পদ্মা সেতু সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান | পদ্মা সেতু a to z তথ্য জানুন

পদ্মা সেতু সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান বিষয় গুলি সম্পর্কে জানবো আজকে। এই পোস্টে আপনাদের পদ্মা সেতু a to z জানতে সর্বচ্ছো চেষ্টা থাকবে। গত কয়েক বছর ধরে বিশেষ করে এই মুহূর্তে বাংলাদেশের অন্যতম হট টপিক স্বপ্নের পদ্মা ব্রিজ। পদ্মা ব্রিজ নিয়ে যেন দেশের সাধারণ মানুষের আগ্রহ উদ্দীপনার শেষ নেই

ঠিক একই রকমভাবে আলোচনার সমান গতিতে চলছে পদ্মা সেতু নিয়ে সমালোচনা। আজকে আমরা পদ্মা সেতু সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান এর আদ্দপান্থ সবটুকুই জানবো। 

বাঙ্গালীদের মনের আবেগ পদ্মা সেতু দক্ষিন বাংলার লাখ লাখ সাধারণ জনগণকে ঢাকার সাথে সড়ক পথে যুক্ত করেছে। এছাড়া বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে দীর্ঘতম সেতু হওয়ায় এ নিয়ে সাধারণ জনগন থেকে উচ্চপদস্থ দের মধ্যেও আগ্রহ উদ্দীপনার শেষ নেই। 

আজকের পোষ্টের মাধ্যমে আমরা পদ্মা সেতু সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান  সম্পর্কিত সম্পূর্ণ জানবো। চলুন, জেনে নেওয়া যাক পদ্মা সেতু সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান  সম্পর্কে সম্পূর্ণ তথ্য। 

Contents hide

পদ্মা সেতু প্রকল্পের নাম কি । পদ্মা সেতু সম্পর্কে সাধারন জ্ঞান 2022

পদ্মা সেতু সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান  পদ্মা সেতু a to z তথ্য জানুন
স্বপ্নের পদ্মা সেতু সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান | পদ্মা সেতু a to z তথ্য জানুন

বহু বাঙ্গালীর স্বপ্নের পদ্মা সেতুর প্রকল্পের নাম পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্প। এই সেতু পদ্মা নদীর উপরে তৈরি হচ্ছে, নদীর নামেই পদ্মা সেতুর নামকরণ করা হয়।

পদ্মা সেতুর মূল কাজ

২০১৭ সালের অক্টোবর মাসে পদ্মা সেতুর মূল কাজ শুরু হয়। মূল নির্মাণ কাজ শুরু হওয়ার পরে ২০২০ সালের ২৭ নভেম্বরে সেতুর মোট ৪২ টি পিলারের মধ্যে ৪২ টি পিলার নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়। অর্থাৎ সেতুর মোট ৪২ টি পিলারের উপর দাড়িয়ে যার নির্মাণ সম্পন্ন করতে দেড় বছরের বেশি সময় লেগেছে। 

সার্বজনীন পেনশন ব্যবস্থা কি । সার্বজনীন পেনশন ব্যবস্থা প্রবর্তন

এর মধ্যে ৩১ তম পিলারটি বসানোর সময় নদীর ভূগর্ভে হারিয়ে যাওয়ার কারণে বেগ পেতে হয়। অবসেশে ৪১ তো পিলারটি অসম্পত রেখে ৪২ তম পিলার নির্মাণ করা হয়। পরবর্তীতে দিসেম্বরের ১০ তারিখে ৪১ তম পিলারটি পুনরায় বসাতে সক্ষম হয় দায়িত্ব প্রাপ্ত সিভিল কর্মচারীরা।  

পদ্মা সেতু কোন জেলায় অবস্থিত

বাংলাদেশে অবস্থিত পদ্মা নদীর উপর নিরমিত পদ্মা সেতু একটি বহুমুখী সড়ক এবং রেল সেতু। পদ্মা সেতু নির্মাণ হয় মুন্সিগঞ্জের লৌহজং এর সাথে মাদারীপুর এবং শরীয়াতপুর জেলা সংযুক্ত হয়েছে। 

পদ্মা বহুমুখী সেতু নির্মাণের মধ্য দিয়ে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিম অংশের সাথে উত্তর- পূর্ব অংশের সাথে সংযোগ ঘটেছে।

পদ্মা সেতুর নকশা করে কে?

দেশের অন্যতম এই সেতুর নকশা করে এইসিওএমের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পরামর্শকদের নিয়ে গঠিত একটি দল। বলে রাখা ভালো, এইসিওএম হলো একটি মার্কিন বহুজাতিক ইঞ্জিনিয়ারিং ফার্ম। 

এই কাজে বাংলাদেশের ব্রিহত সেতু যমুনা সেতু প্রকল্পের আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদের নিয়ে একটি বিশেষজ্ঞ প্যানেল তৈরি করা হয়। এই প্যানেলের সভাপতি নির্বাচন করা হয় অধ্যাপক জামিল রেজা চৌধুরীকে এবং প্যানেলে ১১ জন সদস্য থাকে। এই প্যানেল পদ্মা সেতুর নকশা প্রণয়ন এবং বাস্তবায়ন পর্যায়ে প্রকল্প কর্মকর্তা, নকশা পরামরশক কমিটি সহ সকল সহযোগীদের পরামর্শ দেয়।

 ব্লগ লিখে আয় করার উপায় | ঘরে বসে বাংলা লিখে টাকা আয় করুন! বিকাশ পেমেন্ট

পদ্মা সেতু বিশ্বের কত তম সেতু । পদ্মা সেতুর সর্বশেষ খবর

বিশ্বের সব বড় সেতুর মধ্যে পদ্মা সেতুর অবস্থান ১২২ তম। সুইডেনের অল্যানড ব্রিজের থেকেও বাংলাদেশের পদ্মা সেতুর দৈর্ঘ্য বেশি। 

এর এক যুগ আগে চীনে নির্মিত হয়েছিলো বিশ্বের সব চেয়ে বড় ব্রিজ ডানইয়াং-কুনশান গ্র্যান্ড ব্রিজ। ২০১০ সালে শুরু হয়ে কাজ শুরু করে ২০১১ সালে সমাপ্ত করে সর্ব সাধারনের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়।

২০১০ থেকে এখন পর্যন্ত বিশ্বে সকল ব্রিজকে ছারিয়ে দৈর্ঘ্যের দিক থেকে প্রথম অবস্থানে আছে। এই ব্রিজটির দৈর্ঘ্য ১ লাখ ৬৪ হাজার ৮০০ মিটার।    

পদ্মা সেতুর দৈর্ঘ্য কত কিলোমিটার | পদ্মা সেতুর দৈর্ঘ্য কত

পদ্মা সেতুর দৈর্ঘ্য কত কিলোমিটার
পদ্মা সেতুর দৈর্ঘ্য কত কিলোমিটার

যেহেতু পদ্মা সেতু বাংলাদেশের একটি দীর্ঘতম সেতু পদ্মা সেতুর দৈর্ঘ্য জানা অত্যন্ত প্রয়োজন। পদ্মা সেতুর দৈর্ঘ্য ৬.১৫ কিলোমিটার (শুধু মাত্র পানির অংশের)। আর ডাঙ্গা সহ সেতুটির দৈর্ঘ্য প্রায় ৯ কিলোমিটার।

পদ্মা, ব্রহ্মপুত্র এবং মেঘনা নদী অববাহিকায় ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যের মধ্যে ৪২ টি স্প্যান বসানো হয়েছে। আর এই স্পেন গুলোর প্রতিটি স্পেনের দৈর্ঘ্য ও প্রস্থ ৬.১৫০ মিটার এবং ১৮.১০ মিটার।

পদ্মা সেতুর প্রস্থ কত?

আমাদের দেশের অন্যতম আবেগময় সেতু পদ্মা সেতুর প্রস্থ ৭২ ফুট। এবং পদ্মা সেতুর লেন সংখ্যা ৪ টি। পদ্মা সেতুতে রেল লাইনের অবস্থান সেতুর নিচ থেকে। 

পদ্মা সেতু নিয়ে কর্ম পরিকল্পনা কি?

পদ্মা সেতুকে কেন্দ্র করে মূলত পাঁচটি প্যাকেজে ভাগ করা হয়েছে। 

১) মূল সেতু

২) নদি শাসন

৩) জাজিরা সংযোগকারী সড়ক

৪) টোল প্লাজা

৫) অন্যান্য সব সেক্টর। 

পদ্মা বহুমুখীর সেতু প্রকল্পের পরিচালক ছিলেন কারিগরি মুল্ল্যাওন কমিত্র দায়িত্ব প্রাপ্ত সভাপতি। 

পদ্মা সেতু নির্মাণে মোট কত টাকা ব্যয় হয়?

এখন পর্যন্ত পদ্মা বহুমুখী সেতু নির্মাণে খরচ করা মোট টাকার পরিমাণ ৩০ হাজার ১৯৩ দশমিক ৩৯ কোটি টাকা।

অন্যদিকে বাংলাদেশের অর্থ বিভাগের সাথে সেতু বিভাগের চুক্তি অনুযায়ী  এই বহুমুখী সেতু নির্মাণে সরকার ২৯ কোটি ৮৯৩ কোটি টাকা ঋণ দেয় বাংলাদেশ সরকার।

সরকারের এই টাকা ১ সতাংশ হারে ৩৫ বছরের মধ্যে পরিশোধ করে হবে সেতু  কর্তৃপক্ষকে। 

খরচ করা অর্থের মধ্যে রয়েছে বহুমুখী পদ্মা সেতুর অবকাঠামো তৈরি, নদী শাসন, সংযোগ, ভুমি অধিগ্রহণ, পুনর্বাসন, পরিবেশ এবং বেতন- ভাতা ইত্যাদির মধ্যেই।

আরও পড়ুনঃ

Brta.gov.bd ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক পদ্ধতি

Bkash Account Open System Offer

পদ্মা সেতুর চুক্তিবদ্ধ সংস্থা কে?

বাংলাদেশ সরকার এবং চীনা চায়না ব্রিজ কোম্পানি ২০১৪ সালের ১৭ জুন পদ্মা বহুমুখী সেতু নির্মাণের আনুষ্ঠানিক চুক্তি করে। সব থেকে কম দরদাতা হিসেবে চীনের কোম্পানি বহুমুখী পদ্মা সেতুর কাজ পায়। 

এর আগে ২০১০ সালে প্রথমবারের মতো বহুমুখী পদ্মা সেতুর জন্য দরপত্র আহবানে  প্রি কোয়ালিফিকেশনের জন্য ৪০ টি কোম্পানি অংশ নেয়।এর মধ্যে বিশ্বব্যাংক, জাইকা এবং এডিবির তত্বাবধানে এদের মধ্যে ৫ টি কোম্পানিকে বাছাই করা হয়। পরবর্তীতে বিশ্ব ব্যাংকের আপত্তির কারণে পাঁচটি থেকে একটি কোম্পানি বাদ পড়ে যায়। 

পরবর্তীতে আর্থিক প্রস্তাব আহ্বান করা হলে চীনের AECOM কোম্পানিটি  আর্থিক প্রস্তাব জমা দেয়।

পদ্মা বহুমুখী সেতু নির্মাণে চুক্তি বদ্ধ হয়েছে চায়না গ্রুপ লিমিটেড এর আওতাভুক্ত চায়না মেজর ব্রিজ নামের একটি কোম্পানি। এই চুক্তিপত্র শেষে পদ্মা সেতুর কাজ শুরু হয় ২০১৪ সালের ৭ ডিসেম্বর। 

দেশের সবচেয়ে বড় সেতু এবং  বিশ্বে ১২২ তম বড় সেতু হিসেবে সুনাম পাওয়া পদ্মা বহুমুখী সেতু নিয়ে এতক্ষণ অনেক তথ্য বিশেষ করে সাধারণ তথ্য জানলাম। আজকের পোষ্টের এই পর্যন্ত বুঝতে সমস্যা নাই বলে আশা করছি। 

এবার জানা যাক পদ্মা বহুমুখী সেতু নির্মাণের সময়কাল নিয়ে। এই তথ্য সাধারণত চাকরীর পরীক্ষার্থীদের জন্য বর্তমান এবং ভবিষ্যৎ সময়ে খুব কাজে লাগবে। চলুন জেনে নেওয়া যাক পদ্মা সেতুর সময়ক্রম নিয়ে সম্পূর্ণ বিষয়ের খুঁটিনাটি।

পদ্মা সেতু সম্পর্কে এতক্ষণ আমরা সাধারন জ্ঞান সম্পর্কিত অনেক তথ্য জানলাম।

এখন আমরা আরও সহজভাবে আরও কিছু তথ্য জানবো অতি সংক্ষেপে। চলুন জেনে নেওয়া যাক পদ্মা সেতু সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান এবং আমাদের স্বপ্নের পদ্মা সেতু নিয়ে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। 

পদ্মাসেতু সম্পর্কিত ২০ টি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন এবং উত্তর । General knowledge about Padma bridge

পদ্মা সেতুর দুই প্রান্তের জেলার নাম কি এবং পদ্মা সেতু সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান জানার জন্য আপনাকে আমাদের সম্পূর্ণ পোস্ট টি পড়তে হবে।

বন্ধুরা পদ্মা সেতু সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান pdf আকারে আপনাদের দেয়ার চেষ্টা করবো।

আরও পড়ুনঃ

Banglalink Emergency Balance Code

ভোটার আইডি কার্ড চেক 2022

NID BD Helpline Number 

পদ্মা সেতু তথ্য ও পদ্মা সেতু a to z FAQS

পদ্মা সেতুর প্রকল্প এর নাম কী?

বাংলাদেশের দক্ষিণ অঞ্চলের মানুষের অনেক দিনের স্বপ্নের পদ্মা সেতু প্রকল্পের নাম পদ্মা বহু মুখী সেতু প্রকল্প।

পদ্মা সেতুর সঠিক দৈর্ঘ্য কত?

পদ্মা সেতুর সঠিক দৈর্ঘ্য হচ্ছে ৬.১৫ কিলোমিটার।

বহুমুখী পদ্মা সেতুর প্রস্থ কত ফুট?

বাংলাদেশের সবথেকে বৃহত্তম সেতু হচ্ছে পদ্মা। পদ্মা সেতুর প্রস্থ হচ্ছে ৭২ ফুট। এটির মুল সড়কের নিছে রয়েছে রেললাইন এবং পদ্মা সেতু ৭২ ফুটের চার লেনের সড়কের একটি ব্রিজ।

পদ্মা সেতুর রেললাইন স্থাপন হবে কোথায়?

সেতুর সাথে রেললাইন যুক্ত আছে পদ্মা ব্রিজে। পদ্মা সেতুর নিচ তলায় রেললাইন যুক্ত করা হয়েছে।

পদ্মা সেতুর ভায়াডাক্ট কত কিলোমিটার?

ভায়াডাক্ট সম্পর্কে আপনি জানেন কি? পদ্মা সেতুর ভায়াডাক্ট ৩.১৮ কিলোমিটর।

পদ্মা সেতুর সংযোগ সড়ক মোট কত কিলোমিটার?

দুই প্রান্তে মোট ১৪ কিলোমিটার। পদ্মা সেতুর সংযোগ সড়ক মোট কত কিলোমিটার?

পদ্মা সেতুর বর্তমান অবস্থা A to Z

আমাদের মধ্যে এমন অনেকেই রয়েছে যারা পদ্মা সেতু a to z সম্পর্কে জানতে চান।

তাদের উদ্দেশ্য হচ্ছে পদ্মা সেতু a to z সম্পর্কে সঠিক ধারণা পওয়া। আপনি চাইলেই পদ্মা সেতু সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান ২০২২ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

চলুন পদ্মা সেতু সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান ২০২২ সম্পর্কে আরও কিছু প্রশ্ন উত্তর দেখি।

আরও পড়ুনঃ

Online Birth Certificate Check Bangladesh | Online bris check BD

Birth Registration Certificate Check Online BD Bangladesh 2022

নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন করার নিয়ম অনলাইনে

স্বপ্নের পদ্মা সম্পর্কে তথ্য

পদ্মা সেতু প্রকল্পে নদী শাসন হয়েছে মোট কত কিলোমিটার?

পদ্মা সেতু প্রকল্পে নদী শাসন হয়েছে দুই পাড়ে মোট ১২ কিলোমিটর।

স্বপ্নের পদ্মা সেতু প্রকল্পে মোট ব্যয় কত টাকা?

মূল পদ্মা সেতু প্রকল্পে মোট ব্যয় ২৮ হাজার ৭৯৩ কোটি ৩৯ লাখ টাকা মোট ধরা হয়েছে।

পদ্মা সেতু প্রকল্পে নদী শাসন ব্যয় কত টাকা?

বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে পদ্মা সেতু প্রকল্পে নদী শাসন ব্যয় ৮ হাজার ৭০৭ কোটি ৮১ লাখ টাকা ব্যয় হয়।

পদ্মা সেতু প্রকল্পে মোট জনবল কত জন?

জনবল প্রতিটি প্রকল্পের শক্তি। পদ্মা সেতু প্রকল্পে মোট জনবল প্রায় ৪ হাজার জন।

পদ্মা সেতুর ভায়া ডাক্ট পিলার মোট কয়টি?

বন্ধুরা পদ্মা সেতুর ভায়া ডাক্ট পিলার মোট সংখ্যা ৮১ টি।

পানির স্তর থেকে পদ্মা সেতুর উচ্চতা মোট কত?

পানির স্তর থেকে পদ্মা সেতুর উচ্চতা মোট ৬০ ফুট।

পদ্মা সেতুর পাইলিং গভীরতা কত ফুট?

স্বপ্নের পদ্মা সেতুর পাইলিং গভীরতা ৮৩ ফুট।

প্রতি পদ্মা পিলারের জন্য পাইলিং সংখ্যা কয়টি?

প্রতিটি পিলারের জন্য পাইলিং সংখ্যা ৬ টি।

পদ্মা সেতুর মোট পাইলিং সংখ্যা কতটি?

বন্ধুরা পদ্মা সেতুর মোট পাইলিং সংখ্যা ২৬৪ টি।

পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ শেষ হবে কবে?

এখনো পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ প্রায় ৯৯.৯৯% শেষ হয়েছে। বাংলাদেশ সরকার ২৬ জুন ২০২২ সালে পদ্মা সেতুর শুভ উদ্বোধন করার ঘোষণা দিয়েছে।

পদ্মা সেতুতে কী কী আছে?

বাংলাদেশের দক্ষিণ অঞ্চলের মানুষের অনেক দিনের পদ্মা সেতুতে গ্যাস, বিদ্যুৎ ও অপটিক্যাল ফাইবার লাইন পরিবহন সুবিধা থাকবে।

পদ্মা সেতুর ধরন কেমন করে করা হয়েছে?

দ্বিতলবিশিষ্ট এই পদ্মা সেতু কংক্রিট আর স্টিল দিয়ে নির্মিত হয়েছে। 

পদ্মা সেতুর মোট পিলার সংখ্যা কত?

স্বপ্নের পদ্মা সেতুর মোট পিলার সংখ্যা ৪২ টি।

পদ্মা সেতু প্রকল্পে চুক্তিবদ্ধ কোম্পানির নাম?

চায়না রেলওয়ে গ্রুপ লিমিটেড করেছে বাঙ্গালীর স্বপ্নের পদ্মা সেতু। পদ্মা সেতু প্রকল্পে চুক্তিবদ্ধ কোম্পানির নাম হচ্ছে চায়না রেলওয়ে গ্রুপ লিমিটেড।

পদ্মা সেতু স্প্যান সংখ্যা কত?

স্বপ্নের পদ্মা সেতু মোট স্প্যান সংখ্যা ৪২ টি।

পদ্মা সেতু সম্পর্কে বিস্তারিত A to Z

পদ্মা সেতু সম্পর্কে বিস্তারিত A to Z
পদ্মা সেতু সম্পর্কে বিস্তারিত A to Z

বাংলাদেশের নিজস্ব অর্থায়নে তৈরি পদ্মা বহুমুখী সেতু সম্পর্কে উপরের ২০ টি তথ্য মুলক প্রশ্ন বিভিন্ন ভর্তি পরিক্ষা চাকরীর পরিক্ষায় সাধারণ জ্ঞান হিসেবে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

এছাড়াও নিচে পদ্মা সেতু সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান বিষয়ে আরও কিছু বিস্তারিত তথ্যমূলক লেখা রয়েছে। পদ্মা সেতু সম্পর্কে জানতে এই আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ পড়ুন। 

পদ্মা সেতুর নির্মাণের মূল কাজ ২০১৭ সাল থেকে শুরু হয়। আমরা সাল ভিত্তিক পদ্মা সেতুর কাজের সময়ক্রম দেখবো। 

এর মধ্যে ২০১৭ সাল থেকে ২০২২ সাল পর্যন্ত থাকবে। চলুন শুরু করা যাক পদ্মা সেতুর নির্মাণ কার্যক্রমের সময়ক্রম। 

২০১৭ সালে পদ্মা সেতুতে করা কাজ সমূহ । পদ্মা সেতু সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান 2022

দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর ২০১৭ সালের  ৩০ সেপ্টেম্বর পদ্মা সেতুতে পিলারের ওপর বসানো হয় প্রথম স্প্যান।

শরীয়তপুরের জাজিরা প্রান্তে ৩৭ ও ৩৮ নং পিলারের ওপর ভাসমান ক্রেনের সাহায্যে এই প্রথম স্পান বসানো হয়।একই বছরের ১১ মার্চ ৩৯ ও ৪০ নম্বর পিলারের ওপর বসে তৃতীয় স্প্যান।

১৩ মে ৪০ এবং ৪১ নং পিলারের ওপর বসানো হয় চতুর্থ স্প্যান। শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার নাওডোবা এলাকায়  ২৯ জুন সেতুর পঞ্চম স্প্যান বসানো হয়েছে। 

২০১৮ সালে পদ্মা সেতুতে করা কাজ সমূহ । পদ্মা সেতু সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান

১৮ সালের জানুয়ারিতে  জাজিরা প্রান্তের তীরের দিকের ষষ্ঠ শেষ স্প্যান বসানো হয়। এরপর ২৮ জানুয়ারি পদ্মা সেতুর ৩৮ এবং ৩৯ নং পিলারের ওপর দ্বিতীয় স্প্যান ৭ বি সুপার স্ট্রাকচার বসানো হয়। 

প্রথম স্প্যান বসানোর চার মাস পর জাজিরা নাওডোবা প্রান্তে টিন হাজার একশত পঞ্চাশ টন ধারন খমতা সম্পন্ন স্প্যান বসানো হয়। একই বছর অর্থাৎ, ২০১৮ সালে মাওয়া প্রান্তে সেতুটির ৪ এবং ৫ নাম্বার প্লাএর উপর সপ্তম স্প্যান বসানো হয়।  

আরও পড়ুনঃ

প্লে স্টোরে আপ্প ডাউনলোড করবেন কিভাবে । Play store app download

অনলাইন খতিয়ান চেক বড় করার পদ্ধতি কি?

২০১৯ সালে পদ্মা সেতুতে করা কাজ সমূহ । পদ্মা সেতু সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান

১৯ এর ২০ ফেব্রুয়ারি জাজিরা প্রান্তে বহুমুখি পদা সেতুর ৩৫ এবং ৩৬ নাম্বার পিলারের উপর অষ্টম স্প্যান বসাতে সক্ষম হয় কত্রিপক্ষ। এর কিছু দিন পর ২২ মার্চ ৩৪ এবং ৩৫ নাম্বার  পিলারের উপর বসাতে সক্ষম হয় সেতুতির নবম স্প্যানটি। 

এরপরে মাওয়া প্রান্তে ১০ই এপ্রিল ১৩ এবং ১৪ নাম্বার পিলারের উপর দশম স্প্যান বসাতে সক্ষম হয় পদ্মা সেতু কত্রিপক্ষ। পরবর্তীতে ২৩ এপ্রিল শরিয়তপুরের জাজিরা প্রান্তে ১১ তম স্প্যান বসান হয় সেতুটির ৩৩ এবং ৩৪ নাম্বার পিলারের উপর। 

  • ১৭ মে মাওয়া এবং জাজিরা প্রান্তের মাঝামাঝি স্থানে ১২ তম স্প্যান বসানো হয়  ২০ ও ২১ নম্বর পিলারের ওপর। 
  • চলতি বছরের ২৫ মে ১৩ তম স্প্যান বসে সেতুর ১৪ এবং ১৫ নম্বর পিলারের ওপর। 
  • ২৯ জুন বসানো হয় পদ্মা বহুমুখী সেতুর ১৪তম স্প্যান। 
  • এরপরে অক্টোবরের ২২ তারিখে জাজিরা প্রান্তে ২৪ এবং ২৫ নম্বর পিলারের ওপর পদ্মা সেতুর ১৫তম স্প্যান বসাতে সক্ষম হয়। 
  • ২৭ নভেম্বর মাওয়া প্রান্তে ১৬ এবং ১৭ নম্বর পিলারের ওপর বসানো হয় সেতুর ১৬ তম স্প্যান। 
  • এই বছরের শেষ দিকে ৫ ডিসেম্বর ২২ এবং ২৩ নাম্বার পিলারের  ওপর মূল সেতুর ১৭তম স্প্যানটি বসাতে সক্ষম হয়।
  •  পদ্মা সেতুর ১৮তম স্প্যান বসানো হয় ১১ ডিসেম্বর। 
  • ১৮ ডিসেম্বর সেতুর ১৯তম স্প্যান বসানো হয়।
  • ৩১ ডিসেম্বর মুন্সীগঞ্জ এর মাওয়া প্রান্তে ১৮ ও ১৯ নম্বর পিলারের উপরে বসানো হয়। পদ্মা সেতুর ২০তম স্প্যান। ধূসর রঙের ‘৩-এফ’ নম্বরের স্প্যানটি খুঁটির উপরে বসানো হয় এই দিনে।

২০২০  সালে পদ্মা সেতুতে করা কাজ সমূহ । পদ্মা সেতু সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান

  • এ বছরের ১৪ জানুয়ারি পদ্মা সেতুর জাজিরা প্রান্তে সেতুর ৩২ এবং ৩৩ নম্বর পিলারের ওপর সেতুটির ২১তম স্প্যান বসানো হয়। 
  • ২৩ জানুয়ারি মাওয়া প্রান্তে পিলার নাম্বার ৫ এবং ৬ নম্বর পিলারের ওপর বসানো হয় সেতুটির ২২তম স্প্যান।
  • ২ ফেব্রুয়ারি সেতুর ২৩তম স্প্যান বসানো হয়।
  • ১১ ফেব্রুয়ারি  ২৪ তম স্প্যান বসে দেশের শীর্ষ সেতু পদ্মা সেতুর উপর। 
  • ২১ ফেব্রুয়ারি ২৫তম স্প্যান বসাতে সক্ষম হন ইঞ্জিনিয়াররা। 
  • পরবর্তীতে মার্চের ১০ তারিখে পদ্মা সেতুর ২৬তম স্প্যান বসানো হয়। শরীয়ত পুরের জাজিরা প্রান্তে ২৮ এবং ২৯ নম্বর পিলারের ওপর বসানো হয় এই স্প্যান।
  • ২০ এপ্রিল ২৭ এবং ২৮ নাম্বার পিলারের ওপর বসানো হয় ২৭তম স্প্যান। 
  • এর পরবর্তীতে ১১ এপ্রিল জাজিরা প্রান্তে বসানো হয় ২৮তম স্প্যান।
  • ৪ মে মাওয়া প্রান্তের সেতুর উপর ১৯ ও ২০তম পিলারের ওপর ‘৪ এ’ আইডি নম্বরের সেতুর ২৯তম স্প্যান বসাতে সক্ষম হয়। 
  • ৩০ মে জাজিরা প্রান্তে সেতুর ২৬ এবং ২৭ নম্বর পিলারের ওপর বসানো হয় পদ্মা বহুমুখী সেতুর ৩০তম স্প্যান।
  • ১০ জুন পদ্মা সেতুর  স্প্যান নাম্বার ৩১ বসানো হয়। সেতুর ২৫ এবং ২৬ নম্বর পিয়ারে শরীয়তপুরের জাজিরা প্রান্তে ৫- এ স্প্যানটি বসানো হয়।
  • ১১ অক্টোবর পদ্মা সেতুতে বসানো হয় ৩২ নাম্বার স্প্যানটি।এই স্প্যানটি পদ্মায় তীব্র স্রোতের কারণে প্রথম দিন বসানো সম্ভব না হলেও প্রকৌশলীদের প্রচেষ্টায় দ্বিতীয় দিনে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে সেতুর ৪ এবং ৫ নম্বর পিলারের ওপর স্প্যানটি বসানো হয়। বন্যা ও পদ্মা নদীর তীব্র স্রোতের কারণে স্প্যানটি বসানো হয় এর চার মাস পর।

পদ্মা সেতু সম্পর্কে আরও তথ্য ও সাধারণ জ্ঞান

  • অক্টোবরের ২০ তারিখ বসানো হয় সেতুর ৩৩ তম স্প্যান।
  • অক্টোবরের ২৫ তারিখে সেতুর ৩৪তম স্প্যান বসানো হয় সেতুর মাওয়া প্রান্তে ৭ এবং ৮ নম্বর পিলারের ওপর স্প্যান ২ – এ।
  • পরবর্তীতে ৩১ অক্টোবর ৩৫তম স্প্যান বসানো হয় মাওয়া প্রান্তে ৮ এবং ৯ নম্বর পিলারের ওপর স্প্যান ২-বি তে।
  • ৬ নভেম্বর পদ্মা সেতুর ৩৬তম স্প্যান বসানো হয় সেতুর মাওয়া প্রান্তের ২ এবং ৩ নম্বর পিলারের ওপর।
  • ১৩ নভেম্বর ৩৭তম স্প্যান ‘২- সি’ মুন্সীগঞ্জে মাওয়া প্রান্তে  ৯ এবং ১০নং পিলারের ওপর বসাতে সক্ষম হয়। 
  • ২১ নভেম্বর মুন্সীগঞ্জের মাওয়া প্রান্তের ১ এবং ২ নম্বর পিলারের ওপর সেতুর ৩৮তম স্প্যানটি সফলভাবে বসাতে পারে কত্রিপক্ষ। 
  • ২৭ নভেম্বর ৩৯ তম স্প্যান বসানোর কাজ সম্পন্ন করতে পারে কত্রিপক্ষ।এই স্প্যানটি মুন্সিগঞ্জের মাওয়া প্রান্তের ১০ এবং ১১ নাম্বর পিলারের ওপর এই ‘টু -ডি’ স্প্যানটি বসানো হয়।
  • এবং সর্বশেষ ৪ ডিসেম্বর পদ্মা সেতুর ৪০তম স্প্যান বসানোর মধ্য দিয়ে দৃশ্যমান হয় সেতুর ছয় হাজার মিটার পদ্মা বহুমুখী সেতু।
  • ১০ ডিসেম্বর পদ্মা সেতুর ১২ এবং ১৩ তম পিলারে ৪১তম স্প্যান বসানোর মধ্য দিয়ে দৃশ্যমান হয় সম্পূর্ণ পদ্মা সেতু অর্থাৎ পদ্মা বহুমুখী সেতু। 

২০২১ সালে পদ্মা সেতুতে করা কাজ সমূহ । পদ্মা সেতু সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান

২০২১ সালের ২৩ আগস্ট পদ্মা বহুমুখী সেতুতে সর্বশেষ সরক স্লাব বসানো হয়। এর মধ্য দিয়ে সেতুটির কাজ আরও একধাপ শেষ করেন প্রকৌশলীরা। 

২০২২ সালে পদ্মা সেতুতে করা কাজ সমূহ । পদ্মা সেতুর সর্বশেষ খবর

২০২১ সালের কাজের পর সেতুতে বিদ্যুৎ সংযোগ, ল্যাম্প পোস্ট বসানো হয় ২০২২ সালের প্রথম দিক থেকে এখন পর্যন্ত।

পদ্মা সেতুর সর্বশেষ খবর জানতে এখন অনেকে আগ্রহি।

সর্বশেষ তথ্য মতে চলতি এই বছরের ২৫ জুন বর্তমান সরকার প্রধান মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা উদ্ভোদন করার কথা থাকলেও সীতাকুণ্ড ট্রাজেডিতে পদ্মা সেতু উদ্ভোদনের টাকা দিয়ে দেশে আধুনিক অগ্নি নির্বাপক যন্ত্র কিনতে নির্দেশ দেন শেখ হাসিনা। 

আমাদের মানিনীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২৫ জুন ২০২২ তারিখে পদ্মা সেতু উদ্ভোদন করবেন।

এখন দেখার বিষয় হচ্ছে সীতাকুণ্ড কন্টেনার ডিপোতে অগ্নিকান্ডে পদ্মা সেতু উদ্ভোদনের তারিখ পূর্বের নির্ধারিত তারিখে ঠিক থাকে কিনা।

আরও পড়ুনঃ

টেলিটক এমবি চেক করার কোড কত? টেলিটক ইন্টারনেট ব্যালেন্স চেক

স্লিভার কাকে বলে? What is Sliver in Bangla

একজন দেশ প্রেমিকের দশটি গুন । Ten times a country lover

সবশেষে

আজকের পোষ্টের মাধ্যমে আমরা জানতে চেষ্টা করেছি পদ্মা সেতুর সাধারন জ্ঞান সম্পর্কিত সকল বিষয়ে।

এই পোস্টটি পড়ার মাধ্যমে পদ্মা সেতুর সাধারন থেকে গভীর সকল তথ্য পাবেন বলে আশা করছি। 

আশা করছি এই পোস্টটি পড়ার পর আর আপনাকে এই বিষয়ে আর পড়তে হবে। বা দ্বিধা বা অজ্ঞতা থাকবেনা। 

সব বিষয়ে নিত্য নতুন পোস্ট পেতে নিয়মিত ভিজিট করুন আমাদের ওয়েবসাইট।

চোখ রাখুন আমাদের ফেসবুক পেজে। 

Leave a Comment

twenty + 11 =