জন্য হতে পারে দার্জিলিং একটি চমৎকার জায়গা। যেখানে ভ্রমণের মাধ্যমে তারা উপভোগ করতে পারবে ঝর্ণাধারা ও পাহাড়ের বৈচিত্র্যময় সৌন্দর্য।

যারা সমগ্র বাংলাদেশ ভ্রমণ করতে চান তাদের জন্য বাংলার দার্জিলিং হতে পারে সেরা একটি জায়গা হবে। 

বাংলাদেশ থেকে যারা দার্জিলিং খুঁজছেন তাদের জন্য বলছি আপনার  আসল দার্জিলিং ঘুরে আসার পূর্বে নিজ দেশের দার্জিলিং নামক স্থানটি ঘুরে আসুন।

তবে এ কথাটি সব সময় মনে রাখবেন নিজ দেশ ঘুরিয়া দেখার পর আপনাকে বিশ্ব গুরিয়া দেখার অনুরোধ করে থাকেন বিশেষজ্ঞরা। 

বাংলার দার্জিলিং বলা হয় কোন পাহাড়কে?

নীলগিরি যাতায়াত করবেন কিভাবে করবেন

বাংলার দার্জিলিং বলা হয় নীলগিরি পাহাড় কে। বাংলাদেশের বান্দরবান জেলায় অপরূপ সৌন্দর্যের লীলাভূমি নীলগিরি একটি পাহাড় এবং পর্যটন কেন্দ্র। নীলগিরি কে বলা হয় বাংলাদেশের দার্জিলিং।

পাহাড়টি বান্দরবান জেলা সদর থেকে প্রায় 50 কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। নীলগিরি পাহাড়ের উচ্চতা ২২০০ ফুট। 

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী কর্তৃক পরিচালিত বাংলাদেশের সবচেয়ে সুন্দর ও মনোরম পরিবেশের পর্যটন কেন্দ্র একটি হচ্ছে নীলগিরি পর্যটন কেন্দ্র।

আরও পড়ুনঃ

রাউটারের পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করার নিয়ম

ভারতে প্রথম মুদ্রা প্রবর্তন করেন কে?

নীলগিরি যাতায়াত করবেন কিভাবে 

নীলগিরি পর্যটন কেন্দ্রে ভ্রমণ করার জন্য আপনাকে প্রথমে বান্দরবান জেলা শহরে আসতে হবে। 

ঢাকা শহরের বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে বিভিন্ন কোম্পানির বাস গুলি প্রতিদিনই বান্দরবানের উদ্দেশ্যে রওয়ানা করে।

বান্দরবানের যাতায়াতকারী বাস পরিবহন গুলোর নাম হচ্ছে এস. আলম, সৌদিয়া, সেন্টমার্টিন পরিবহন, ইউনিক, হানিফ, শ্যামলি, ডলফিন ইত্যাদি। 

এসকল বাস গুলোতে ভাড়া জনপ্রতি যথাক্রমে নন-এসি 550 টাকা থেকে শুরু এবং নন এসি 950 থেকে 2000 টাকার মধ্যে হয়ে থাকে।

ঢাকা থেকে বাসে করে বান্দরবান যেতে ৮ থেকে ১০ ঘণ্টা সময় লাগে। 

তবে নীলগিরি পর্যটন কেন্দ্রে ট্রেনে করে যেতে চাইলে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামগামী সোনার বাংলা, সুবর্ণ এক্সপ্রেস, তূর্ণা নিশিতা, মহানগর গোধুলী এইসব ট্রেনে করে চট্টগ্রাম যাওয়া যায়।

তবে চট্টগ্রাম আসার পর পুনরায় বাসযোগে আপনাকে বান্দরবানের পথে রওনা করতে হবে।

চট্টগ্রামের বন্ধর থেকে পূবালী ও পূর্বাণী নামে দুটি বাস বান্দরবানে প্রতিদিন যাতায়াত করে। 

এছাড়াও ঢাকা থেকে আপনি চাইলে আকাশপথে সরাসরি চট্টগ্রামে আসতে পারেন। 

চট্টগ্রাম থেকে বান্দরবান যেতে বাসে জনপ্রতি ৩০০ টাকা ভাড়া লাগে।

চট্রগ্রামের ধামপাড়া বাস স্ট্যান্ড থেকে ২৫০-৩৫০ টাকা ভাড়ায় বাসে করে বান্দরবান আসা যায়।

আরও পড়ুনঃ

Online shopping BD list | Top 10 বাংলাদেশের অনলাইন শপিং সাইট

বাংলাদেশের সংবিধানের রক্ষক কে?

ছবি এডিট করার ব্যাকগ্রাউন্ড | কিভাবে ছবি এডিট করতে হয়

বান্দরবান থেকে নীলগিরি কিভাবে যাবেন

বান্দরবান থেকে নীলগিরি যাওয়া যাবে জীপ/চান্দের গাড়ি/মহেন্দ্র/সিএনজি অথবা লোকাল বাস দিয়ে।

নীলগিরি যাওয়ার জন্য সবচেয়ে ভালো হয় রিজার্ভ গাড়ি নিয়ে গেলে। এতে করে আশেপাশের আরও কিছু জায়গায় ঘুরে দেখা যাবে। 

যদি দিনে গিয়ে দিনে ফিরে আসতে হয় তাহলে বান্দরবান জীপ স্টেশন থেকে বিভিন্ন গাড়ি অনুযায়ী ৩০০০-৫০০০ টাকা ভাড়ায় যাওয়া আসা সহ গাড়ি ঠিক করে নিতে হবে। 

চাঁন্দের গাড়ি গুলোতে ১২-১৪ জন যাওয়া যাবে, ল্যান্ডক্রুজার টাইপ জীপ গুলোতে ৭-৮ জন যাওয়া যাবে, ছোট জীপ আছে সেগুলোতে ৪-৫ জন থেকে আর সিএনজিতে ৩-৪ জন বসা যায়। 

আরও পড়ুনঃ

প্রত্যাশিত আয় তত্ত্ব কে প্রবর্তন করেন

কিভাবে ফেসবুক আইডি ফিরে পাব

রাস্তায় কোন প্রকার জ্যাম বা কোন সমস্যা না থাকলে যেতে সময় লাগবে দুই থেকে সাড়ে দুই ঘণ্টার মত।

নীলগিরিতে গিয়ে যদি মেঘের দেখার ইচ্ছা হয় তবে, খুব ভোরে রওনা দিতে হবে যাতে সকাল ৭-৮ টার ভিতর নীলগিরি থাকা যায়।

সদস্য সংখ্যা কম হলে কিংবা কম খরচে যেতে চাইলে লোকাল বাসে যাওয়া যায়, তবে এতে সময় লাগবে বেশি।

এছাড়াও থানচি বাস স্ট্যান্ড থেকে ১ ঘণ্টা পর পর থানচির উদ্দেশ্যে বাস ছেড়ে যায়, ভাড়া ১২০ টাকা।

নীলগিরি যাওয়ার পথে নিরাপত্তা জনিত কারণে সেনা চেকপোষ্টে পর্যটকদের নাম ও ঠিকানা লিপিবদ্ধ করতে হয়।

সাধারণত বিকেল ৫ টার পর থেকে নীলগিরির উদ্দেশ্যে আর কোন গাড়িকে যেতে দেয়া হয় না। তাই ভ্রমণের পূর্বে সময়ের দিকে খেয়াল রাখুন। 

নীলগিরি পর্যটন কেন্দ্রে যাবার জন্যে পর্যটকদের কাছ থেকে টিকেট বাবদ জনপ্রতি ৫০ টাকা এবং গাড়ির জন্য আলাদা ৩০০ পার্কিং ফি নেয়া হয়।

আরও পড়ুনঃ

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় জেলা কোনটি

ফাইজার কোন দেশের টিকা | ফাইজারের উপকারিতা ও কার্যকারিতা

বাংলার দার্জিলিং বলা হয় কোন পাহাড়কে FAQS

বাংলার দার্জিলিং বলা হয় কোন পাহাড়কে?

নীলগিরি পাহাড়কে বাংলার দার্জিলিং বলা হয়।

নীলগিরি পাহাড়ের উচ্চতা কত?

বাংলার দার্জিলিং খ্যাত নীলগিরি পাহাড়ের উচ্চতা ২২০০ ফুট।

নীলগিরি পাহাড় কোথায় অবস্থিত?

পাহাড় ভ্রমণ পিপাসু মানুষদের অবগতির জন্য জানাচ্ছি যে নীলগিরি পাহাড় টি বাংলাদেশের বান্দরবান জেলার সদর থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।

উপসংহার,

আশা করি বাংলার দার্জিলিং বলা হয় কোন পাহাড় কে সম্পর্কে আপনি বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। 

জীবনের ব্যস্ততম সময়ে নিজেকে একটু সময় দেওয়ার জন্য আপনি ঘুরে আসতে পারেন সেনাবাহিনী কর্তৃক পরিচালিত দার্জিলিং খ্যাত নীলগিরি পাহাড় অঞ্চলে।

মোবাইল ব্যাংকিং, ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় সম্পর্কে জানতে ও বিভিন্ন তথ্য বাংলায় পেতে রেগুলার ভিজিট করুন আমাদের ওয়েবসাইট।

এবং জয়েন করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। 

Leave a Comment

eighteen − 7 =